সারাদেশ

ইয়াবা পাচারকালে গুলিতে দুই রোহিঙ্গার মৃত্যু

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯

ইয়াবা পাচারকালে গুলিতে দুই রোহিঙ্গার মৃত্যু

নিহতদের কাছ থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে -সমকাল

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

মিয়ানমার থেকে সাঁতরে নাফ নদী পেরিয়ে ইয়াবার চালান নিয়ে কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে অনুপ্রবেশকালে বিজিবির গুলিতে ২ রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। তাদের পরনে টি শার্ট ও লুঙ্গি রয়েছে। 

শনিবার ভোরে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের নাফনদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিজিবির দুই সদস্য আহত হয়েছে। তারা হলেন- হ্নীলা বিওপির দায়িত্বরত ল্যান্স নায়েক মিজান ও সিপাহী বিল্পব। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আছাদুদ-জামান চৌধুরী জানান, নিহতদের কাছ থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা বড়ি পাওয়া গেছে। তাদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে নিশ্চিত হওয়া গেছে তারা দুজনই রোহিঙ্গা। 

তিনি বলেন, ভোরে টেকনাফের হ্নীলা এলাকায় দিয়ে নাফ নদী সাঁতরে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার চালান নিয়ে দুই পাচারকারী বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। এ সময় হ্নীলা বিওপির বিজিবির একটি টহল দলের উপস্থিতি টের পেয়ে পাচারকারীরা বেড়ি বাঁধ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। বিজিবির টহল দলের সদস্যরা তাদের ধাওয়া করলে তাদের লক্ষ্য করে ইয়াবা পাচারকারীরা গুলিবর্ষণ এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। এ সময় বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। পরে বিজিবির সদস্যরা সেখানে তল্লাশি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ দুই ইয়াবা পাচারকারীর মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে।

বিজিবির এই কর্মকর্তা আরও বলেন, এ সময় ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোসা ও ৪০ হাজার পিস ইয়াবা বড়ি পাওয়া যায়। এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া চলছে।  

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, হ্নীলার মইনউদ্দিন মেমোরিয়াল কলেজ সংলগ্ন নাফ নদীর কাছাকাছি গুলিবিদ্ধ দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে তাদের বিস্তারিত পরিচায় পাওয়া যায়নি, তাদের শরীরের গুলি চিহ্ন রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ দুটি কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য


অন্যান্য