সমকাল ডেস্ক

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পার্লামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্তকে 'বেআইনি' বলেছেন স্কটল্যান্ডের সর্বোচ্চ আদালত। গতকাল বুধবার তিনজন বিচারকের একটি প্যানেল এ রায় দেন। বিচারকরা বলেছেন, ব্রেক্সিটের আগে সরকারের জবাবদিহি ঠেকাতেই এমন সিদ্ধান্ত নেন জনসন। যুক্তরাজ্য সরকার বলেছে, এ রায়ের বিরুদ্ধে লন্ডনে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করা হবে। খবর বিবিসির।

গতকাল স্কটিশ আদালত যে রায় দিয়েছেন তাতে পার্লামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্তে কী প্রভাব পড়বে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। মঙ্গলবার পার্লামেন্ট স্থগিত হয়ে গেছে এবং আগামী ১৪ অক্টোবর রানীর ভাষণের মধ্য দিয়ে নতুন অধিবেশন শুরু হবে। তবে বিবিসির সহকারী রাজনৈতিক সম্পাদক নরম্যান স্মিথের মতে, আগামী সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্ট মামলাটি ওঠার আগেই পার্লামেন্টে নতুন অধিবেশন ডাকতে পারেন জনসন। আজকালের মধ্যেই এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারেন তিনি।

বিরোধী দলগুলো জনসনের পাঁচ সপ্তাহের জন্য পার্লামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্তকে 'অগণতান্ত্রিক' আখ্যা দিয়ে এর তীব্র সমালোচনা করে আসছে। ব্রেক্সিটবিরোধী ৭০ জনেরও বেশি এমপি জনসনের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে স্কটিশ আদালতে গিয়েছিলেন। তাদের নেতৃত্বে ছিলেন স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টির এমপি জোয়ান্না চেরি। রায়ের পর গতকাল তিনি বলেন, 'সুপ্রিম কোর্টও এই রায় বহাল রাখবেন বলে আমরা আত্মবিশ্বাসী'। এর আগে গত সপ্তাহে স্কটিশ একটি আদালতে বিরোধীদের করা আবেদনটি খারিজ করে দিয়েছিলেন বিচারপতি লর্ড ডোহেরথি। তিনি বলেছিলেন, পার্লামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়ে আইন ভাঙেননি জনসন। এরপরই আপিল করেন তারা।


মন্তব্য