খেলা

দুর্দান্ত ক্যাচে ফিরলেন গেইল

প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি ২০১৯

দুর্দান্ত ক্যাচে ফিরলেন গেইল

  অনলাইন ডেস্ক

স্কোরবোর্ডে লেখা হয়েছে 'গেইল ক্যাচ বাই পোলার্ড'। কিন্তু লেখা যেত 'গেইল ক্যাচ বাই রাসেল এন্ড পোলার্ড'। কারণ দুর্দান্ত যে ক্যাচ দিয়ে তিনি ফিরেছেন তাতে পোলার্ডের চেয়ে রাসেলের অবদান বেশি। কিংবা সমানে সমান। কারণ সময় মতো পোলার্ডও এসেছিলেন ছুটে। তবে ক্যাচ যেই ধরুক না কেন এখন পর্যন্ত বিপিএলের অন্যতম সেরা ক্যাচ এটি। আর সেই ক্যাচে কাটা পড়লেন গেইল। 

রংপুরের বিপক্ষে প্রথমে পোলার্ড এবং রাসেল দারুণ ব্যাট করে। উইন্ডিজের জবাব উইন্ডিজ দিয়েই হয়তো দিতে চেয়েছিলেন গেইল। আর তাই দ্বিতীয় ওভারে বল হাতে নেওয়া শুভাগত হোমের ওপর চড়াও হন তিনি। তাকে ছক্কাও মারেন একটি। এরপর আম্পায়ারের দেওয়া এলবিডব্লিউ আউট রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান গেইল।

এরপরের বলেই আবার তুলে মারেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিস্ফোরণ। কিন্তু ঠিক মতো লাগেনি ব্যাটে। তবুও ছক্কা হয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু সেখানে তালগাছের মতো দাঁড়িয়ে থাকা আন্দে রাসেল লাফিয়ে বলটি মুঠোয় পোরেন। এরপর বলসহ মাঠের বাইরে চলে যাচ্ছেন দেখে দ্রুত শূন্য থেকে বল ছুড়ে দেন রাসেল। ছুটে আসা আরেক ওয়েস্ট ইন্ডিজ তারকা পোলার্ড ধরে নেন সেই বলটি।

হাতে এসে পড়া পোলার্ডের জন্য বলটি তালুবন্দি করতে অসুবিধা হয়নি। দলের হয়ে বড় রান তাড়া করতে নামা গেইল ৯ বলে ৮ রান করে ফিরে যান। রংপুরের রান তখন মাত্র ১৯।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

মাঠে কলকাতার ক্রিকেটারের মৃত্যু


আরও খবর

খেলা

ছবি: আনন্দবাজার

  অনলাইন ডেস্ক

কলকাতার ময়দানে খেলার মাঠেই এক উঠতি ক্রিকেটারের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। তার নাম সোনু যাদব। বুধবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ বালিগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে অনুশীলন ম্যাচ খেলছিলেন তিনি। সেখানে অসুস্থ বোধ করলে সোনুকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে দেখে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

সোনু মাঠে শারীরিকভাবে অসুস্থ বোধ করলে সতীর্থরা তাকে ক্লাবের তাবুর ছায়ায় বিশ্রাম নিতে বলেন। কিন্তু তারপরও তার শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে যায়। ক্লাবের কর্মকর্তারা সোনুকে নিয়ে যান সিএবি'র মেডিকেল ইউনিটে। সতীর্থরা জানান, মাঠে গাড়ি না থাকায় বাইকে করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় সিএবিতে।

সেখানে চিকিৎসকরা সোনুকে দেখে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। সোনুকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে নিয়ে গেলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন দায়িত্বরত চিকিৎসক। প্রাথমিক ভাবে হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে, সান স্ট্রোকের কারণেই সোনুর মৃত্যু হয়েছে।

সোনুর সতীর্থরা আনন্দবাজারকে জানিয়েছেন, বাটা স্পোর্টিং ক্লাবের মাঠে এ দিন অনুশীলন চলছিল। সোনুর সতীর্থ ক্রিকেটারদের মতে, 'মাঠে কোনও ধরনের প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা ছিল না। সিএবিতে নিয়ে যাওয়ার পরে সেখান থেকে অ্যাম্বুলেন্স পাওয়া যায়। তার পর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় সোনুকে।' তাদের অভিযোগ, শুরুতেই হাসপাতালে নিতে পারলে হয়তো বেঁচে যেতেন ২২ বছরের সোনু। পুলিশ জানিয়েছে, ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। 

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

'মেসিকে দলে ফিরে পাওয়া সম্মানের'


আরও খবর

খেলা

ছবি: এএফপি

  অনলাইন ডেস্ক

আর্জেন্টিনা গোলরক্ষক জুয়ান মুসো মনে করছেন, জাতীয় দলে লিওনেল মেসির ফেরা তাদের জন্য সম্মানের। লিগে সর্বশেষ ম্যাচে হ্যাটট্রিক পেয়েছেন মেসি। দারুণ ছন্দে থাকা ওই মেসিকে জাতীয় দলে পাচ্ছেন আর্জেন্টিনা কোচ স্কালোনি। শুক্রবার ভেনেজুলেয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে তারা। চারদিন বাদে মরক্কের বিপক্ষে ম্যাচ। রাশিয়া বিশ্বকাপের পরে মেসি আবার দলে ফেরার খুশি বলে জানান উদিনেসের গোলরক্ষক মুসো।

