টালিউড

সাদামাটা ভাবেই মৃণাল সেনের বিদায়

প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৯ | আপডেট : ০২ জানুয়ারি ২০১৯

সাদামাটা ভাবেই মৃণাল সেনের বিদায়

মৃণাল সেনের মরদেহ নিয়ে শেষ যাত্রা

  অনলাইন ডেস্ক

অনাড়ম্বর ভাবেই শেষ হলো চিত্রপরিচালক মৃণাল সেণের শেষকৃত্য। সদ্য প্রয়াত এ পরিচালকের  ইচ্ছাতেই অনাড়ম্বর ভাবে করা হয়েছে শেষকৃত্য। বরেণ্য এ পরিচালকের শেষ যাত্রায়  টালিউডের বিশিষ্টজনেরা ও গুণগ্রাহী বহু মানুষ উপস্থিত ছিলেন। 

তার আগে পিস ওয়ার্ল্ডে রাখা হয়েছিলে এ গুণীর মরদেহ।পরে পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গতকাল বিকালে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় দেশপ্রিয় পার্কের নিকটে। যে বাড়িতে দীর্ঘ একটা সময় কাটিয়েছেন তিনি। সেখান থেকে কেওড়াতলা মহাশ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয়। 

মৃনাল সেনের শেষযাত্রায় ছিলেন প্রসেনজিত এবং অর্পনা সেন

পরিবারের সদস্যদের কাছে মৃণাল সেন আগেই বলে গিয়েছিলেন তার শেষকৃত্যে যেন অনাড়ম্বর হয়, কোনো ফুলের মালা না থাকে। সরকারি আতিশয্যও যেন না থাকে। এমনকি রবীন্দ্র সদন কিংবা নন্দনেও শ্রদ্ধা নিবেদনের না নেয়া হয়। তার কথামত কাজ করেছেন পরিবার। সাদামাটা ভাবেই শেষ হয় শেষকৃত্য। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রঞ্জিত মল্লিক, অঞ্জন দত্ত, রঞ্জিত মল্লিক, শ্রীলা মজুমদার, নন্দিতা দাশ, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, মাধবী মুখোপাধ্যায়, অপর্ণা সেনসহ  বিমান বসু, সুজন চক্রবর্তী ছাড়াও অনেক রাজনৈতিক নেতারা। 

মৃণাল সেনকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে আসেন রঞ্জিত মল্লিক, পরান ঠাকুরসহ অনেকেই

গত ৩০ ডিসেম্বর মৃত্যুবরণ করেন মৃনাল সেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।  বার্ধক্যজনিত কারণেই  মৃত্যুবরণ করেন তিনি।  

মৃণাল সেনের প্রথম ছবি ‘রাতভোর’। এ ছবির খুব একটা আলোচিত হয়নি। পরে ১৯৫৯ সালে ‘নীল আকাশের নীচে’ ছবিটি পরিচিত করে তাকে। এরপরই কলকাতা-৭১, পদাতিক, এক দিন প্রতিদিন, খারিজ, চালচিত্র ও ভুবন সোমের মতো বেশকিছু কালজয়ী সিনেমা নির্মাণ করে চলচ্চিত্রের ইতিহাসে কিংভদন্তী পরিচালক হয়ে উঠেন।  তার জন্ম বাংলাদেশের ফরিদপুরে।



সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

সিনেমা বাদ, ভোটের মাঠে মিমি


আরও খবর

টালিউড

মিমি চক্রবর্তী

  অনলাইন ডেস্ক

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে যাদবপুর তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। কিন্তু তাই বলে তার চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার বন্ধ নেই। গত শনিবার মুক্তি পেয়েছে তার নতুন গান 'কেন যে তোকে'। এটি প্লেব্যাক করেছেন মিমি নিজেই। গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন ডাব্বু বর্মণ। আর অরিজিনাল ভার্সন গেয়েছেন রাজ বর্মণ।

গানটি ইউটিউবে মুক্তির পরপর বেশ ভাইরাল হয়। গানটি দেখতে দেখতে অনেকেই 'মানা কে হাম ইয়ার নেহি' গানের পরিণীতি চোপড়ার সঙ্গে মিলও খুঁজে পাবেন। মিমির গাওয়া গানটি ব্যবহার করা হয়েছে তার 'মন জানে না' ছবিতে। এতে মিমির বিপরীতে অভিনয় করেছেন যশ দাশগুপ্ত। ছবিতে তারা অভিনয় করেছেন স্বামী-স্ত্রীর ভূমিকায়।

 ছবিতে তাদের নাম পরী ও আমির। আমির একজন ট্যাপি ড্রাইভার। সাদাসিধেভাবে ভালোই চলছিল তাদের জীবন। কিন্তু এই সুখ বেশিদিন স্থায়ী হয় না। পরী নেশা করতে শুরু করে। আর আমির হয়ে যায় গ্যাংস্টার। হঠাৎই বদলে যায় তাদের জীবন।অন্য সময় ছবি মুক্তির আগে বা পরে প্রচার নিয়ে ব্যস্ত থাকেন তিনি। কিন্তু এখন ছবির প্রচারের চেয়ে নির্বাচনের প্রচারেই বেশি ব্যস্ত মিমি। 

