স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত

কমলগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধর করল গ্রামবাসী

প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

   কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

কমলগঞ্জের মাধবপুর ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামে ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদে গ্রামবাসী মারধর করল একই গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক সুমন মিয়াকে। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় উভয়পক্ষের পৃথক দুটি লিখিত এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

স্কুলছাত্রীর ভাই অভিযোগ করে বলেন, স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে সুমন মিয়া ও তার সহযোগীরা তার বোনকে উত্ত্যক্ত করে। এ জন্য তিনি প্রতিবাদ করেছিলেন। এতে গত সপ্তাহে উপজেলা সদরের আতিক মেকানিকের দোকানের সামনে পেয়ে সুমন ও তার সহযোগী মঈন উদ্দীন তাকে মেরেছিল। এ জন্য মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বনগাঁও গ্রামে সুমনকে ডেকে গ্রামবাসী তাকে মারধরের কারণ জানতে চায়। জবাবে সুমন গ্রামবাসীর সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় করলে তারা তাকে মারধর করেছে। এর ঘণ্টা খানেক পর সুমনের সহযোগীরা তার দুই আত্মীয়কে মেরেছে। সঙ্গে সঙ্গে হুমকি দিয়ে গেছে শক্ত হাতে আবারও তারা হামলা চালাবে। তিনি আরও বলেন, উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সাকের আলী সজিবের সমর্থক বলে তার প্রভাবে সুমনের বিরুদ্ধে কেউ কোনো কথা বলতে পারে না।

গ্রামবাসীর হাতে মারধর ও তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে কয়েক দফা তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলেও সুমন মিয়ার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তবে কমলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাকের আলী সজিব মোবাইল ফোনে সাংবাদিকদের বলেন, পূর্ব বিরোধের জের ধরে পরিকল্পিতভাবে শওকতের নেতৃত্বে গ্রামের কিছু লোক সুমনকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মারধর করেছে। তাছাড়া সুমনের ওপর অন্যান্য অভিযোগ সঠিক নয় বলেও উপজেলা ছাত্রলীগ সম্পাদক জানান।

কমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে উভয়পক্ষ থেকে পৃথক দুটি অভিযোগ করা হয়েছে। তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


মন্তব্য