ভিডিও কলে সাক্ষাৎকার হেসনের

প্রকাশ : ১৫ আগষ্ট ২০১৯

ভিডিও কলে সাক্ষাৎকার হেসনের

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

মাইক হেসনের এখন ব্যস্ত সময়। একের পর এক সাক্ষাৎকার দিতে হচ্ছে তাকে। এই উপমহাদেশেরই তিন-তিনটি দেশে কোচ হওয়ার দৌড়ে আছেন তিনি। বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের প্রধান কোচ পদের প্রার্থী এই কিউই। বিসিবির আগ্রহের তালিকায় ওপরের দিকেই আছেন তিনি। হেসন রাজি হলে একবাক্যে হ্যাঁ বলে দেবে বোর্ড। বিসিবির নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রে জানা গেছে, ভিডিও কলে প্রেজেন্টেশন ও সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে হেসনের। পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক জানান, রাসেল ডমিঙ্গো ছাড়া সংক্ষিপ্ত তালিকার সব কোচের সাক্ষাৎকার ও প্রেজেন্টেশন ভিডিও বলে নেওয়া হচ্ছে। সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা ডমিঙ্গো ও হেসন ছাড়া আরও দু'জনের সাক্ষাৎকার নিয়েছে বিসিবি। বিসিবি মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানান, এই চারজনের মধ্য থেকেই বেছে নেওয়া হবে টাইগারদের প্রধান কোচ। তিনি আরও জানান, শিগগির নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে। কারণ আগামী মাসেই টেস্ট ও ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে টাইগাররা।

বিসিবির সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা প্রার্থীদের মধ্যে কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোই ঢাকায় এসে সরাসরি প্রেজেন্টেশন ও সাক্ষাৎকার দিয়ে গেছেন। গত ৭ আগস্ট তার সাক্ষাৎকার শেষে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানান, বাংলাদেশের ক্রিকেট সম্পর্কে ভালো ধারণা আছে ডমিঙ্গোর। টিম বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে এ প্রোটিয়ার পরিকল্পনাও পছন্দ হয়েছে তাদের। যদিও ক্রিকেটপাড়ায় গুঞ্জন, টাইগারদের প্রধান কোচ হতে চান না ডমিঙ্গো। বাংলাদেশ 'এ' দল নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী তিনি। তবে বিসিবি পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক এবং সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী সাক্ষাৎকারের পর পরই জানান, ডমিঙ্গো প্রধান কোচের জন্য সাক্ষাৎকার দিয়েছেন। প্রশ্ন হচ্ছে, বিসিবির সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা বাকি কোচরা কেন ঢাকায় এসে সাক্ষাৎকার দিলেন না? বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানান, 'কৌশলগত কারণেই বেশিরভাগ প্রার্থীর ভিডিও কলে সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে।' বিশেষ করে প্রার্থীদের গোপনীয়তা রক্ষার ব্যাপারটিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে বিসিবি।

জালাল ইউনুস জানান, ঈদের আগে দু'জন এবং গতকাল দু'জনের সাক্ষাৎকার ও প্রেজেন্টেশন নেওয়া হয়েছে। তবে সাক্ষাৎকার পর্ব একপ্রকার শেষ হলেও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কোচ চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতে পারে বিসিবিকে। দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা ছয় প্রার্থীর সাক্ষাৎকার হবে কাল শুক্রবার। যে তালিকায় নিউজিল্যান্ডের সাবেক প্রধান কোচ মাইক হেসনকেও রেখেছে বিসিসিআই। রবি শাস্ত্রী, টম মুডি, ফিল সিমন্স, লালচাঁদ রাজপুত ও রবিন সিংয়ের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে হেসনের। স্বাভাবিকভাবেই হেসনকে পেতে চাইলে বিসিসিআইয়ের কোচ চূড়ান্ত হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে। কারণ সাকিব আল হাসানদের জন্য ভালো মানের একজন কোচই নিয়োগ দিতে চায় দেশের ক্রিকেটের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

বিসিবি কর্তাদের পছন্দের তালিকায় ওপরের দিকে থাকা হেসনও চাইবেন সেরা দলের কোচ হতে। তিনটি দেশের প্রধান কোচের পদে আবেদন করলেও তার প্রথম পছন্দ যে ভারত এতে কোনো সন্দেহ নেই। ১৯৯২-এর বিশ্বকাপজয়ী পাকিস্তান দ্বিতীয় পছন্দ। ভালো সুযোগ-সুবিধা দিয়ে বিসিবিও চেষ্টা করবে হেসনকে কোচ হিসেবে পেতে। উপমহাদেশের এই তিন দেশের যে কোনো একটির প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার নিশ্চয়তাও হয়তো পেয়ে গেছেন তিনি। এ কারণে সাক্ষাৎকার দেওয়ার আগে আইপিএলের দল কলকাতা নাইট রাইডার্সের প্রধান কোচের পদ ছেড়ে দিয়েছেন এই কিউই।

মাইক হেসন, রাসেল ডমিঙ্গো, গ্রান্ট ফ্ল্যাওয়ার, পল ফারব্রেস, চন্ডিকা হাথুরুসিংহে বা অন্য যিনিই টাইগারদের প্রধান কোচ হিসেবে নির্বাচিত হবেন, এ মাসেই তাকে নিয়োগ দেবে বিসিবি। জালাল ইউনুস বলেন, 'প্রধান কোচ নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছু জিনিস গুরুত্বসহকারে দেখেছি। বাংলাদেশের ক্রিকেট সম্পর্কে যার ভালো ধারণা আছে, যে জাতীয় দলকে একটা উচ্চতায় নিয়ে যেতে চায়, যাকে নিলে আমাদের ক্রিকেটের লাভ হবে, এমন একজনকেই বেছে নেওয়া হচ্ছে।' তবে এক নয়, দু'জনকে পছন্দের তালিকায় রেখেছে বিসিবি। হেসনকে না পেলে যেন দ্বিতীয়জনকে নিয়োগ দিতে পারে। আগামী মাসেই দেশের মাটিতে টেস্ট ও টি২০ সিরিজ খেলবেন সাকিবরা। একটি টেস্ট ও ত্রিদেশীয় টি২০ সিরিজ খেলতে ৩০ আগস্ট আফগানিস্তান দল ঢাকায় পা রাখবে। ১ ও ২ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে হবে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ। একই শহরের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ৫ থেকে ৯ সেপ্টেম্বর হবে একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি। ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে আফগানিস্তান ও জিম্বাবুয়েকে নিয়ে টি২০ সিরিজ খেলবে টাইগার বাহিনী। নতুন কোচের জন্য এই সিরিজ দুটি দল পুনর্গঠনের ভালো একটি সুযোগ, যাতে সেরা দল নিয়ে নভেম্বরে ভারত সফরে যেতে পারেন তিনি।


মন্তব্য