জামালপুর প্রতিনিধি

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দারের গ্রামের বাড়িতে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বুধবার সকালে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার নিলক্ষিয়া ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম খোকাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

হামলার ঘটনায় বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দারের খালাতো ভাই হাবিবুর রহমান ওয়াকার বাদী হয়ে দ্রুত বিচার আইনে মামলা করেছেন। মামলায় আসামি করা হয়েছে সাইফুল ইসলাম খোকা, তার ছোট ভাই সালেহ আহমেদ ময়না ও আশিকসহ অজ্ঞাতপরিচয় পাঁচ-ছয়জনকে।

বকশীগঞ্জ থানার ওসি এ কে এম মাহবুব আলম জানান, নীলাক্ষিয়া কেন্দ্রীয় মসজিদের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দারের খালাতো ভাই ও নীলক্ষিয়া কেন্দ্রীয় মসজিদের সভাপতি হাবিবুর রহমান ওয়াকারের সঙ্গে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম খোকার পরিবারের লোকজনের কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে সকালে বিচারপতির গ্রামের বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সাইফুল ইসলাম খোকার লোকজন বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দারের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে টিনের বেড়া ভাংচুর করে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকেই আওয়মী লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম খোকাকে আটক করা হয়। পরে দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

এদিকে বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দারের বাড়িতে হামলার প্রতিবাদে নিলক্ষিয়া বাজারের ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে বিক্ষোভ করেছেন।


মন্তব্য