খেলা

বড় টুর্নামেন্ট এলেই বদলে যান আমির

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৯ | আপডেট : ১২ জুন ২০১৯

বড় টুর্নামেন্ট এলেই বদলে যান আমির

ছবি-গেটি

  অনলাইন ডেস্ক

'মোহাম্মদ আমির লম্বা রেসের ঘোড়া। এবারের বিশ্বকাপে পাকিস্তানের প্রধান বোলিং অস্ত্র হবে সে'। আমির প্রসঙ্গে কথাগুলো বলেন পাকিস্তানের বোলিং কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরাম। ভুল বলেননি তিনি। এবারের বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে ভরসা জোগাচ্ছেন এই পেসার। 

২০১৭ সালে পাকিস্তানের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ের অন্যতম কারিগর ছিলেন মোহাম্মদ আমির। সেবার ফাইনালে ভারতকে হারানোর অন্যতম নায়ক ছিলেন বাঁহাতি এই বোলার। ২০০৯ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে পাকিস্তানকে সেমিফাইনালে ওঠানোতেও ছিল তার বড় ভূমিকা।

এবারের বিশ্বকাপের আগে আমিরের বোলিং নিয়ে বেশ আলোচনা হচ্ছিল। টানা ১১ হার সঙ্গী করে বিশ্বকাপে আসে পাকিস্তান। অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে বিধ্বস্ত হন আমিরসহ পাক বোলাররা। অনেকে তো আমিরকে বিশ্বকাপ দলেও রাখার পক্ষপাতী ছিলেন না। তবে বিশ্বকাপ শুরু হতেই আবার আলোচনায় সেই আমির। 

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হারলেও ব্যতিক্রম ছিলেন আমির। ক্যারিবীয়দের তিনটি উইকেটই দখল করেন এই পেসার। দ্বিতীয় ম্যাচে ফেবারিট ইংল্যান্ডকে হারানোর ম্যাচেও দুর্দান্ত ছিলেন আমির। ম্যাচের শেষ সময়ে জস বাটলারকে ফিরিয়ে দিয়ে পাকিস্তানকে ম্যাচে ফেরান এই পেসারই। 

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আজকের ম্যাচেও দারুণভাবে উজ্জল ছিলেন মোহাম্মদ আমির। ওয়ার্নার-ফিঞ্চরা যখন পাক বোলারদের বেধড়ক পেটাচ্ছিলেন তখন অন্য প্রান্তে নির্ভরতার প্রতীক হয়ে অস্ট্রেলিয়ার রানের চাকাটা টেনে ধরেন তিনি।

পাকিস্তান যে অস্ট্রেলিয়াকে ৩০৭ রানে ধরে রাখে তার অন্যতম কারিগর এই আমির। ৩০ রানে অজিদের ৫ উইকেট তুলে নেন তিনি। ১০ উইকেট নিয়ে লকি ফার্গুসনকে (৮) টপকে বিশ্বকাপের সবোর্চ্চ উইকেট শিকারী এখন এই পেসার।  

পাকিস্তান যদি আজ অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দেয় তাহলে কিন্তু অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

মন্তব্য


অন্যান্য