প্রযুক্তি

উইকিপিডিয়ায় নারী বিষয়ক তথ্য সমৃদ্ধ করে সুইডিশ দূতাবাসের সনদ

প্রকাশ : ২৪ জুন ২০১৯ | আপডেট : ২৪ জুন ২০১৯

উইকিপিডিয়ায় নারী বিষয়ক তথ্য সমৃদ্ধ করে সুইডিশ দূতাবাসের সনদ

অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ও সনদপ্রাপ্তদের সঙ্গে সুইডেনের রাষ্ট্রদূত সার্লোট্টা স্লাইটার- সংগৃহীত ছবি

  অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় উন্মুক্ত বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়ায় নারীদের অংশগ্রহণ ও নারী বিষয়ক তথ্য বৃদ্ধিতে আয়োজিত ‘উইকিগ্যাপ’ শীর্ষক ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত ৩-১৭ মে। বাংলা উইকিপিডিয়ায় নারী বিষয়ক তথ্য সমৃদ্ধ করাতে ১৫ দিনব্যাপী এই নিবন্ধ লেখার প্রতিযোগিতায় সেরা ১০ জনকে পুরস্কৃত করেছে বাংলাদেশের সুইডিশ দূতাবাস।

বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডিশ রাষ্ট্রদূত সার্লোট্টা স্লাইটার রোববার তার বাসভবনে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ, অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থা ও সাংবাদিক প্রতিনিধিদের নিয়ে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে সেরা ১০ জন উইকিপিডিয়া অবদানকারীকে সনদ প্রদান করেন।

সনদ গ্রহণকারী সেরা ১০ উইকিপিডিয়ায় অবদানকারী হলেন-এস এম নাজমুস সাকিব, শহিদুল হাসান রোমান, শাহাদাত হোসেন, মো. ইকবাল হোসেন, তাসমিন আক্তার তৃপ্তি, মো. মুস্তাফিজুর রহমান, এস এম সাজ্জাদুল হক তানিম, মো. দেলোয়ার হোসেন, তামিম মাহমুদ এবং মাহবুবুল হক ওয়াকিম। 

সনদপ্রাপ্তদের মধ্যে তাসমিন আক্তার তৃপ্তি ও এস এম নাজমুস সাকিব তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন অনুষ্ঠানে।

সুইডিশ রাষ্ট্রদূত সার্লোট্টা স্লাইটার বলেন, ‘২০১৮ সালে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের সুইডিশ চ্যাপ্টার উইকিমিডিয়া সুইডেন ও সুইডেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যৌথভাবে উইকিপিডিয়াতে নারী বিষয় নিবন্ধ বৃদ্ধি ও উইকিপিডিয়ায় নারীদের অবদানকে উৎসাহ দিতে ‘উইকিগ্যাপ’ নামের এই ক্যাম্পেইন শুরু করে। জেন্ডার-ইকুয়্যাল ইন্টারনেট তৈরির লক্ষ্যে আয়োজিত এই ক্যাম্পেইন পরবর্তীতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের সুইডিশ মিশন ও উইকিপিডিয়া নিয়ে কাজ করা স্থানীয় উইকিমিডিয়া চ্যাপ্টারের সাথে মিলে স্থানীয় ভাষায় বিস্তার লাভ করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে সুইডেন নারীবান্ধব পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণ করেছে। ইন্টারনেটে তথা উইকিপিডিয়া কনটেন্ট গ্যাপ কমাতে তারা ভবিষ্যতে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশসহ অন্যান্য সমমনা স্থানীয় সংস্থার সাথে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।’

সুইডেনের রাষ্ট্রদূত সার্লোট্টা স্লাইটারের কাছ সনদ গ্রহণ করেন নারী উইকিপিডিয়ান তাসমিন আক্তার তৃপ্তি

অনুষ্ঠানে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক নাহিদ সুলতান, কোষাধ্যক্ষ তানভির মোর্শেদ, সম্প্রদায় পরিচালক আফিফা আফরিন ও বাংলা উইকিপিডিয়ার প্রশাসক ইব্রাহিম হোসেন মেরাজ।

উইকিগ্যাপ নিয়ে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের সভাপতি শাবাব মুস্তাফা বলেন, ‘আমরা ২০১৮ সাল থেকে ঢাকার সুইডিশ দূতাবাসের সঙ্গে যৌথভাবে বাংলা উইকিপিডিয়াতে উইকিগ্যাপ ক্যাম্পেইনটি পরিচালনা করছি। এর অধীনে ২০১৮ ও ২০১৯ সালে বাংলা উইকিপিডিয়াতে ৭০০টির বেশি নারী বিষয়ক নতুন নিবন্ধ তৈরি হয়েছে।’

অনুষ্ঠানে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বাংলাদেশে উইকিপিডিয়ার কার্যক্রম তুলে ধরা হয়।

‘উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ’ ও ঢাকার সুইডিশ দূতাবাস যৌথভাবে গত বছর ‘উইকিগ্যাপ’ ক্যাম্পেইনটি প্রথম শুরু করে। এর অংশ হিসেবে ২০১৮ সালে প্রথমে সুইডিশ দূতাবাসে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিদের নিয়ে উইকিপিডিয়া বিষয়ক একটি কর্মশালার আয়োজন করে। দ্বিতীয়ধাপে বাংলা উইকিপিডিয়াতে নিবন্ধ লেখার একটি প্রতিযোগিতা আয়োজন করে যেখানে ৩৪ জন অংশ নিয়ে বাংলাতে প্রায় ১০০টি নতুন নারী বিষয়ক নিবন্ধ তৈরি করে।  

২০১৯ সালে উইকিগ্যাপ ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে ৩-১৭ মে বাংলা উইকিপিডিয়াতে একটি নিবন্ধ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় ৬২ জন অংশগ্রহণকারী মিলে বাংলা ৬৪০টি নতুন নারী বিষয়ক নিবন্ধ তৈরি করে।   

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে বাংলাদেশসহ ৬০টি দেশের সুইডিশ মিশন ও স্থানীয় উইকিমিডিয়া চ্যাপ্টার এই ক্যাম্পেইন আয়োজন করে যার মাধ্যমে ১৮০০ অংশগ্রহণকারী উইকিপিডিয়াতে অবদান রেখে ১৩ হাজার নারী বিষয়ক উইকিপিডিয়া আর্টিকেল তৈরি করে। ২০১৯ সালে ৫০টি দেশে এই ক্যাম্পেইন আয়োজন করা হয়। ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ৬০টি দেশের দুই হাজার ৪৫০ জন অংশগ্রহণকারী বাংলাসহ ৩০টি উইকিপিডিয়া ভাষা সংস্করণে অবদান রেখে ২৭ হাজার নারী বিষয়ক উইকিপিডিয়া আর্টিকেল তৈরি করে।

মন্তব্য


অন্যান্য