খাসোগি হত্যার দায় নিতে হবে সৌদিকেই

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯

   সমকাল ডেস্ক

সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যাকাণ্ডের জন্য সৌদি আরবকেই দায় নিতে হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতারা। বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটন ডিসির ক্যাপিটল কমপ্লেক্সে মুক্ত গণমাধ্যম উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সিনেট ও প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান সদস্যরা এ আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে জামাল খাসোগিসহ গত বছর বিশ্বজুড়ে নিহত ৫০ জনেরও বেশি সাংবাদিককে স্মরণ করা হয়। খবর রয়টার্সের।

আইনপ্রণেতারা জানান, ট্রাম্প প্রশাসন কোনো ধরনের ব্যবস্থা না নিলেও খাসোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে ব্যবস্থা নেবে কংগ্রেস। ডেমোক্র্যাট নেতাদের অভিযোগ, এ সৌদি সাংবাদিককে হত্যার ঘটনায় ট্রাম্প প্রশাসনের যথাযথ প্রতিক্রিয়া দেখানোর ঘাটতি দেখা গেছে।

গত বছরের ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনের ভেতরে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যা করা হয়। বিয়ে-সংক্রান্ত নথিপত্র আনার প্রয়োজনে তিনি কনস্যুলেট ভবনে গিয়েছিলেন। সৌদি আরব থেকে এসে ১৫ জনের একটি দল তাকে হত্যা করে। তার লাশের সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি। খাসোগিকে হত্যার নির্দেশদাতা হিসেবে সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের নাম উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাও মনে করে, যুবরাজ মোহাম্মদের নির্দেশেই খাসোগিকে হত্যা করা হয়েছে। যদিও সৌদি আরব শুরু থেকেই ওই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। নিজ দেশের গোয়েন্দা সংস্থার মূল্যায়নের পরও ট্রাম্প যুবরাজ মোহাম্মদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। এর সপক্ষে সৌদি আরবের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাপক বাণিজ্যিক স্বার্থের বিষয়টি তিনি তুলে ধরেছেন।

ডেমোক্র্যাটরা খাসোগি হত্যায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের কঠোর অবস্থান না নেওয়ার সমালোচনা করে বলেন, মুক্ত মত প্রকাশের গণতান্ত্রিক অধিকার শেষ করার মাধ্যমে সৌদি আরবের সঙ্গে কৌশলগত ও বাণিজ্যিক বন্ধনের বিজয়োৎসব করা যায় না।

কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেন, 'যদি আমরা সিদ্ধান্ত নিই যে, বাণিজ্যিক স্বার্থের কারণে আমাদের এই বক্তব্য ও পদক্ষেপ অগ্রাহ্য করা হবে, তবে আমাদের স্বীকার করতে হবে যে, আমরা সব ধরনের নৈতিক অবস্থান হারিয়েছি।'


মন্তব্য