সারাদেশ

কলাপাড়া বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের হামলায় আহত বিদেশির মৃত্যু

প্রকাশ : ১৯ জুন ২০১৯

কলাপাড়া বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের হামলায় আহত বিদেশির মৃত্যু

  বরিশাল ব্যুরো ও কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার স্থানীয় শ্রমিকদের হামলায় আহত চীনের নাগরিক জং ইয়ান ফাং (২৬) মারা গেছেন।

বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ভোরে তিনি মারা যান। আহত অন্য পাঁচ চীনা নাগরিককে উন্নত চিকিৎসার জন্য শেবাচিম থেকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে বিদ্যুৎকেন্দ্রের অভ্যন্তরে দুর্ঘটনায় এক বাঙালি শ্রমিকের মৃত্যুর পর লাশ গুম হওয়ার গুজবে বিক্ষুব্ধ সহস্রাধিক বাঙালি শ্রমিক হামলা-ভাংচুরসহ তাণ্ডব চালায়। তাদের হামলায় আহত হন চীনা শ্রমিক-কর্মকর্তারা। বিপুল সংখ্যক পুলিশ গিয়ে টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করে সন্ধ্যার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত চীনা শ্রমিকদের মধ্যে ছয়জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের মঙ্গলবার রাতে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়।

শেবাচিম হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মাহবুবুর রহমান জানান, পটুয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হেমায়েত উদ্দিনের তত্ত্বাবধানে মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে ছয় চীনা শ্রমিককে শেবাচিম হাসপাতালে আনা হয়। এর আগে তাদের পটুয়াখালী হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল।

শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাত ৩টা ৫০ মিনিটে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন জং ইয়ান ফাং। তার মাথায় গুরুতর আঘাত ছিল এবং প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছিল। আহত পাঁচজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে তাদের সেখান থেকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে চীনের নাগরিক জং ইয়ান ফাং নিহত হওয়ার ঘটনায় ভবিষ্যতে কোনো মামলা হবে না— এমন দাবি করে ময়নাতদন্ত ছাড়া মৃতদেহ গ্রহণের জন্য বরিশাল জেলার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে আবেদন করেছেন তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকল্প ম্যানেজার লিউ সি।

কলাপাড়া উপজেলার নিশানবাড়িয়ায় নির্মাণাধীন ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বয়লারের সেপ্টিবেল্ট খুলে নিচে পড়ে নিহত হন শ্রমিক সাবিন্দ্র দাস (৩২)। তার মৃতদেহ গুম করা হয়েছে এমন গুজবে সহস্রাধিক বাঙালি শ্রমিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের ভেতরে তাণ্ডব চালায়। তারা সেখানে কর্মরত চীনের শত শত নাগরিককে বেধড়ক মারধর এবং ভাংচুর করে। বিপুল সংখ্যক পুলিশ ও র‌্যাব টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করে সন্ধ্যার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

নিহত শ্রমিক সাবিন্দ্র সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার জয়নগর গ্রামের নগেন্দ্র দাসের ছেলে।

কলাপাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আসাদুর রহমান বলেন, পটুয়াখালী মর্গে লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। বিদ্যুৎকেন্দ্রের পরিস্থিতি এখন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

মন্তব্য


অন্যান্য