চিঠিপত্র

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৯

সরকারি শিক্ষক প্রশিক্ষণ কলেজ চাই

কুষ্টিয়া জেলার শিক্ষার হার ৪২ দশমিক ৪০ শতাংশ। এখানে রয়েছে শতাধিক নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়। কিন্তু এসব বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের জন্য কোনো সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ নেই। দুই-একটি বেসরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থাকলেও তা পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ সামগ্রী ও অবকাঠামোর অভাব দেখিয়ে এগুলোকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বর্তমানে বন্ধ ঘোষণা করেছে। ফলে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার শিক্ষকদের কষ্ট করে ও বহু অর্থ ব্যয় করে যশোর, পাবনা অথবা রাজশাহী সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থেকে বিএড ও এমএড প্রশিক্ষণ নিতে হচ্ছে। শুধু তাই নয়, যে কোনো প্রশিক্ষণ নিতে কুষ্টিয়ার বাইরে যেতে হয়। এ কারণে সময়মতো অনেকে প্রশিক্ষণ নিতে ব্যর্থ হচ্ছেন। জেলার কুমারখালীতে অবস্থিত আলাউদ্দিন আহমেদ টিচার্স ট্রেনিং কলেজটি পুনরায় এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের জন্য চালু করা হলে কষ্ট কিছুটা লাঘব হতো। সুতরাং বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার শিক্ষকদের কষ্ট লাঘবে অবিলম্বে একটি সরকারি শিক্ষক প্রশিক্ষণ মহাবিদ্যালয় স্থাপনসহ কুমারখালীতে অবস্থিত আলাউদ্দিন আহমেদ টিচার্স ট্রেনিং কলেজটি পুনরায় চালু করতে শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

মো. মোশতাক মেহেদী

সহকারী শিক্ষক

ডি/৩৯৩, হাউজিং এস্টেট, কুষ্টিয়া



এমপিও আবেদন বাতিল কেন

চলতি বছরের জানুয়ারিতে সারাদেশে প্রায় ৩৯ হাজার শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ করে এনটিআরসিএ। প্রতিষ্ঠানের চাহিদার ভিত্তিতে এসব নিয়োগ দেওয়া হয়। বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শূন্য পদের চাহিদা ডিও ও ডিডি বা ডিজিদের কাছ থেকে নেওয়া হলে একটি ফাইলও রিজেক্ট হতো না। আমরা এই এমপিও ফাইল রিজেক্ট হওয়ার যন্ত্রণা থেকে রক্ষা পেতাম। এনটিআরসিএ নিয়োগের সুপারিশ করে মূল কাগজপত্র ভাইভার মাধ্যমে পুঙ্খানুপুঙ্খ চেক করে। আর এমপিও দেয় মাউশি একগাদা কাগজের জটলা করে। এদিকে মেধাবী শিক্ষকরা মাসের পর মাস বিনা বেতনে স্কুলে শ্রম দেন। এদিকে যেসব নবনিযুক্ত শিক্ষকের এমপিও ফাইল রিজেক্ট হচ্ছে তার জন্য দায়ী কারা?

রাহাত কবির, সহকারী শিক্ষক, ঢাকা



বেপরোয়া মোটরসাইকেল

গাজীপুরের শ্রীপুর খুব ব্যস্ত হয়ে উঠছে শিল্পায়নের কারণে। সড়কে বেড়েছে সব ধরনের যান। বেশিরভাগ আঞ্চলিক সড়কে ফুটপাত না থাকায় গাড়িগুলো মানুষের গা ঘেঁষে চলে। ঈদের দিন ফাঁকা রাস্তায় শ্রীপুরের মাওনা-কালিয়াকৈর সড়কে হাঁটছিলাম। রাস্তা পার হতেই চোখের পলকে দ্রুতগতিতে একটি মোটরসাইকেল আমাদের ক্রস করে গেল। এঁকেবেঁকে আসার কারণে অনেক সময় তা দেখা যায় না। ফলে কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে আমাদের জীবনে ঘটে যেতে পারত দুর্ঘটনা। ঈদের মধ্যেই একটি ছাগলকে বাঁচাতে গিয়ে একসঙ্গে পাঁচটি মোটরসাইকেল দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। নিহত একজন, আহত ১০ জন! অতএব যারা বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালায়, তাদের আইনের আওতায় আনা জরুরি।

সাঈদ চৌধুরী, শ্রীপুর,গাজীপুর





চিকিৎসা খাতের সুচিকিৎসা প্রয়োজন

মানুষের মৌলিক অধিকারের মধ্যে চিকিৎসা গুরুত্বপূর্ণ। চিকিৎসা ব্যবস্থার ওপর মানুষের জীবন-মৃত্যু নির্ভর করে। বর্তমান সরকার চিকিৎসা ক্ষেত্রে যথেষ্ট গুরুত্ব প্রদান করছে, যার উদাহরণ হতে পারে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রকল্প। কিন্তু বর্তমানে সরকারের এমন নজরদারির পরও এ ক্ষেত্রে দুর্নীতি, চিকিৎসকদের দায়িত্ববোধের অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। সম্প্রতি চিকিৎসক কর্তৃক রোগীকে লাঞ্ছিত হতেও দেখা যায়। উপজেলায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থাকলেও নেই মানসম্মত সেবা। জেলা শহরের হাসপাতালেও নেই পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা। পর্যাপ্ত বেডের অভাবে রোগীদের মেঝে এমনকি বারান্দায়ও থাকতে হয়। পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন পরিবেশেরও অভাব রয়েছে। ওষুধের অভাবও পরিলক্ষিত হয়। সম্প্র্রতি লালমনিরহাটসহ কয়েকটি জেলা-উপজেলার হাসপাতাল থেকে কোটি টাকার ওষুধ গায়েব হয়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। গরিবদের প্রতি সহানুভূতি যেন চিকিৎসার বেলায় খাটে না। অর্থের অভাবে অনেক সময় সুচিকিৎসা পাওয়া হয়ে ওঠে না। এহেন অবস্থায় দেশের চিকিৎসা খাতে বিশেষভাবে নজর দেওয়া প্রয়োজন।

আল-মাহমুদ

সাতক্ষীরা সরকারি কলেজ, সাতক্ষীরা


মন্তব্য