টেলিভিশন

কাজ না পেয়ে রাস্তায় টালিউড টেকনিশিয়ানরা

প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০১৯ | আপডেট : ০৯ জুলাই ২০১৯

কাজ না পেয়ে রাস্তায় টালিউড টেকনিশিয়ানরা

  বিনোদন ডেস্ক

‘টালিগঞ্জে এই মুহূর্তে যা পরিস্থিতি, তাতে ভাল টেকনিশিয়ান বা শিল্পীরা কাজ পাচ্ছেন না। যারা কাজ পাচ্ছেন, তাদের অনেকেরই টাকা বাকি। গিল্ড বা ফেডারেশনের কার্ড দেওয়ার জন্য প্রভূত পরিমাণে কাটমানিও নেওয়া হচ্ছে। বিশ্বাস ব্রাদার্সের যে আধিপত্য ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে নষ্ট করে দিচ্ছে, তার বিরুদ্ধেই আমাদের লড়াই।’

বকেয়া পরিশ্রমিক ও নিয়মিত কাজ পেতে আন্দোলনে নেমেছে ইস্টার্ন ইন্ডিয়া মোশন পিকচার্স অ্যান্ড কালচারাল কনফেডারেশন (ইআইএমপিসিস) নামের একটি সংগঠন। সোমবার প্রথম টালিগঞ্জে শক্তি প্রদর্শন করল সংগঠনটি।  সেখানেই ইআইএমপিসিসি-র ভাইস চেয়ারপার্সন সঙ্ঘমিত্রা চৌধুরী ভারতীয় গণমাধ্যমকে কথাগুলো বলেন। 

মিছিলে সংগঠনের সভাপতি অগ্নিমিত্রা পাল ও ভাইস চেয়ারপার্সন সঙ্ঘমিত্রা চৌধুরী

সেই সঙ্গে  বিক্ষোভ মিছিলে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়, প্রয়োজনে বড় আন্দোলনে যাবে তারা। 

 টালিগঞ্জে মহানায়ক উত্তম কুমারের মূর্তির পাদদেশ থেকে মিছিল শুরু হয়ে শেষ হয়  দাসানি স্টুডিওতে গিয়ে। এ সময় কয়েকশো শিল্পী-কলাকুশলীদের এই মিছিলে অংশ নেন। মিছিলে বাবার শোনা যায়, টালিগঞ্জে দাদাগিরি ও দিদিগিরি বন্ধ হোক!

এই দাদাদের দাদাগিরি বলতে তারা ক্রীড়া ও যুবকল্যাণ মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও তার ভাই তথা ফেডারেশনের সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস-এর কথা বলতে চেয়েছেন বলে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জানান সঙ্ঘমিত্রা চৌধুরী। ফেডারেশনের কাজকর্ম নিয়ে শিল্পী-কলাকুশলীদের একটি বড় অংশের ক্ষোভ ইতিমধ্যেই সামনে এসেছে বলে মন্তব্য তার। 

ইআইএমপিসিসি-র পক্ষ থেকে কার্যত হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে তৃণমূলের নিয়ন্ত্রণাধীন সংগঠন ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ান্স অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া-কে। এদিনের মিছিলের আয়োজকরা টেকনিশিয়ান্স স্টুডিও, এনটিওয়ান স্টুডিও এবং দাসানি স্টুডিও-র সামনে ছোট ছোট পথসভাও করেন। 

এখানে জানানো হয়, টালিগঞ্জে পেমেন্টের সমস্যা না মিটলে, যোগ্য ব্যক্তিরা কাজ না পেলে পথে নামবে সংগঠন। প্রয়োজনে আরও বড় আন্দোলন হবে, এমনটাই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জানিয়েছেন ইআইএমপিসিসি নেতৃত্ব। ফেডারেশন বিশ্বাসঘাতক, টালিগঞ্জের শিল্পী-কলাকুশলীদের ক্রমাগত ঠকিয়ে চলেছে, এমন অভিযোগও উঠে এসেছে এদিনের মিছিল থেকে।

সোমবারের পদযাত্রায় যারা সামিল হলেন তাদের মধ্যে ‘প্রথম সারি’-র শিল্পীদের সংখ্যা খুবই কম। অনেকেই শুটিংয়ের কারণে আসতে পারেননি বলে জানানো হয়েছে। তবে বেশ কয়েকজন তরুণ পরিচালক ও প্রযোজক এদিন এই মিছিলে উপস্থিত ছিলেন। টলিপাড়ার বর্ষীয়ানদের মধ্যে ছিলেন অভিনেত্রী দেবিকা মুখোপাধ্যায় ও পরিচালক-প্রযোজক প্রবীর রায়। উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতা ও অভিনেতা জর্জ বেকারও।

মন্তব্য


অন্যান্য