প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি

বাংলা

প্রকাশ : ১৫ আগষ্ট ২০১৯

মো. সুজাউদ দৌলা

সহকারী অধ্যাপক (বাংলা)

রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ

ঢাকা



প্রিয় শিক্ষার্থীরা, শুভেচ্ছা নিও। তোমাদের বাংলা বিষয়ে অনুশীলনীর প্রশ্নের উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো। প্রথমে নিজেরা চেষ্টা করবে, পরে সঠিক উত্তরের সঙ্গে মিলিয়ে নেবে।



১। নিচের কবিতাংশ পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।

বাদশাহ কহেন, 'সে দিন প্রভাতে

দেখিলাম আমি দাঁড়ায়ে তফাতে

নিজ হাতে যবে চরণ আপনি করেন প্রক্ষালন,

পুত্র আমার জল ঢালি শুধু ভিজাইছে ও চরণ।

নিজ হাতখানি আপনার পায়ে বুলাইয়া সযতনে

ধুয়ে দিল নাক কেন সে চরণ, বড় ব্যথা পাই মনে।'

উচ্ছ্বাস ভরে শিক্ষকে আজি দাঁড়ায়ে সগৌরবে,

কুর্নিশ করি বাদশাহে কহেন উচ্চরবে-

'আজ হতে চির উন্নত হলো শিক্ষাগুরুর শির

সত্যই তুমি মহান উদার বাদশাহ আলমগীর।'

ক) বাদশাহ কেন মনে ব্যথা পেয়েছেন?

খ) বাদশাহ আলমগীর কীভাবে শিক্ষাগুরুর শির চির উন্নত করেছিলেন?

গ) কবিতাংশটি নিজের ভাষায় লেখ।

১ নং প্রশ্নের উত্তর

১। ক) উত্তর : বাদশাহ তার পুত্রের শিক্ষকের প্রতি অসৌজন্যমূলক আচরণের কারণে মনে ব্যথা পেয়েছেন।

বাদশাহ আলমগীর ছিলেন একজন মহান উদার ব্যক্তি। তিনি তার পুত্রের প্রকৃত শিক্ষা অর্জনের জন্য একজন শিক্ষক রেখেছিলেন। কিন্তু একদিন তিনি দেখলেন তার পুত্র শিক্ষকের পায়ে পানি ঢালছে আর শিক্ষক নিজ হাতে পা ধৌত করছেন। তিনি প্রত্যাশা করেছিলেন যে, তার পুত্র নিজ হাতে শিক্ষককে পা ধুয়ে দেবে। তার সন্তান তা না করায় তিনি তার নৈতিকতা ও মূল্যবোধ শিক্ষা সম্পর্কে সন্ধিহান ছিলেন। আর তাই তো তিনি মনে বড় ব্যথা পেয়েছিলেন।

খ) উত্তর : বাদশাহ আলমগীর শিক্ষকের উপযুক্ত মর্যাদা প্রদান করে শিক্ষাগুরুর শির চির উন্নত করেছিলেন।

দিল্লির এক মৌলবি বাদশাহ আলমগীরের পুত্রকে শিক্ষা প্রদান করতেন। একদিন বাদশাহ দেখলেন তার পুত্র শিক্ষকের পায়ে পানি ঢালছে আর শিক্ষক নিজ হাতে পা ধৌত করছেন। তিনি প্রত্যাশা করেছিলেন যে, তার পুত্র নিজ হাতে শিক্ষকের পা ধুয়ে দেবে। সে নৈতিকতার শিক্ষা যেহেতু তার পুত্র পায়নি তাই সে শিক্ষককে নিরালায় ডাকলেন এবং শিক্ষককে যথাযথ মর্যাদা সম্পর্কে তার পুত্রের জ্ঞানলাভের অপূর্ণতা সম্পর্কে বললেন। শিক্ষক তার আদর্শ দ্বারা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে জাতীয় আকাঙ্ক্ষার উপযোগী করে গড়ে তোলেন। তাই শিক্ষকের স্থান সবার ওপরে। শিক্ষককে সে স্থানে অধিষ্ঠিত করে বাদশাহ শিক্ষাগুরুর শির চির উন্নত করেছিলেন।

[ বাকি অংশ পরে প্রকাশিত হবে ]


মন্তব্য