২৫ ঘণ্টা পর ধরা পড়ল সেই মহিষ

প্রকাশ : ১৫ আগষ্ট ২০১৯

২৫ ঘণ্টা পর ধরা পড়ল সেই মহিষ

বুধবার বিল থেকে মহিষটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে স্থানীয় লোকজন সমকাল

   ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতা

মহিষটিকে কোরবানির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন লোকজন। হঠাৎ এটি ক্ষিপ্ত হয়ে লাফ দেয়। তার গুঁতায় আহত হন উপস্থিত ১১ জন। পরে মহিষটি চলে যায় পার্শ্ববর্তী উপজেলা ভূঞাপুরের কাগমারা বিলে। ওই দিনই মহিষটিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে এক রাউন্ড গুলি ছোড়ে পুলিশ। তবে সে গুলি মহিষের গায়ে লাগেনি। ঈদের দিন সকাল ১১টার দিকে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার যুগীহাটি গ্রামে আরিফুল সরকারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ২৫ ঘণ্টা পর ঈদের পরদিন ঢাকা থেকে প্রাণিসম্পদের একটি টিম চেতনানাশক ইনজেকশন দিয়ে নিবৃত্ত করে মহিষটিকে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য লাল মিয়া জানান, ঈদ উপলক্ষে যুগীহাটি গ্রামের আরিফুল ইসলামের একটি মহিষ কয়েকজন মিলে কোরবানি দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় মহিষটি মাটি থেকে হঠাৎ লাফিয়ে ওঠে। পরে সেখানে থাকা একই পরিবারের পাঁচজনকে গুঁতিয়ে আহত করে। তাকে ধরতে গিয়ে আহত হন আরও কয়েকজন। এরপর ভূঞাপুর উপজেলার কাগমারি পাড়ায় চলে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। ক্ষিপ্ত মহিষকে নিবৃত্ত করতে গুলি ছোড়ে পুলিশ। তবে সেটি তার গায়ে লাগেনি।

ভূঞাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শামছুল ইসলাম বলেন, মহিষটিকে উদ্ধারের জন্য ঢাকা থেকে প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি টিম ঘটনাস্থলে আসে। তারা নৌকায় নিকলা বিলে অবস্থানরত মহিষটিকে চেতনানাশক ইনজেকশন পুশ করে। এরপর ধীরে ধীরে মহিষটি নিস্তেজ হয়ে পড়ে। পরে ভূঞাপুর উপজেলা প্রশাসন, ভূঞাপুর থানা পুলিশ ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে সেটিকে উদ্ধার করে মালিকের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মহিষটিক এক নজর দেখার জন্য উৎসুক জনতা ঘটনাস্থলে ভিড় করে।


মন্তব্য