সুবর্ণচরে গণধর্ষণ

আরেক আসামি কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯

আরেক আসামি কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার

গ্রেফতার জামাল

   নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে গৃহবধূকে গণধর্ষণে জড়িত থাকার অভিযোগে আরও একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে নোয়াখালী ডিবি পুলিশ জামাল ওরফে হেঞ্জু  মাঝিকে (২৫) গ্রেফতার করে।

সে সুবর্ণচর উপজেলার চরজুবিলী ইউনিয়নের মধ্যবাগ্যা গ্রামের বাসিন্দা।

চাঞ্চল্যকর এ মামলায় এ নিয়ে মোট ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে এজাহারভুক্ত ছয়জন এবং এজাহারবহির্ভূত পাঁচ আসামি রয়েছে। হেঞ্জু মাঝি মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। তাকে জেলা গোয়েন্দা কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওসি আবুল খায়ের সমকালকে বলেন, সুবর্ণচরে গণধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ১০ আসামির মধ্যে ছয়জন স্বেচ্ছায় আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। তাদের প্রত্যেকেই ঘটনার সঙ্গে হেঞ্জু মাঝির জড়িত থাকার কথা বলেছে। ঘটনার পর থেকে হেঞ্জু মাঝি নোয়াখালী ছেড়ে কুমিল্লার দাউদকান্দিতে আত্মগোপন করে। মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে হেঞ্জু মাঝিকে গ্রেফতার করে শুক্রবার সকালে নোয়াখালী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আনা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পরিদর্শক জাকির হোসেন জানান, পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে হেঞ্জু মাঝি ওই নারীকে ধর্ষণ ও মারধরের কথা স্বীকার করেছে।

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ধানের শীষে ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে সুবর্ণচরের ওই নারীকে ধর্ষণ করে ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় কয়েকজন নেতাকর্মী। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে চরজব্বার থানায় নয়জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। নোয়াখালী পুলিশ সুপার ইলিয়াছ শরীফ বলেন, এই মামলায় বাকি আসামিদের ধরতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে রয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।






মন্তব্য যোগ করুণ