বিশেষজ্ঞ কলাম

অভিজ্ঞতায় এগিয়ে থাকবে ভারত

প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০১৯

অভিজ্ঞতায় এগিয়ে থাকবে ভারত

  শচীন টেন্ডুলকার

ভারত পুরো টুর্নামেন্টেই ভালো খেলেছে। লীগ রাউন্ডে ইংল্যান্ডের কাছে হারলেও সেমিফাইনাল খেলছে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে। সেদিক থেকে দারুণ আত্মবিশ্বাস নিয়ে সেমিফাইনাল ম্যাচে নামতে পারছে বিরাট কোহলিরা। ফাইনালে যাওয়ার ম্যাচে ভারতের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। গত বিশ্বকাপের ফাইনালিস্ট তারা। এই টুর্নামেন্টেও ভালো খেলছে। ১১ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ দল হিসেবে সেমিফাইনাল খেলছে তারা। যদিও নিউজিল্যান্ড শেষ তিনটি ম্যাচে পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও  ইংল্যান্ডের কাছে হেরে গেছে। এদিক থেকে একটু হলেও মানসিকভাবে পিছিয়ে থাকবে তারা। ভারতের ক্ষেত্রে বিষয়টি উল্টো, ইংল্যান্ডের কাছে হারলেও বাংলাদেশ ও শ্রীলংকার বিপক্ষে দারুণ ক্রিকেট খেলে জিতেছে। জয়ের ছন্দে থেকে সেমিফাইনাল খেলতে পারছে। জয়ের মধ্যে থাকলে খেলোয়াড়রা চাঙ্গা থাকে। ইতিবাচক মানসিকতা থাকে। এই জিনিসগুলো একটু হলেও সুবিধাজনক স্থানে রেখেছে ভারতকে।

সবচেয়ে বড় দিক হলো, বড় মঞ্চে সেমিফাইনাল-ফাইনালের মতো চাপের ম্যাচ খেলার অনেক অভিজ্ঞতা ভারতের। আমার বিশ্বাস, বিরাটের নেতৃত্বে এই দলটা ভালো খেলা উপহার দেবে। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে কাল (আজ) নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনাল ম্যাচে ভারত একাদশে এক-দুই জায়গায় পরিবর্তন করলে ভালো করবে। আমার মনে হয়, মোহাম্মদ শামিকে একাদশে রাখার ঝুঁকি নেওয়া যেতে পারে। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ভালো করেছে শামি। ওল্ড ট্র্যাফোর্ড নিয়ে কথা বললে, শামির অভিজ্ঞতা কাজে লাগানো যেতে পারে। সে উইকেট নিতে পারে। তাই এ ম্যাচে শামিকে একাদশে ফেরানো প্রয়োজন মনে করছি। আমার বিশ্বাস, সুযোগ পেলে সে ঠিকই ব্রেক থ্রু দেবে ভারতকে।

লীগ রাউন্ডের শেষ ম্যাচটি ছিল শ্রীলংকার বিপক্ষে। ভারত ওই ম্যাচে দাপুটে জয় তুলে নিতে সক্ষম হয়েছে। ওপেনিং জুটিতে রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুল সুন্দর খেলেছে। দু'জনই সেঞ্চুরি পেয়েছে। রোহিত পুরো টুর্নামেন্টেই দাপট ধরে রেখেছে। চূড়ান্ত ফর্মে আছে সে। পাঁচটি সেঞ্চুরি ইনিংস পেয়েছি তার ব্যাট থেকে। রাহুলও এরই মধ্যে ওপেনিংয়ে মানিয়ে নিয়েছে। ব্যাটিংয়ের দিক থেকে কোনো সমস্যা দেখছি না। বোলিংও ভালো ছিল। যে কারণে একাদশ নির্বাচনে টিম ম্যানেজমেন্টকে অম্লমধুর সমস্যায় ফেলতে পারে। রবীন্দ্র জাদেজা শ্রীলংকার বিপক্ষে এই বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়। নিজের প্রথম ওভার থেকেই আক্রমণাত্মক বোলিং করে গেছে সে। সেক্ষেত্রে জাদেজাকে দলে নিলে একটা বিকল্প বোলার হাতে থাকে। আমার মনে হয়, দিনেশ কার্তিক সাত নম্বরে ব্যাট করবে। তাহলে জাদেজাকে নিয়ে ভাবতে পারে টিম ম্যানেজমেন্ট। কারণ তার মতো একজন বাঁহাতি স্পিনার হাতে থাকা অধিনায়কের জন্য সুবিধা। আমরা পাঁচজন বোলার নিয়ে খেলি। বড় ম্যাচে টায় টায় বোলার নিয়ে খেলার ঝুঁকি থাকে। বিকল্প হাতে থাকলে বোলিং পরিবর্তন করা সহজ হয়। আশা করব, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সবদিক থেকে আটঘাট বেঁধেই নামবে ভারত। নকআউট স্টেজের খেলায় যে কোনো কিছু হতে পারে। ভালো খেলা দলই জিতবে। নিউজিল্যান্ড যোগ্য দল হিসেবেই সেমিফাইনাল খেলছে। প্রতিপক্ষকে সমীহ দেখিয়ে নিজেদের সেরাটা খেলতে পারলেই ম্যাচ জেতা যাবে।

লেখক :ভারতের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান




মন্তব্য