সিলেট

সড়কে পড়ে ছিল দেহ, বাঁশঝাড়ে মিলল মাথা

প্রকাশ : ০৩ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৩ নভেম্বর ২০১৮

সড়কে পড়ে ছিল দেহ, বাঁশঝাড়ে মিলল মাথা

ঘটনাস্থলে উৎসুক মানুষের ভিড় -সমকাল

  বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি

সিলেটের বিশ্বনাথের রামপাশা দক্ষিণ পাড়া গ্রামে বিশ্বনাথ-রামপাশা সড়কে পড়ে ছিল এক যুবকের মস্তকবিহীন দেহ। পরে ঘণ্টাখানিক তল্লাশির পর পাশের বাঁশঝাড় থেকে তার মাথা উদ্ধার করা হয়।

শনিবার সকাল ৮টার দিকে মস্তকবিহীন লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে সিলেটের ওসমানীনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ-সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, বিশ্বনাথ থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম, ওসি (তদন্ত) দুলাল আকন্দসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে। সেখানে গিয়ে সড়ক থেকে দেহ উদ্ধারের পর পাশের বাঁশঝাড়ে তল্লাশি চালিয়ে মাথা খুজেঁ পায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়, মাথা খুঁজে পাওয়ার পর ইটভাটার শ্রমিক সর্দার নুরুল হক লাশটি এআর ব্রিকফিল্ডের ইট কারিগর সুলতান আহমদের (৩৫) বলে শনাক্ত করেন।

নিহত সুলতান সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার ধুপড়াকান্দা গ্রামের আলকাছ মিয়ার ছেলে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদেন্তর জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেটের ওসমানী নগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ও থানার ওসি  শামসুদ্দোহা পিপিএম সমকালকে বলেন, ঘটনার রহস্য উদঘাটনে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত আছে।

শ্রমিক সর্দার নুরুল হক জানান, গত ১৯ অক্টোবর রামপাশার আজিজ নগরের এআর ব্রিকফিল্ডে ইট-কারিগর হিসেবে কাজে যোগদান করেন সুলতান। শুক্রবার সকালে বড় ভাই ও ভাবি সুলতানের সঙ্গে দেখা করতে আসেন। দুপুরে তাদের এগিয়ে দিতে গিয়ে সুলতান আর ইটভাটায় ফিরে আসেননি। রাতে মোবাইল ফোনে সুলতানের সঙ্গে তার কথা হলে জানান, 'শনিবার দুপুরের খাবারের আগে কাজে আসবেন'। কিন্তু  সকালেই সড়কে তার লাশ পাওয়া যায়।

মন্তব্য


অন্যান্য