খেলা

'প্রথম টেস্ট আরও আত্মবিশ্বাসী করেছে'

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ১৭ নভেম্বর ২০১৮

'প্রথম টেস্ট আরও আত্মবিশ্বাসী করেছে'

অনুশীলনে আরিফুল হক

  অনলাইন ডেস্ক

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যান ছিলেন আরিফুল ইসলাম। দুই ইনিংস মিলিয়ে তিনিই দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেছেন। অথচ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অভিষেক টেস্ট খেলতে নামেন তিনি। শেষের দিকে ব্যাট করে অবশ্য খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। কিন্তু ওয়ানডে-টি২০ সিরিজের দলে বেশি সময় বসে থাকা আরিফুলের টেস্ট দলে অন্তভূক্তি ছিল কিছুটা অবাক করার মতো। আরিফুল ইসলাম মনে করেন, দলে ডাক পাওয়া ও সুযোগ পাওয়ার পেছনে ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির ভূমিকা আছে।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিলেট টেস্টে খুব বাজেভাবে হেরেছে বাংলাদেশ দল। দলের হয়ে তাইজুল ইসলাম টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ১১ উইকেট নেন। আর ব্যাটে একটু ভরসা দেখান আরিফুল। নাম বলার মতো আশাও দেখাতে পারেনি আর কেউ। ডানহাতি এই অলরাউন্ডার ঢাকা টেস্টে আরও ভালো করতে আত্মবিশ্বাসী। এছাড়া সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচে দল ভালো করবে বলেও মনে করেন আরিফুল হক।

ঢাকা টেস্টে দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নামার অপেক্ষায় থাকা আরিফুল বলেন, 'প্রথম টেস্ট আমাকে বেশ আত্মবিশ্বাস দিয়েছে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ের কোন বলার সহজে আপনাকে শট খেলতে দেবে না। আর তাই আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে। আমার একটা স্বপ্ন ছিল টেস্ট ম্যাচ খেলার। এখন লক্ষ্য সব ফরম্যাটে খেলার সুযোগ করে নেওয়া। অভিষেক ম্যাচ খেলার কোন চাপ ছিল না আমার। কারণ আমি ড্রেসিং রুমের এই অভিজ্ঞতা অনেকদিন ধরেই নিচ্ছি। দলের সিনিয়র খেলোয়াড়রা তাদের আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করলে খেলা সহজ হয়ে যায়।'

দল নিয়ে আরিফুলের যুক্তি পেছনের খারাপ সময়ের কথা মনে রাখার কোন মানে হয়না। সামনে তাকানোর কথা জানিয়ে এই অলরাউন্ডার বলেন, 'প্রথম টেস্টটি নিয়ে ভাবলে আমরা মানসিকভাবে পিছিয়ে যাবো। আমার দল হয়ে খেলতে পারলে তাদের বিপক্ষে জেতা কঠিন হবে না।'

অবশ্য প্রথম টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আরিফুলকে দলে নেওয়া অলরাউন্ডার হিসেবে। পেস বোলিংয়ে আবু জায়েদকে সাহায্য করা। কিন্তু বল হাতে তিনি তেমন কিছু করতে পারেননি। আরিফুল বল করার সুযোগ পেয়েছেন খুব কম। কিন্তু সুযোগ পেলে তিনিও বল হাতে অবদান রাখত চান, 'ওখানকার উইকেট আমার বল করার জন্য সহায়ক ছিল না। আমাকে ঘরোয়া ক্রিকেটে আরও ভালো বোলিং করতে হবে। বিপিএল বা অন্য টুর্নামেন্টে যদি বল হাতে ভালো করতে পারি তবে জাতীয় দলে বল করার সুযোগ পাবো।'

এছাড়া সিলেট টেস্টে বাংলাদেশ দলে ছিলেন না মুস্তাফিজুর রহমান। তবে আগামী ১১ তারিখ থেকে শুরু হওয়া ঢাকা টেস্টের দলে দেখা যেতে পারে তাকে। তিনি ফিরলে বাংলাদেশ দলের শক্তি আরও বেড়ে যাবে। তবে ইনজুরি শঙ্কায় থাকা ফিজ খেলবেন কিনা তা এখনো নিশ্চিত করা হয়নি দলের পক্ষ থেকে। আরিফুল বলেন, 'আমাদের দলের সেরা বোলার মুস্তাফিজ ছিলেন না আগের ম্যাচে। সে ফিরলে আমরা জয়ের ধারায় ফিরে আসবো।' মুস্তাফিজ খেললে বাংলাদেশ দুই পেসার ও দুই স্পিনার নিয়ে মাঠে নামতে পারে। বাদ পড়তে পারেন আগের ম্যাচ অভিষেক হওয়া বাঁ-হাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

শাস্তি কমছে স্মিথ-ওয়ার্নারদের?


