খেলা

'বিশ্বাস জন্মেছে, আমরাও সুইং করাতে পারি'

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৯

'বিশ্বাস জন্মেছে, আমরাও সুইং করাতে পারি'

ছবি: বিসিবি

  অনলাইন ডেস্ক

ক্রাইস্টচার্চে সফরের শেষ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল। প্রস্তুতিও শুরু করেছেন তামিম-মুস্তাফিজরা। ওয়ানডে সিরিজে বাজেভাবে ধবলধোলাই। টেস্ট সিরিজের দুই ম্যাচেই হারের পর কিছু সুখ স্মৃতি নিয়ে দেশে ফিরতে শেষ টেস্টে চোখ দলের। ওই ম্যাচে ভালো করতে চান বাংলাদেশ দলের পেস বোলাররা। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে বেশ ভালো সুইং পাওয়া আবু জায়েদ জানালেন এমনই।

বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা পুরো সফরে কিউই পেসারদের সুইং-গতি এবং বাউন্সে খাবি কেটেছে। ওয়ানডে সিরিজে একটা অজুহাত ছিল, মানিয়ে নিতে পারেনি। কিন্তু টেস্ট সিরিজে সেই কথা বলার সুযোগ নেই। বাংলাদেশ দলের অনভিজ্ঞ পেস ত্রয়ী অবশ্য ভালো বোলিং করেছেন। বাউন্স দিয়ে না হলেও ভালো গতির সঙ্গে বলে সুইং করিয়ে কিউই ব্যাটসম্যানদের বিপাকে ফেলেছেন তারা। মিস করা ক্যাচগুলো নিতে পারলে হয়তো হারটাও ভদ্রস্ত হতো।

তবে প্রথম দুই টেস্ট থেকে বিদেশের মাটিতে ভালো বোলিং করার আত্মবিশ্বাস পেয়েছেন আবু জায়েদরা, 'অনেকেই ক্যাচ মিস করেছে। এখানে আমাদের জন্য এটা স্বাভাবিকও। এটা আমার কপালের লিখন ভাবছি না।'

নিউজিল্যান্ডে ভালো ফল পেতে পেসারদের ভূমিকা অনেক জানিয়ে জায়েদ বলেন, 'দল যদি একটা ম্যাচে ইতিবাচক ফল পেতো খুব ভালো লাগতো। আমাদের সামনে এখনও এক ম্যাচ বাকি আছে। পেসারদের মধ্যে বিশ্বাস জন্মেছে যে, আমরাও এখানে বলে সুইং করাতে পারি। আমাদের বল খেলতে তাদের বেশ অসুবিধা হয়েছে। যা আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়াচ্ছে।'

বাংলাদেশের উইকেটে পেস বোলিং কোচ কোর্টলি ওয়ালসের তেমন কিছু শেখানোর থাকে না। তবে নিউজিল্যান্ডে বোলিং কোচের অধীনে বাংলাদেশ দলের বোলাররা ভালো সুইং করাতে শিখেছে বলে উল্লেখ করেন এই ডানহাতি পেসার। এছাড়া কিউই পেসার সাউদির করা বিশেষ 'বাবল বল' শেখার চেষ্টা করছেন বলেও জানান জায়েদ।

তিনি জানান, বাবল বল ক্রস সিম ডেলিভারির মতো, আউট সুইং করানোর মতো গ্রিফ নেওয়া হয় কিন্তু বল ইন-সুইং করে। ম্যাচ শেষে সাউদির সঙ্গে বসবেন বলেও উল্লেখ করেন বাংলাদেশ পেসার জায়েদ।

মন্তব্য


অন্যান্য