ইউরোপে তুষারঝড়ে ১৭ জনের মৃত্যু

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯

ইউরোপে তুষারঝড়ে ১৭ জনের মৃত্যু

অস্ট্রিয়ায় তীব্র তুষারপাতের কারণে বরফের নিচে ঢাকা পড়েছে বাড়িঘর। শুক্রবারের ছবি টুইটার

  সমকাল ডেস্ক

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে তীব্র তুষারঝড় আঘাত হেনেছে। জার্মানি, অস্ট্রিয়া ও নরওয়েতে ছড়িয়ে পড়েছে ভয়াবহ ঝড়। এতে গত এক সপ্তাহে প্রাণ হারিয়েছেন ১৭ জন। এ ছাড়া বরফে ঢেকে গেছে বেশিরভাগ অঞ্চলের রাস্তাঘাট। ঝড়ের প্রভাবে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে বলে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছেন আবহাওয়াবিদরা। তুষারধসের আশঙ্কায় বরফের ভেতর স্কি করায়ও সতর্কতা জারি করেছে জার্মানি ও ফিনল্যান্ড। খবর ডেইলি মেইল ও ওয়েদার নেটওয়ার্কের।

জার্মানির টাইজেনবার্গে তীব্র তুষারঝড়ে গত বৃহস্পতিবার এক তরুণী ও বাভারিয়া অঙ্গরাজ্যে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। অস্ট্রিয়ায় গত এক সপ্তাহে এ প্রাকৃতিক দুর্যোগে মারা গেছেন পাঁচজন। এ ঝড়ে বুধবার নরওয়েতে চারজন, সুইডেনে একজন, ফিনল্যান্ডে তিনজন ও স্লোভাকিয়ায় একজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া মঙ্গলবার রোমানিয়ায় বরফচাপায় মারা গেছেন এক ব্যক্তি।

এদিকে, তুষারঝড়ে গাছ পড়ে ও বরফ জমে বেশিরভাগ রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে পড়েছে। রাস্তার পাশে পার্কিং করা গাড়িগুলো যেখানে ছিল, সেখানেই আটকে আছে। এক রাতের ঝড়েই অনেক গাড়ি তলিয়ে গেছে বরফে। আর সাদা হয়ে আছে পুরো প্রকৃতি।

জার্মান সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বুধবার বাভারিয়ান শহর জিগসডর্ফ থেকে মিউনিখ যাওয়ার পথে ১৫ কিলোমিটার রাস্তায় গাড়ি আটকে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস ও সড়ক ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ ওই সড়কে গাড়ির ভেতর থেকে অন্তত ১০০ জনকে উদ্ধার করেছে।

তুষারঝড়ের কারণে পরিস্থিতি এত খারাপ হয়েছে যে, দক্ষিণ জার্মানির বেশ কয়েকটি স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এরই মধ্যে। সাধারণত তীব্র তুষারপাত হলে স্কি করার আনন্দ বেড়ে যায়। কিন্তু এই তুষারঝড়ে স্কি করায় সতর্কতা জারি করেছে জার্মানি ও ফিনল্যান্ড কর্তৃপক্ষ। কেননা, স্কি করতে গিয়ে তুষারধসে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে ফিনল্যান্ডে। স্লোভাকিয়ায় স্কি করতে গিয়ে তুষারধসের কবলে পড়ে প্রাণ হারান এক ব্যক্তি।

তুষারঝড়ের কারণে মধ্য অস্ট্রিয়ার একটি প্রধান রাস্তায় গাড়ি ও পথচারীদের চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বড় ধরনের কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এমন আশঙ্কায় দেশের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কও বন্ধ করে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির সড়ক ব্যবস্থাপনা বিভাগ।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, ইউরোপের পূর্ব ও উত্তরাঞ্চলীয় দেশগুলোতে সপ্তাহজুড়ে থাকতে পারে ভয়াবহ রকমের এই তুষারঝড়। তাই তারা সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছেন।


মন্তব্য যোগ করুণ