আরও খবর

খেলা

ছবি: ফাইল

  অনলাইন ডেস্ক

ক্যামেরুন ব্যানক্রফটের শাস্তির মেয়াদ প্রায় শেষ হতে চলল। বছরের শুরুতে শেষ হবে তার নয় মাসের সাজা। তবে এক বছরের সাজা বহাল থাকলে স্মিথ-ওয়ার্নারদের ফিরতে লেগে যাবে আগামী বছরের মার্চের শেষ অবধি। তবে ভাগ্য একটু প্রসন্ন হলে তাদের সাজা থেকে মিলতে পারে রেহায়। এমনিতে তাদের শাস্তি দেওয়া নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। ওদিকে অস্ট্রেলিয়ার সাম্প্রতিক ফর্ম ভালো যাচ্ছে না। সবমিলিয়ে দুইয়ে-দুইয়ে চার হলে আগামী সপ্তাহ নাগাদ তাদের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার ঘোষণা আসতে পারে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বল টেম্পারিংয়ের কান্ডে সাজা খাটছেন এই তিন অজি তারকা। কিন্তু এবার তাদের সাজা কমানোর কথা চিন্তা করছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড। স্মিথ আর ওয়ার্নারকে আগামী জানুয়ারির মধ্যেই মাঠে ফেরার অনুমতি দেওয়া হতে পারে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার খবর অনুযায়ী, এ সপ্তাহের মধ্যেই জানা যাবে সিদ্ধান্ত। স্মিথ আর ওয়ার্নারকে বিশ্বকাপ দলে রাখার চিন্তা থেকেই তাদের সাজা কমানোর কথা সামনে এসেছে।

কারণও আছে বৈকি। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, ২৩ এপ্রিলের মধ্যেই বিশ্বকাপ স্কোয়াডের নাম পাঠাতে হবে। সেটা করতে গেলে স্মিথ ও ওয়ার্নারের সাজা মেয়াদ অবশ্যই কমাতে হবে সিএ বোর্ডের। আর এ কারণেই তারা চাইছে এপ্রিলে ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের যে ওয়ানডে সিরিজ, তাতে যেন খেলানো যায় ওই দুই তারকাকে। এমনকি তার আগে শেফিল্ড শিল্ডে তাদের সুযোগ দেওয়ার কথা চিন্তা করছে দেশটির বোর্ড।

অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে তাদের সাজা কমানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বোর্ডের কাছে। মাঠে ফেরার জন্য এই তিন ক্রিকটার অবশ্য ফিটনেস ধরে রাখার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। খেলছেন কিছু কিছু ক্রিকেটে টুর্নামেন্ট। এরমধ্যে আগামী জানুয়ারিতে বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সে খেলতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ওয়ার্নার। সাজা কমে গেলে বিপিএলের পর শেফিল্ড শিল্ডেও দেখা যেতে পারে তাদের।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

টেস্ট দলে ঢুকলেন সাদমান ইসলাম


আরও খবর

খেলা

ছবি: ফাইল

  অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের জন্য ১৩ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে আগেই। তামিম ইকবালের ইনজুরি থাকায় দলে জায়গা ফাঁকা ছিল একটি। সফরকারী উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার পর জায়গাটা দখল করে নিলেন তরুণ ওপেনার সাদমান ইসলাম। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দলে ডাকা হয়েছে তাকে।

সাদমান ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিসিবি একাদশের হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচে ৭৩ রানের এক ইনিংস খেলেন। ওপেনার সৌম্য সরকারের সঙ্গে তিনি গড়েন ১২৬ রানের জুটি। সৌম্য সরকার ৭৮ রানে ফিরে গেলেও টেস্ট মেজাজে শুরু করা সাদমান থামেন দলের ১৮৭ রানে। কাটা পড়েন রান আউটে। দক্ষতার সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের সামলানোর ফল হাতে-নাতে পেয়ে গেলেন তরুণ এই ওপেনার।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে ৭৩ রানের ইনিংস খেলার পথে সাদমান ইসলাম। ছবি: মো. রাশেদ 