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, চলচ্চিত্রের ওপর তার অনেক শ্রদ্ধা রয়েছে। নির্বাচনের কারণে তিনি ছবির প্রতি খুব একটা সময় দিতে পারছেন না।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

সেরা প্রযোজক দেব


আরও খবর

টালিউড
সেরা প্রযোজক দেব

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

পুরস্কার হাতে দেব

  অনলাইন ডেস্ক

কলকাতার প্রভাবশালী অভিনেতাদের মধ্যে অন্যতম দেব। টালিউডে অসংখ্য সুপারহিট ছবি উপহার দিয়েছেন তিনি। অভিনয়ে দর্শকপ্রিয়তার পর বছর দেড়েক আগে প্রযোজনাতেও পা রাখেন দেব। অভিনয়ের পর  প্রযোজনাতে এসেও সফল দেব। 

এনডিটিভি জানায়, এবার প্রযোজনার জন্য সেরার শিরোপা হাতে পেয়েছেন টালিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা দেব। বৃহস্পতিবার মুম্বাইতে দেবের ঝুলিতে উঠল আইআইএফটিসি সেরা প্রযোজকের পুরস্কার। 

এসময় কাজের স্বীকৃতি পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন দেব। পুরস্কার পাওয়ার সেই মুহূর্ত তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন দেব নিজেই। 

দেবের অভিনীত পরবর্তী ছবির তালিকায় রয়েছে  সাঁঝবাতি, পাসওয়ার্ড, কিডন্যাপ।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

শাকিব খান কলকাতার সেরা নায়কের তালিকায়


আরও খবর

টালিউড

শাকিব খান

  অনিন্দ্য মামুন

কলকাতায় সেরা নায়কদের তালিকা প্রকাশ করেছে কলকাতা টাইমস। সারা বছর  যে তারকারা আলোচনার তুঙ্গে থাকেন তাদের সেই আলোচিত তারকাদের থেকে বাছাই করে প্রকাশ করা হয়েছে এ সেরাদের তালিকা। 

হ্যাশট্যাগে ‘কলকাতা টাইমস মোস্ট ডিজায়ারেবল ম্যান’ এ সেরা ২০জন তারকার তালিকায় প্রথমবারের মতো উঠে এসেছে কোন বাংলাদেশি তারকার নাম।  তিনি শাকিব খান! ঢাকাই ছবির এ শীর্ষ নায়কই কলকাতার সেরা ২০ তারকার মধ্যে স্থান করে নিয়েছেন। 

২০১৮  সাল পুরোটা সময়ই দুই বাংলা সমান আলোচিত ছিলেন শাকিব। সে বছর এ নায়কের তিনটি ছবি মুক্তি পায় কলকাতায়।  এ তিন ছবির  সূত্র ধরেই আলোচিত তিনি।  মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি তিনটি হচ্ছে  ‘চালবাজ’ ‘ভাইজান এলো রে’ ও নাকাব। ছবিগুলোর সাফল্য ও দর্শক মাতামাতির রেশ ধরেই ‘কলকাতা টাইমস’ সেরা ২০ তারকার মধ্যে ১৮-তে স্থান দিয়েছে শাকিব খানকে। 

মঙ্গলবার  এ তালিকা প্রকাশ করে কলকাতা টাইমস। কলকাতা টাইম বলছে, শাকিব খান তার স্টারডম দিয়ে হঠাৎ পশ্চিমবঙ্গের নারীদের মনে ঝড় তুলেছিলেন। তিনি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সিনেতারকা। আমরা তার পরের কাজের জন্য অপেক্ষা করছি। সংক্ষিপ্ত পরিচিতিতে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, বাংলাদেশে তুমুল জনপ্রিয় ও অপ্রতিদ্বন্দ্বী সুপারস্টার শাকিব খান। 

তালিকায় সেরা হয়েছেন যীশু সেনগুপ্ত, আবীর (২) জিৎ (৩), দেব (৪), যশ পাল (৫), অঙ্কুশ (৬), অর্নিবান (৮), পরমব্রত (৯), অনুপম রায় (১০, সংগীত), বনি (১১), ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত (১৩), শাকিব খান (১৮, বাংলাদেশ)। 

২০১৩ সাল থেকে কলকাতার তারকাদের ‘কলকাতা টাইমস মোস্ট ডিজায়ারেবল ম্যান’ সেরাদের তালিকা প্রকাশ করছে। প্রথমবার এ তালিকায় সেরা হয়েছিলেন দেব। এ বছর হলেন যীশু সেনগুপ্ত।