ঈদের টিভি আয়োজন

রসকষহীন সেলিব্রেটি শো আর ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান

বিষয়বৈচিত্র্যের অভাব

প্রকাশ : ১৩ জুন ২০১৯

দর্শকের ঈদ আনন্দে বিশেষ মাত্রা যোগ করতে টিভি চ্যানেলগুলো আয়োজন করে থাকে তিন থেকে ১০ দিনের বিশেষ অনুষ্ঠানমালার। যেখানে থাকে নাটক, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, তারকা আড্ডা, সিনেমা ইত্যাদি। এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, ঈদের এই বিশেষ আয়োজন কতটা বিনোদিত করতে পেরেছে দর্শকদের? এ প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজেছেন ইকবাল খন্দকার

সেলিব্রিটি যদি প্রথম সারির হন তাহলে একজন; আর যদি দ্বিতীয় সারির হন তাহলে দু'জন- সঙ্গে একজন উপস্থাপক। এই হলো আমাদের টিভি চ্যানেলগুলোর সেলিব্রিটি শোয়ের ধরন বা আদল। এভাবে চলছে বছরের পর বছর ধরে। যেহেতু ঈদ উপলক্ষে আমাদের পক্ষে 'কাপিল শর্মা শো'-এর মতো কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন সম্ভব নয়, বাজেটের একটা বিষয় থেকে যায়; অতএব অনুষ্ঠানের ধরন বা আদল নিয়ে খুব বেশি কিছু বলারও থাকে না। তবে উপস্থাপকের প্রশ্নের ধরন নিয়ে অবশ্যই বলা যায়, বলা উচিত। ঈদে যারা সেলিব্রিটি শো উপস্থাপনা করেন, তারা নিজেরাও সেলিব্রিটি। আর সেলিব্রিটি হুট করেই হয়ে যাওয়া যায় না। বছরের পর বছর কাজ করে তবেই একজন মানুষ সেলিব্রিটি তথা পরিচিত হয়ে ওঠেন।

তার মানে সেলিব্রিটি শোয়ের প্রত্যেকটা উপস্থাপকই অভিজ্ঞ। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, একজন অভিজ্ঞ উপস্থাপক কীভাবে গৎবাঁধা আর মুখস্থ প্রশ্ন করতে পারেন একজন সেলিব্রিটিকে? 'একালের ঈদ আর সেকালের ঈদের মধ্যে তফাত কোথায়'- এই বস্তাপচা প্রশ্নটা ঘুরে বেড়াতে দেখেছি সেলিব্রিটি শোয়ের প্রায় সব উপস্থাপকের মুখে। সেই সঙ্গে ঈদসংশ্নিষ্ট 'মজার ঘটনা' বলার অনুরোধ। আর এই অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে সেলিব্রিটিরা যেসব ঘটনা বলেছেন, সেগুলো দর্শকদের আরও বহুবার শোনা। কারণ এই সেলিব্রিটিরা একই ঘটনা একাধিক অনুষ্ঠানে বলে এসেছেন, বছরের পর বছর ধরে বলে চলেছেন। না, এখানে সেলিব্রিটিদের দোষ দেওয়ার তেমন সুযোগ থাকে না। উপস্থাপক যদি ঘুরিয়ে ফিরিয়ে একই প্রশ্ন করেন, তাহলে উত্তরও একই আসবে। হয়েছেও তাই। যে কারণে চ্যানেলে চ্যানেলে সেলিব্রিটি শো হলেও কোনো তারকাকে নতুন করে আবিস্কার করবেন- এমন কোনো শো চোখে পড়েনি। যদি আমাদের উপস্থাপকরা ঐতিহ্যবাহী আর মুখস্থ প্রশ্ন থেকে বের হয়ে না আসেন, যদি 'হোমওয়ার্ক' না করে তারকাদের মুখোমুখি হন, তাহলে এই অবস্থা চলমান থাকবে- এটা বলে দেওয়া যায় চোখ বন্ধ করেই। তখন দেখা যাবে সেলিব্রিটি শো দেখলেই দ্রুত চ্যানেল পাল্টাবেন দর্শকরা। আর আকাশে-বাতাসে ভেসে বেড়াবে সেই কথা- আজকাল মানুষ টিভি দেখে না। এবার আসি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে। আসলে ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান বলতে এ দেশের দর্শক 'ইত্যাদি'কেই বুঝত, 'ইত্যাদি'কেই বোঝে। বরাবরের মতো হানিফ সংকেতের গ্রন্থনা, উপস্থাপনা ও পরিচালনায় নির্মিত 'ইত্যাদি' দর্শকদের বিনোদিত করেছে। বিশেষ করে তারকা শিল্পী শহিদুজ্জামান সেলিম, জাকিয়া বারী মম, চঞ্চল চৌধুরী ও ঈশিতার অংশগ্রহণে 'ছড়া' পর্বটি ছিল বেশ উপভোগ্য।


মন্তব্য