সিলেট

দোয়ারাবাজারে যুবককে গলা কেটে হত্যা

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৯ নভেম্বর ২০১৮

দোয়ারাবাজারে যুবককে গলা কেটে হত্যা

তৌহিদ মিয়া

  ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে তৌহিদ মিয়া (২৫) নামের এক যুবককে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে পুলিশ বাংলাবাজার ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন একটি গলি থেকে লাশটি উদ্ধার করে। তৌহিদ উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের কলাউড়া (মাদ্রাসা পাড়া) গ্রামের অহিদ মিয়ার ছেলে।

এলাকাবাসী জানায়, তৌহিদ স্থানীয় কলাউড়া বাজারে দোকান ভাড়া নিয়ে বিকাশ ও ফ্লেক্সিলোডের ব্যবসা করতেন। শুক্রবার সকালে বাজারের একটি গলিতে তার রক্তাক্ত লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন পুলিশে খবর দেয়। এরপর গলির পাশে একটি তিনতলা ভবনের ছাদে রক্তের দাগ পাওয়া যায়। দুর্বৃত্তরা গভীর রাতে তৌহিদকে গলা কেটে হত্যা করে গলির মধ্যে লাশ ফেলে যায় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাংলাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন মাস্টার জানান, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে তৌহিদ নিখোঁজ ছিল বলে পরিবারের লোকজন জানায়। এরপর সকালে বাজারে তার গলা কাটা লাশ পাওয়া যায়।

দোয়ারাবাজার থানার ওসি সুশিল রঞ্জন দাস বলেন, তৌহিদের গলা ছাড়াও শরীরের একাধিক স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। হত্যাকারীদের ধরতে তৎপরতা শুরু করেছে পুলিশ।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

মর্যাদার লড়াইয়ে কে হচ্ছেন ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী


আরও খবর

সিলেট

সিলেট-১

মর্যাদার লড়াইয়ে কে হচ্ছেন ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী

প্রকাশ : ১২ নভেম্বর ২০১৮ | প্রিন্ট সংস্করণ

  চয়ন চৌধুরী, সিলেট

অনেক জল্পনা-কল্পনার পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটও ভোটে আসছে। এই ঘোষণার পর মর্যাদাপূর্ণ সিলেট-১ (সদর-নগর) আসনে তাদের প্রার্থী কে হচ্ছেন, তা নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন আলোচনা।

গত ১০ বছর সংসদের বাইরে থাকা প্রধান দল বিএনপি ও বিরোধী জোটের মধ্যে গতকাল রোববার দিনভর এ নিয়ে কথা হয়েছে। শুধু তাই নয়, আওয়ামী লীগেরও অনেকেই এ আসনে বিএনপি বা তাদের জোটের প্রার্থীর ব্যাপারে খোঁজ-খবর নিয়েছেন। তবে আসন ভাগাভাগির জটিল হিসাব থাকায় বিষয়টি নিয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে কেউ খোলামেলা কথা বলতে রাজি হননি।

স্বাধীনতার পর থেকে সিলেট-১ আসনে বিজয়ী প্রার্থীর দল সরকার গঠন করে আসছে। ফলে বড় দলগুলো এখানে মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে হেভিওয়েট প্রার্থীদের বিবেচনা করে। ২০০৯ সালে সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের মৃত্যুর পর বিএনপিতে প্রার্থী সংকট দেখা দেয়। সে সময় এ আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শমসের মবিন চৌধুরী সক্রিয় হন। পরে বিএনপি ছেড়ে দেন এবং সম্প্রতি তিনি বিকল্পধারায় যোগ দিয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে মর্যাদাপূর্ণ এ আসনকে টার্গেট করে মাঠে নামেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য খন্দকার আবদুল মুক্তাদির।

সম্প্রতি এই তালিকায় যুক্ত হয়েছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ড্যাব নেতা ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী। এই আসনের গুরুত্ব বিবেচনায় প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ইনাম আহমদ চৌধুরীর নাম সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় রয়েছে। এ ছাড়া আইনজ্ঞ ড. শাহ্‌দীন মালিককে এই আসনে প্রার্থী করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন সিলেট বিএনপির একজন নেতা। গতকাল বিকেলে ওই নেতা সমকালকে বলেন, সিলেটের এই আসনের মর্যাদার কথা বিবেচনা করে তার (শাহ্‌দীন মালিক) কথা ভাবা হচ্ছে। অনেক আগে থেকেই তিনি আলোচনায় আছেন। বাকিটা তার ওপর নির্ভর করবে।

বিএনপির অভ্যন্তরীণ হিসাব-নিকাশের পাশাপাশি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আসন ভাগাভাগির বিষয়টি বিবেচনায় আসছে। ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর সিলেট-১ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন বলে অনেকে মনে করছেন। আওয়ামী লীগের সাবেক এই নেতার রাজনৈতিক জীবনের উত্থান সিলেট থেকেই। আবার নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর এ আসনে ডা. জুবায়দা রহমানকে প্রার্থী করার দাবিও নতুন করে উঠেছে। তবে বর্তমানে লন্ডনে থাকা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী জুবায়দার নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে আইনি বাধা থাকতে পারে বলে মনে করছেন বিএনপির নেতারা।

