সারাদেশ

জেডিসি পরীক্ষার এক কেন্দ্র থেকেই এতগুলো নকল উদ্ধার!

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৯ নভেম্বর ২০১৮

জেডিসি পরীক্ষার এক কেন্দ্র থেকেই এতগুলো নকল উদ্ধার!

  গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি

জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় নকল করার অভিযোগে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার ৫টি মাদ্রাসার ৮ পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ সময় পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে বড় এক ব্যাগভর্তি নকল উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে উপজেলার কাছেমাবাদ সিদ্দিকীয়া কামিল মাদ্রাসা পরীক্ষা কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে।

বহিষ্কৃতরা হলো উপজেলার জংগলপট্টি পীর বাদশা মিয়া দাখিল মাদ্রাসার পরীক্ষার্থী তাজিলা (রোল-৩০৫৮১৭), খাদিজা আক্তার (রোল-৩০৫৮১৮) ও এনি আকতার (রোল-৩০৫৮৩১)। মাগুরা মাদারীপুর নেছারিয়া দাখিল মাদ্রাসার সাব্বির আল জাবের (রোল-৩০৫৭৯১) ও মাফুজ বেপারী (রোল-৩০৫৭৮৯)। উপজেলার ইল্লা দাখিল মাদ্রাসার পরীক্ষার্থী সোনা মনি (রোল-৩০৬০১৫)। মিয়ার চর দাখিল মাদ্রাসার ইমরান সরদার (রোল-৩০৫৫৭৮) এবং পশ্চিম লক্ষণ কাঠি দারুস ছালাম দাখিল মাদ্রাসার পরীক্ষার্থী সোহান (রোল-৩০৫৭০১)।

জানা গেছে, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খালেদা নাছরিন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এ সময় কেন্দ্রের পরীক্ষার্থীদের দেহ তল্লাশি করে তিনি বিপুল পরিমাণ নকল উদ্ধার করেন। একই সময় নকল করার সময় ৮ পরীক্ষার্থীদেরকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। পরে তিনি তাদের বহিষ্কার করেন। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খালেদা নাছরিন জানান, পরীক্ষায় নকল করার দায়ে ওই ৮ শিক্ষার্থীকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

টেকনাফে 'দু্ইদল মাদক ব্যবসায়ীর গোলাগুলি'তে নিহত ১


আরও খবর

সারাদেশ

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

কক্সবাজারের টেকনাফে 'দুইদল মাদক ব্যবসায়ীর গোলাগুলি'তে একজন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত মোহাম্মদ বেলাল (৩৫) টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের পূর্ব পানখালীর (ওয়াকিয়াপাড়া) নূর আহমদের ছেলে।

শুক্রবার সকাল আটটার দিকে উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের বড় ডেইল গ্রামের মেরিন ড্রাইভ সড়কের পাশ থেকে ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, নিহত ব্যক্তি মাদক চোরাকারবারী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা রয়েছে।

ওসি আরও জানান, সকালে বাহারছড়ার বড় ডেইল মেরিন ড্রাইভ সড়কের পাশে গুলিবিদ্ধ লাশটি দেখে স্থানীয় লোকজন পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। তার শরীরে দু'টি গুলির চিহ্ন রয়েছে। দুইদল ইয়াবা ব্যবসায়ীর মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তিনি গুলিতে নিহত হয়ে থাকতে পারেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

খাগড়াছড়িতে বেড়াতে গিয়ে নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার


আরও খবর

সারাদেশ

  খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় বেড়াতে গিয়ে নিখোঁজের পাঁচ দিন পর এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার নাম আজগর আলী। শুক্রবার সকালে দীঘিনালার ছোট মেরুং বিবাড়িয়া পাড়ার জঙ্গল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। আসগরের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়ির বিজয়নগর এলাকায়। 

পুলিশ জানায়, আজগর আলী গত রোববার ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে দীঘিনালায় খালার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। পরের দিন থেকে তিনি নিখোঁজ থাকলেও স্বজনরা থানায় কোনো অভিযোগ করেনি। শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা রাস্তার পাশের জঙ্গলে তার লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেয়। এরপর পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।

দীঘিনালা থানার ওসি উত্তম কুমার দেব জানান, ওই যুবকের মৃত্যুর কারণ এখনও জানা যায়নি। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।


সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

মিরসরাইয়ে পটকা মাছ খেয়ে ২ জনের মৃত্যু


আরও খবর

সারাদেশ

  মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বিষাক্ত পটকা মাছ খেয়ে দাদি ও নাতনির মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া এই মাছ খেয়ে একই পরিবারের আরো ৬ জন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার বারইয়ারহাট পৌরসভায় উত্তর সোনাপাহাড়ের চিনকী আস্তানা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, ফজিলা খাতুন (৬০) ও মরিয়ম নেছা (৪)। 

অসুস্থরা হলেন- মরিয়ম নেছার মা বিলকিস, ভাই সাব্বির, রাব্বি, বোন ঝর্ণা, আতিয়া ও মরিয়মের মামা আমজাদ হোসেন। হতাহতদের বাড়ি কিশোরগঞ্জে বাজিতপুর এলাকায়।

বারইয়ারহাট পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. বাবুল জানান, চিনকী আস্তানা রেল স্টেশন এলাকায় কয়েকটি ঘরে নিম্ন আয়ের কিছু ভাড়াটিয়া পরিবার থাকে। এদের মধ্যে অনেকে বারইয়ারহাট মাছ বাজারে জেলেদের ফেলা দেয়া মাছ খাওয়ার জন্য কুড়িয়ে আনে। বৃহস্পতিবার মরিয়ম নেছার পরিবারের কেউ বাজার থেকে ফেলে দেয়া মাছ কুড়িয়ে আনে। কুড়িয়ে আনা ওই মাছের মধ্যে থাকা পটকা মাছ (যার বৈজ্ঞানিক নাম ট্রেট্রোডন প্যাটোকা) খেয়ে শিশু মরিয়ম মারা যায় এবং পরিবারের অন্যরা অসুস্থ হয়ে পড়ে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে মরিয়ম ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া পথে ফজিলা খাতুনের মৃত্যু হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. শহিদুল্লাহ বলেন, পটকা মাছ খেয়ে অসুস্থ কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে মরিয়ম নেছা (৪) নামে এক শিশু হাসপাতালে পৌঁছার আগেই মারা গেছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর