গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি

'সব মতভেদ ও দলীয় সংকীর্ণতা ভুলে দেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে আগামী সংসদ নির্বাচনে নৌকাকে বিজয়ী করতে হবে। না হলে দেশ লক্ষ্যভ্রষ্ট হবে। দেশ পিছিয়ে যাবে। তাই নেত্রী যাকে নৌকা প্রতীক দেবেন, তাকেই জয়ী করতে হবে।' গতকাল বৃহস্পতিবার গোয়ালন্দ পৌরসভায় মতবিনিময়কালে শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, রাজবাড়ী-১ (গোয়ালন্দ) আসনে এই সরকারের আমলে ফায়ার সার্ভিস, ওয়াজেদ চৌধুরী টেকনিক্যাল কলেজসহ উপজেলার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন নতুন ভবন নির্মাণ ও রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আগামীতে  সরকার গঠন করতে পারলে গোয়ালন্দে আধুনিক অডিটোরিয়াম, শিশু পার্ক নির্মাণসহ দ্বিতীয় পদ্মা সেতুর কাজও শুরু করা হবে। তিনি বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে গোয়ালন্দে ধানের শীষের চেয়ে ২৫ হাজার ভোট বেশি পেয়েছিল নৌকা প্রতীক। আর ২০১৮ সালের নির্বাচনে এখানে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে অন্তত ৩০ হাজার ভোট বেশি পেতে হবে। দলের মধ্যে ভেদাভেদ ভুলে নৌকার পক্ষে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এ সময় তিনি বলেন, আমি এই আসন থেকে চারবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। মানুষ কাজ করতে গেলে ভুল-ত্রুটি হয়। আমি চেষ্টা করেছি জনগণের সেবা করার। তার পরও যদি কোনো ভুল-ত্রুটি হয় আপনারা ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পর্কে এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যে নির্বাচন পরিচালনার জন্য রাজবাড়ী-১ আসনের প্রায় সব ভোটকেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করা হয়েছে। নেতাকর্মীরাও নৌকার পক্ষে কাজ করার জন্য উজ্জীবিত হয়ে আছে। অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে বর্তমানে এ এলাকায় আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী বলে জানান তিনি। গণসংযোগ ও মতবিনিময় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ফকীর আব্দুল জব্বার, গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র শেখ মো. নিজাম, প্রতিমন্ত্রীর সহধর্মিণী রেবেকা সুলতানা, প্যানেল মেয়র কমল কুমার সাহা, গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন রনি প্রমুখ। মতবিনিময় শেষে প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী উজানচর ইউনিয়নে গণসংযোগ করেন। এরপর সন্ধ্যায় গোয়ালন্দ পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কেন্দ্র কমিটি গঠন ও কর্মিসভায় যোগ দেন।


মন্তব্য যোগ করুণ