সিলেট

হবিগঞ্জে ছেলের মোটরসাইকেল থেকে পড়ে মায়ের মৃত্যু

প্রকাশ : ০৯ জানুয়ারি ২০১৯

হবিগঞ্জে ছেলের মোটরসাইকেল থেকে পড়ে মায়ের মৃত্যু

  হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

হবিগঞ্জে ছেলের মোটরসাইকেল থেকে পড়ে মেহেরুন্নেছা (৪৭) নামে এক মায়ের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার বেলা ১২টার দিকে হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের কলিমনগর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত মেহেরুন্নেছা হবিগঞ্জ শহরের রাজনগর এলাকার শামছুজ্জামানের স্ত্রী।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জিয়াউর রহমান জানান, দুইদিন আগে মেহেরুন্নেছা তার রাজনগর থেকে বাবার বাড়ি চুনারুঘাট উপজেলায় বেড়াতে যান। বেড়ানো শেষে বুধবার ছেলে ছামী আহমেদের সঙ্গে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। পথে মেহেরুন্নেছা মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন।

তিনি জানান, পরে দ্রুত উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মেহেরুন্নেছাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

২১ বছর পর গ্রেফতার আজিবুন নেছা


আরও খবর

সিলেট
২১ বছর পর গ্রেফতার আজিবুন নেছা

প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি ২০১৯

  বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি

দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত আজিবুন নেছা নামের ষাটোর্ধ্ব এক নারী ২১ বছর পলাতক থাকার পর পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন। তিনি সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাধু গ্রামের তোরাব আলীর স্ত্রী। শুক্রবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আগের দিন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিশ্বনাথ থানার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

এসআই জবা রানী দেব ও এসআই পরিমল শীল জানান, ১৯৯৯ সালে দায়ের করা সাধু গ্রামে ঘর পোড়ানো মামলায় আজিবুন নেছাকে অভিযুক্ত করা হয়। দীর্ঘদিন শুনানি শেষে আদালত ২০০৫ সালে আজিবুন নেছাসহ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেন। এতে আজিবুন নেছার ২ বছরের সাজা হয়।

এ ব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামসুদ্দোহা সমকালকে বলেন, ২১ বছর ধরে ওই আসামির কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে সিলেট থেকে তাকে গ্রেফতারের পর সাজাপ্রাপ্ত ওই নারীকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

এবার ভিন্ন চিত্র দেখলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিত


আরও খবর

সিলেট

ওসমানী বিমানবন্দর

এবার ভিন্ন চিত্র দেখলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিত

প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি ২০১৯

  সিলেট ব্যুরো

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সিলেটে এসেছিলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। সে দিন যথারীতি সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দলীয় নেতাকর্মীদের ভিড় দেখা গিয়েছিল। ২০০৯ সালে অর্থমন্ত্রী হওয়ার পর প্রত্যেকবার সিলেটে এলেই এমন চিত্র দেখেছেন তিনি। তবে 'সাবেক' হওয়ার মাত্র এগারো দিন পর ওসমানী বিমানবন্দরে নেমে সম্পূর্ণ ভিন্ন চিত্র দেখলেন মুহিত। শুক্রবার দুপুরে ঢাকা থেকে বিমানযোগে সিলেটে পৌঁছে দেখলেন তাকে অভ্যর্থনা জানাতে অপেক্ষা করছেন মাত্র দু'জন!

শুক্রবার দুপুর পৌনে ২টায় নভো এয়ারের একটি ফ্লাইটে ঢাকা থেকে সিলেট আসেন সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিত। বিমান থেকে নেমে একটি হুইল চেয়ারে করে ভিআইপি লাউঞ্জে পৌঁছান তিনি। এ সময় মুহিতকে অভ্যর্থনা জানান সাবেক এপিএস জনি ভট্টাচার্য। এ ছাড়া প্রায় জনশূন্য ভিআইপি লাউঞ্জে তাকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য ও সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিম। এদের নিয়েই সাবেক অর্থমন্ত্রী সরাসরি সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে যান। শুক্রবার দুপুরে সিলেট স্টেডিয়ামে ঢাকা ডায়নামাইটসের সঙ্গে সিলেট সিক্সার্সের বিপিএল ম্যাচ ছিল। সিলেট সিক্সার্সের প্রধান পৃষ্ঠপোষক সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিত এবং চেয়ারম্যান তার ছেলে সাহেদ মুহিত।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-১ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তার ছোটভাই ড. এ কে আবদুল মোমেন এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। প্রথমবারের মতো নির্বাচিত হয়ে ড. মোমেন নতুন সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন। এ আসনে টানা তিনবার আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য ও মন্ত্রী হয়েছেন আবুল মাল আবদুল মুহিত।

এক দশক ধরে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকালে মুহিত ঢাকা থেকে সিলেট ফিরলে ভিড় লেগে থাকত ওসমানী বিমানবন্দরে। ভিআইপি লাউঞ্জে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের পড়ে যেত হুড়োহুড়ি-ধাক্কাধাক্কি। প্রতি বার মোটর শোভাযাত্রা সহকারে পারিবারিক বাড়ি হাফিজ কমপ্লেক্সে তাকে নিয়ে যাওয়া হত।

পরের
খবর

ওসির পাঠানো ‘উপহার’ ফিরিয়ে দিলেন প্রতিমন্ত্রী


আরও খবর

সিলেট

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ -ফাইল ছবি

  সিলেট ব্যুরো

সিলেটের গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল জলিলের পাঠানো ‘উপহার’ ফিরিয়ে দিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ। 

বৃহস্পতিবার সকালে গোয়াইনঘাটে জৈন্তাপুরের শ্রীপুরে প্রতিমন্ত্রীর বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। নতুন সরকারের প্রতিমন্ত্রী হওয়ার পর গত সোমবার নিজের নির্বাচনী এলাকায় আসেন প্রতিমন্ত্রী ইমরান। 

জানা গেছে, বুধবার রাতে ওসি আবদুল জলিল প্রতিমন্ত্রীকে খুশি করতে তার বাড়িতে ট্রাকভর্তি বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী পাঠান। বৃহস্পতিবার সকালে ঘুম থেকে উঠে ট্রাকটি দেখে ক্ষুব্ধ প্রতিমন্ত্রী তা ওসির কাছে ফেরত পাঠান। 

প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ জানান, আমি কখনই কোন উপহার গ্রহণ করি না। তিনি (ওসি) না জেনেই এগুলো পাঠিয়েছিলেন। ফলে তা ফিরিয়ে দিয়েছি।

এ ব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার ওসি আবদুল জলিলের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। একই থানার ওসি (তদন্ত) কল্লোল রায় এ ব্যাপারে কিছু জানেন না বলে দাবি করেছেন।

সংশ্লিষ্ট খবর