তাকে দলে নেওয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশ দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার বলেন, 'আমরা তার দিকে বেশ কিছু দিন ধরেই নজর রাখছিলাম। আমরা মনে করছি, তাকে দলে সুযোগ দেওয়ার এটাই ভালো সময়।' ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তার করা ওই রান তাকে দলে ঢুকতে সহায়তা করেছে বলে উল্লেখ করেন বাশার। তার মতে, 'সে খুব ভালো ব্যাট করেছে। তার সাম্প্রতিক প্রথম শ্রেণীর ফর্ম তাকে আত্মবিশ্বাসী হতে সহায়তা করবে।' 

সাদমান প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো করলেও নাজমুল হোসেন শান্ত এবং লিটন দাস ব্যর্থ হয়েছেন। তবে ২৩ বছর বয়সী সাদমান দীর্ঘদিন ধরে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে ভালো করার ফল পেয়েছেন। তিনি সম্প্রতি শেষ হওয়া জাতীয় ক্রিকেট লিগের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। এছাড়া বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ এবং বাংলাদেশ 'এ' দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। 

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দল: সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদুল্লাহ, আরিফুল হক, মেহেদি মিরাজ, মুস্তাফিজুর রহমান, তাইজুল ইসলাম, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, নাঈম হাসান, সাদমান ইসলাম।      

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

'ধোনির বয়স ২০ নয়, হবেও না'


আরও খবর

খেলা
'ধোনির বয়স ২০ নয়, হবেও না'

প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর ২০১৮

ছবি: ফাইল

  অনলাইন ডেস্ক

ভারতীয় ক্রিকেটে ধোনীর আর্বিভাব লম্বা চুলের এক যুবক হিসেবে। যে শুধু মারতেই পছন্দ করেন। বড় বড় ছক্কা মারা যার নেশা। কিন্তু সময়ের প্রয়োজনে সেই ধোনী নিজেকে বদলে ফেলেছেন। ভারতীয় দলে প্রথমে সুযোগ পাওয়া ধোনী ওপরে ব্যাট করার জন্য হা-হুতাশ করতেন। অথচ দলের প্রয়োজেন আবার তিনি নিজেই নিচে ব্যাট করছেন। হয়ে উঠেন ভারতের ম্যাচ জয়ী তারকা। কিন্তু ধোনীর কাছে এখনও আগের মতো প্রত্যাশা করা ঠিক হবে না বলে মনে করেন সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক কপিল দেব।

তার মতে, মাহেন্দ্র সিং ধোনীর এখন বয়স হয়েছে। তার থেকে এখন তরুণ ধোনীর মতো পারফরম্যান্স চাইলে তা ভুল হবে। তিনি চান ধোনী এখনও ভারতীয় দলে খেলে যাক। কিন্তু আগের মতো 'ফিনিশার' ধোনীকে দেখার আশা না করতে বললেন তিনি। ভক্তদের ধোনীর থেকে আশা কমানোর ইঙ্গিত দিলেন এই তারকা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ধোনী ভাল রান পাননি। এরপর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-২০ ফরম্যাটে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে ধোনীকে। এতেই রব উঠে গেছে ধোনীর ক্যারিয়ার শেষ। আগামী বছর ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ধোনীর বিকল্প তৈরি করে রাখছে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দলে সুযোগ দেওয়া হয়েছে ঋষভ পান্তকে। ইংল্যান্ডের মাটিতে দারুণ এক টেস্ট ইনিংস খেলেন তিনি। আর তাই রাঁচির তারকার বিকল্প ভাবা হচ্ছে তাকে।

এ নিয়ে বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক কপিল দেব বলেন, 'ধোনী এখনও দলের হয়ে যা করেছে, তা দুর্দান্ত। সমস্যা হল, আমরা ২০-২৫ বছর বয়সী ধোনীকে দেখার আশা করছি এখনও। কিন্তু তা তো সম্ভবই না। ধোনীর অভিজ্ঞতা আছে। সেই অভিজ্ঞতা দলের কাজে লাগাতে পারলে, সেটাই অনেক। তবে সবাইকে বুঝতে হবে ধোনীর বয়স আর ২০ বছরে আটকে নেই। কখনও ২০ বছরে ও ফিরেও আসবে না। ধোনী যদি ফিট থাকে, ক্রিকেট খেলে, তবে ও দলের সম্পদ। ওর না খেলার কারণ হতে পারে শুধু ফিটনেস। ধোনী আরও অনেক ম্যাচ খেলবে এই আশা আমি করি।' 

সংশ্লিষ্ট খবর