জাতীয় দলের অনুশীলনে মেসি: এএফপি

তিনি বলেন, 'আমরা খুবই খুশি। মেসি আমাদের সবার মতো করে অনুশীলন করেছেন। আমাদের জন্য তার জাতীয় দলে ফেরাটা সম্মানের ব্যাপার। আশা করছি দলের সবাই প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলতে পারবো। যে ফলাফলকে লক্ষ্য ধরে আমরা অনুশীলন করেছি তা পাবো।'

চলতি মৌসুমে মেসি দুর্দান্ত ফর্মে আছেন। যা তার জাতীয় দলের সতীর্থ এবং ভক্তদের আশা দেখাচ্ছে। মৌসুমে এখন পর্যন্ত তিনি সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩৯ গোল করেছেন। লিগে তার গোল সবার চেয়ে বেশি ২৯। এছাড়া শেষ তিন ম্যাচে তিনি ছয় গোল করেছেন। জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৫ গোল তার নামের পাশে।রাশিয়া বিশ্বকাপের পর প্রথম জাতীয় দলে ফিরেছেন মেসি। অনুশীলনে ফুরফুরে মেজাজে তিনি। ছবি: এএফপি

আর্জেন্টিনা দলে ডাক পাওয়া গোলরক্ষক মুসো অবশ্য এখনও আকাশি-নীলদের জার্সি গায়ে চাপাতে পারেনি। তবে ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ম্যাচে তার অভিষেখ হয়ে যেতে পারে। রাশিয়া বিশ্বকাপের পর মেসিকে ছাড়া আর্জেন্টিনা ছয়টি ম্যাচ খেলে বছর শেষ করেছে। নতুন বছর তারা শুরু করছে মেসিকে নিয়ে। গেল বছরের ছয় ম্যাচে চার জয় (গুয়েতামালা, ইরাক এবং মেক্সিকোর বিপক্ষে দুই জয়), এক ড্র (কলম্বিয়া) এবং ব্রাজিলের কাছে এক ম্যাচে হারে তারা।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

'জানবাজি দিয়ে খেলব'


আরও খবর

খেলা
'জানবাজি দিয়ে খেলব'

প্রকাশ : ২০ মার্চ ২০১৯

ছবি: বিএফএফ

  ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিরাটনগর, নেপাল থেকে

গত নভেম্বরে মিয়ানমারে অলিম্পিক বাছাইপর্বে ভারতের কাছে ৭-১ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। ওই ভরাডুবির পর নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বিরাটনগরে আজ সেই ভারতের সামনে সাবিনা খাতুনরা। ঐতিহ্য ও পরিসংখ্যানে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে সাফে টানা চারবারের চ্যাম্পিয়নরা।

গত দুই বছর নিয়মিত আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা গোলাম রব্বানী ছোটনের দল অতীতের চেয়ে এখন অনেক পরিণত। 'ভয়' শব্দটি নেই বাংলাদেশ দলের অভিধানে। শিলিগুড়িতে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ সাফে তো হারার আগে হার মানেননি সাবিনারা। এবারও সেই মন্ত্র শিষ্যদের শিখিয়ে দিয়েছেন কোচ ছোটন। মেয়েরাও প্রস্তুত জীবন দিয়ে লড়তে।

এবারের সাফে প্রথম ম্যাচ খেলতে যাওয়া কৃষ্ণা রানী সরকার গতকাল বলেই দিলেন শেষ পর্যন্ত লড়বেন তারা, 'আমরা জান বাজি রেখে খেলব। ভারতকে হারানোর বিশ্বাস অবশ্যই আছে। কারণ এখন আমরা ওদের সঙ্গে সমানতালে খেলতে পারি। আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই করব। হারার আগে হার মেনে নেব না।'

ভারতের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচে বাংলাদেশের গোলদাতা ছিলেন কৃষ্ণা রানী। ওই ম্যাচে বাংলাদেশকে ভুগিয়েছিলেন বালা দেবী ও কমলা দেবী। দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের মঞ্চে আজ এ দুই তারকা নেই। লাল-সবুজের দলটির জন্য একটু সুবিধা হলো নাকি? তা মানছেন না চোট থেকে ফেরা কৃষ্ণা, 'সিনিয়র টিমে দু'জন নেই, তবে যারা আছে তারাও ভালো। ভারত অবশ্যই কঠিন প্রতিপক্ষ। আমাদের চেষ্টা থাকবে ওদের আটকানো।'

৬ মিনিটেই নেপালের বিপক্ষে গোল হজম করার পর ম্যাচ থেকেও ছিটকে পড়ে বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে শুরুতে গোল না খাওয়ার কৌশল ছোটনের। আর প্রথম ২০ মিনিটে প্রতিপক্ষের সীমানায় চাপ অব্যাহত রাখতে চান তিনি, 'আমাদের টার্গেট হলো প্রথম ২০ মিনিট প্রতিপক্ষের সঙ্গে আক্রমণাত্মক খেলা।

আর এর মধ্যে যদি গোল না হজম করি, তাহলে ম্যাচটা অন্যরকম হবে। প্রতিপক্ষের ওপর চাপ অব্যাহত রাখতে হবে। আমার বিশ্বাস মেয়েরা পারবে। ভারতের সঙ্গে সমানতালে লড়াই করব আমরা। এখানে গোল গড় বাড়াতে হবে, এমন কোনো কিছু নেই। এটা সেমিফাইনাল, ডু আর ডাই ম্যাচ।'

সংশ্লিষ্ট খবর