সারাদেশ

গাড়িতে স্টিকার লাগিয়ে বিপাকে সাবেক সাংসদ

প্রকাশ : ১৮ জুন ২০১৯ | আপডেট : ১৮ জুন ২০১৯

গাড়িতে স্টিকার লাগিয়ে বিপাকে সাবেক সাংসদ

সাবেক সাংসদ অ্যাডভোকেট আলতাফ আলী- ফাইল ছবি

  বগুড়া ব্যুরো

বগুড়া-৭ (গাবতলী-শাহজাহানপুর) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটের পরাজিত হয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী অ্যাডভোকেট আলতাফ আলী। তার পরও নিজের গাড়ি থেকে সংসদ সদস্য স্টিকারটি খোলেননি সাবেক এই সাংসদ। এখনও ওই স্টিকার লাগানো গাড়িতেই ঘুরে বেড়ান তিনি। তবে এবার ওই স্টিকারের কারণেই বিপাকে পড়েছেন তিনি। স্টিকার দেখে গাড়িটি আটকে দেন একজন পাওনাদার। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে সেখান থেকে উদ্ধার হন তিনি।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে সাবেক সাংসদ আলতাফ আলী উপজেলা শহীদ মিনার চত্বরে গাড়িটি রেখে রেজিস্ট্রি অফিসে যান। ওই সময় কিছু লোক লোক তার গাড়িটি ঘিরে ধরে। আলতাফ আলী গাড়িতে ওঠার পর পেস্তা মণ্ডল নামে এক ব্যক্তি গাড়ির সামনে দাঁড়ান। ঘটনার সময় সেখানে উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায়। প্রায় ঘণ্টাখানেক পর পুলিশ গিয়ে সাবেক সাংসদকে সেখান থেকে উদ্ধার করেন।

পেস্তা মণ্ডল জানান, তার বাড়ি উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের জামিরবাড়িয়া গ্রামে। সাবেক সাংসদ আলতাফ আলীও একই এলাকার বাসিন্দা। তিনি অভিযোগ করেন, সাংসদ থাকাকালে তার ছেলেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরি পদে চাকরি দেওয়ার কথা বলে তিন লাখ টাকা নেন আলতাফ আলী। জমি বিক্রি করে ওই টাকা দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু টাকা নেওয়ার পরও তার ছেলেকে চাকরি দেননি আলতাফ। এমনকি ওই টাকাও ফেরত দিচ্ছেন না তিনি। বিষয়টি নিয়ে বার বার ফোন করলেও তিনি ফোন ধরেন না। পেস্তা মণ্ডল বলেন, 'জাতীয় সংসদ লেখা স্টিকার লাগানো দেখে বুঝতে পারি এটা এমপি আলতাফের গাড়ি। টাকা ফেরত নেওয়ার জন্যই তাকে আটকে রাখি।'

গাবতলী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম হোসেন বলেন, সাবেক এমপি আলতাফ আলীকে গাড়িসহ আটকে রাখার খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। তাকে জনতার কবল থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে তিনি গাড়ি নিয়ে বগুড়া শহরের দিকে চলে যান।

মন্তব্য


অন্যান্য