গত শনিবার রাতে বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেওয়া কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী। সাবেক রাষ্ট্রপতিকে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেন তিনি। শেষ পর্যন্ত নাটকীয় কিছু ঘটলে বিকল্পধারায় যোগ দেওয়া শমসের মবিনই সিলেট-১ আসনে বিএনপি-জোটের প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় চলে আসতে পারেন। সিলেট মহানগর বিএনপির এক নেতা সমকালকে বলেছেন, পর্দার আড়ালে অনেক কিছু হচ্ছে বা হবে। দু-তিন দিনের মধ্যে সব পরিস্কার হয়ে যাবে।

মর্যাদাপূর্ণ সিলেট-১ আসনে কারা নির্বাচন করতে আগ্রহী, তার আভাস কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ, বিএনপির মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হচ্ছে আজ সোমবার থেকে। ফলে মনোনয়নপ্রত্যাশী যে দু-একজন সিলেটে ছিলেন, তারাও গতকাল ঢাকায় চলে গেছেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন ড. ফরাসউদ্দিন


আরও খবর

সিলেট

ফাইল ছবি

  চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) আসনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফরাসউদ্দিন। 

এ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবি সমিতির সাবেক সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট মো. মাহবুব আলী।

রোববার সকাল ১১টার দিকে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন ড. ফরাসউদ্দিন। 

এ বিষয়ে সাবেক এই গভর্নর জানান, দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী তিনি। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী তিনি সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে বিজয়ের ব্যাপারেও আশাবাদী।

তিনি বলেন, দলীয় মনোনয়ন পেলে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে সম্ভাবনাময় অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে চুনারুঘাট-মাধবপুরকে সাজাতে চাই। একই সঙ্গে দেশের উন্নয়ন ধারাকে এগিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করবো। 

পরের
খবর

একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে দিশেহারা পরিবার


আরও খবর

সিলেট

নিহত নজরুল ইসলাম

  হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

টাকার জন্য হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার রসুলপুর গ্রামের যুবক নজরুল ইসলামকে দক্ষিণ আফ্রিকায় নৃশংসভাবে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। 

নিহত নজরুল ওই গ্রামের আবদুল আউয়াল মিয়ার ছেলে। মর্মান্তিক এ ঘটনার বেশ কয়েকদিন পার হয়ে গেলেও এখনও থামেনি নিহতের স্বজনদের আহাজারি। 

ওই বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, নজরুলের মা সামাত্ত্ব বানু মোবাইল ফোনে ছেলের ছবি দেখে কান্নায় বুক ভাসাচ্ছেন। নজরুলের মা ছাড়াও তার দুই অবুঝ শিশু বারবার বাবা বাবা বলে কান্নায় ভেঙে পড়ছে।

নিহত নজরুলের পিতা আবদুল আউয়াল জানান, তাদের পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ছেলেটিকে হারিয়ে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। কীভাবে পরিবার-পরিজন নিয়ে তাদের দিন কাটবে, তা আলল্গাহ ছাড়া আর কেউ জানে না। তিনি তার ছেলের লাশ ফেরত আনতে সরকারের প্রতি দাবি জানান। একই সঙ্গে ছেলের হত্যাকারীদের বিচার চান।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার আব্দুস সহিদ জানান, বাংলাদেশ সরকারের কাছে আমাদের একটি চাওয়া, সরকার যেন দ্রুত নজরুলের লাশ ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করে এবং নজরুলের পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা দেয়।

হবিগঞ্জের ডিসি মাহমুদুল কবীর মুরাদ বলেন, আফ্রিকায় আজমিরীগঞ্জের এক যুবক নিহতের খবর পত্র-পত্রিকায় দেখেছি। ঘটনাটি খুবই বেদনাদায়ক। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতের পরিবারকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

প্রায় আট বছর আগে জীবিকার তাগিদে দক্ষিণ আফ্রিকায় পাড়ি জমান দুই সন্তানের জনক নজরুল ইসলাম। তিনি জোহানেসবার্গে কিশোরগঞ্জ সুপার মার্কেটে দীর্ঘদিন ধরে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের ব্যবসা করে আসছিলেন। গত শনিবার সকালে জিনিসপত্র কেনার জন্য টাকা নিয়ে গাড়ি করে বের হন। পথে ফোর্ডসবার্গ এলাকায় একদল দুর্বৃত্ত গতিরোধ করে তাকে গুলি করে হত্যা করে। এ হত্যাকাণ্ডের পরপরই একটি সিসিটিভির ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। 

এতে দেখা যায়, রাস্তার পাশে গাড়ি দাঁড় করিয়ে ভেতরে বসা নজরুল ইসলাম। তার গাড়ির পেছনেই ছিল দুর্বৃত্তদের গাড়ি। গাড়িটি থামিয়ে দুর্বৃত্তরা নেমে নজরুলের গাড়ির দিকে যায় এবং কিছুক্ষণ কথা কাটাকাটির পর তাকে গুলি করে।

ফুটেজে আরও দেখা যায়, গুলিটি নজরুলের হাতে লাগার পর তাৎক্ষণিক তিনি গাড়ি থেকে নেমে রাস্তা পার হয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। দুর্বৃত্তরা আবারও তার গতিরোধ করে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে গাড়ির ভেতর নিয়ে যায় এবং বেশ কয়েকটি গুলি করে। পরে নজরুলসহ গাড়িটি নিয়ে চলে যায় দুর্বৃত্তরা। অন্য স্থানে নিয়ে গাড়িসহ নজরুলের লাশ ফেলে টাকা-পয়সা নিয়ে পালিয়ে যায় তারা।

সংশ্লিষ্ট খবর