সারাদেশ

মিরসরাই-সাধুর বাজার সড়ক

ভাঙা রাস্তায় জাল পেতে ধরা হচ্ছে মাছ

প্রকাশ : ১৬ জুলাই ২০১৯ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভাঙা রাস্তায় জাল পেতে ধরা হচ্ছে মাছ

  বিপুল দাশ, মিরসরাই (চট্টগ্রাম)

সড়কটির প্রায় দুই কিলোমিটার অংশ চলাচলের অনুপযোগী দুই বছরের বেশি সময় ধরে। উঠে গেছে কার্পেটিং, সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত। প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের পানির স্রোতে গত রোববার বিকেলে অবস্থা আরও খারাপ হয়ে পড়ে। সড়কের মাঝ দিয়েই প্রবাহিত হচ্ছে পানি। আর সৃষ্টি হওয়া গর্তে জমে থাকা পানিতে মাছ ধরার জন্য পাতা হয়েছে জাল। দেখে মনে হবে ডোবার পানিতে মাছ শিকারের জন্য ডুবজাল ফেলেছেন জেলে!

গতকাল সোমবার বিকেলে চট্টগ্রামের মিরসরাই-সাধুরবাজার সড়কে দেখা যায় এমন দৃশ্য। মিরসরাই পৌরসভার অন্যতম এ সড়কের চারটি অংশ ভেঙে যাওয়ায় যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। মিরসরাই সদর থেকে ছয়টি রুটে বন্ধ রয়েছে সিএনজিচালিত অটোরিকশা চলাচল। এতে ব্যাপক দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন মিরসরাই-গোভনীয়া-সাধুরহাট-মলিয়াইশ এলাকার হাজার হাজার মানুষ ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

স্থানীয়রা জানান, গত কয়েক দিনের বৃষ্টিতে সড়কটির অবস্থা নাজুক হয়ে পড়ে। গতকাল সকাল থেকে সড়কটি দিয়ে মিরসরাই-কালামিয়া দোকান, মিরসরাই-গোভনীয়া, মিরসরাই-নাজিরপাড়া, মিরসরাই-কচুয়া, মিরসরাই-আবুতোরাব রুটে অটোরিকশাসহ সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

অটোরিকশাচালক তাজুল ইসলাম, মো. লিটন, মো. মিয়া ও সাহাবুদ্দীন জানান, প্রতিদিন অন্তত পাঁচ হাজার মানুষ সড়কটি দিয়ে যাতায়াতের  জন্য সিএনজিচালিত অটোরিকশা ব্যবহার করে। এ ছাড়া আরও দুই হাজারের বেশি মানুষ সড়কটি ব্যবহার করে।

স্থানীয় অটোরিকশাচালক সমিতির সভাপতি মো. সেলিম বলেন, এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন দেড়শ' অটোরিকশা চলাচল করে। সড়কটি পৌরসভা থেকে সংস্কার না করায় আমরা মাঝেমধ্যে ইট-বালু দিয়ে সংস্কার করেছি। কিন্তু বৃষ্টির পানির স্রোতে এখন সড়কের পোদ্দারতালুক অংশের ৩০ ফুট, নাজিরপাড়া অংশে ১০ ফুট, সীতাপুকুর অংশে ও গোভনীয়া অংশে ভেঙে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

কালামিয়ার দোকান এলাকার বাসিন্দা শিক্ষক মো. এনামুল হক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সড়কের এ অবস্থার কারণে চলাচল করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

রেজাউল করিম নামে এক চাকরিজীবী গতকাল সকালে অফিসে যাওয়ার পথে সড়কের এমন অবস্থা দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। হাঁটুপানি মাড়িয়ে সড়কের ভাঙা অংশ পার হন তিনি। গতকাল সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, সড়কের পোদ্দারতালুক এলাকায় ভেঙে যাওয়া অংশ দিয়ে পাহাড়ি ঢলের পানির স্রোত বইছে। সড়কের দুই পাশে পারাপারের অপেক্ষায় অর্ধশতাধিক মানুষ। কয়েকজন শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য হাঁটুপানিতে নেমে সড়কের ভাঙা অংশ পার হচ্ছে। কেউ কেউ পানি ভেঙে নিজের সাইকেলটি পার করছেন।

মিরসরাই-সাধুরবাজার সড়কের এ অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে মিরসরাই পৌরসভার প্রকৌশলী পরাক্রম চাকমা জানান, তিনি মাত্র কয়েকদিন আগে এখানে যোগদান করেছেন। সড়কের বিষয়ে তেমন কিছু জানেন না। তবে সড়ক ভেঙে যাওয়ার বিষয়ে শুনেছেন। ভাঙা অংশ দ্রুত সংস্কারের জন্য মেয়র উদ্যোগ নিচ্ছেন বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে মিরসরাই পৌরসভার মেয়র মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, বর্ষায় পাহাড়ি ঢলের পানিতে সড়কটি প্রতি বছর ভাঙে। পানির স্রোত কমে গেলে সংস্কারের মাধ্যমে সড়কটি যান চলাচলের উপযোগী করে তোলা হবে। তিনি আরও জানান, সড়কটির সংস্কার কাজে নিয়োজিত আগের ঠিকাদারের কাজ বাতিল করে পুনঃটেন্ডার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। পুনঃটেন্ডার হলে নতুন ঠিকাদারের মাধ্যমে সড়কটির সংস্কার শুরু করা হবে।

মন্তব্য


অন্যান্য