খেলা

নির্বাচনের কারণে পেছাচ্ছে বিপিএল

প্রকাশ : ১৬ মে ২০১৮

নির্বাচনের কারণে পেছাচ্ছে বিপিএল

ছবি: ফাইল

  অনলাইন ডেস্ক

বিপিএলের ষষ্ঠ আসর প্রথমে নভেম্বরে হবে বলে লিগটির গর্ভনিং কাউন্সিলের পক্ষ থেকে জানানো হয়। এর আগের আসরগুলো নভেম্বরেই অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে চলতি বছরের আসরটি নভেম্বরে না করে একমাস এগিয়ে অক্টোবরে করার কথা জানায় গর্ভনিং কাউন্সিল। তবে এবার তা পিছিয়ে জানুয়ারিতে করার সম্ভব্য সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। 

বিপিএল গর্ভনিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক বুধবার জানান যে, জাতীয় নির্বাচনের আগে বিপিএলের সাতটি দলকে পুরোপুর নিরাপত্তা দেওয়া কঠিন হয়ে যাবে। নিরাপত্তা ব্যবস্থার সঙ্গে সম্পৃক্ত বেশির ভাগ সদস্য জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন। তিনটি ভেন্যুতে বিপিএলের নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী নিরাপত্তা দেওয়া তাই বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে।'

ইসমাইল হায়দার দলগুলোকে নিরাপত্তা দেওয়াকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন বলে জানান। এক সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে উল্লেখ করেন তিনি। বিপিএলের সদস্য সচিব বলেন, 'আমরা প্রত্যেক দলকে প্রয়োজন অনুযায়ী নিরাপত্তা সদস্য সরবরাহ করতে পারবো না এ সময়।' আগামী বিপিএল দেরিতে শুরু হতে পারে বললেও নির্ধারিত সময়ে হওয়ার কথা উড়িয়ে দিচ্ছেন না তিনি। 

তিনি বলেন, 'আমরা যদি পর্যাপ্ত নিরাপত্তা সদস্য না পায় তবে বিপিএল জাতীয় নির্বাচনের পরে আয়োজন করবো। আমদের চোখ জানুয়ারির দিকে।' তবে জানুয়ারিতে সম্ভব্য সময় দিলেও এসময় বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ম্যাচ আছে। তাই ওই সময় বিপিএল আয়োজন করা কঠিন হবে। 

জানুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশর দুটি টেস্ট এবং তিনটি ওয়ানডে খেলার কথা আছে। যদিও বাংলাদেশ সেটা অক্টোরবে নিয়ে আসার কথা ভাবছে। কিন্তু তাতেও সমাধান হওয়ার সম্ভাবনা কম। কারণ জিম্বাবুয়ে অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ খেলবে বলে সূচি নির্ধারণ করা আছে। 

সূত্র: ইউএনবি 

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

'অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেবেন সাকিবই'


আরও খবর

খেলা

ছবি: ফাইল

  অনলাইন ডেস্ক

খেলোয়াড়রা চোটের সঙ্গে আপস করতে চান না। চোট নিয়ে খেলার ঝুঁকিও আছে। তাই বাংলাদেশের টেস্ট এবং টি২০ অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের আঙুলের অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত তার ওপর নির্ভর করছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমনটাই জানিয়েছেন। 

আগামী সেপ্টেম্বরে এশিয়া কাপ খেলতে সংযুক্ত আবর আমিরাতে যাবে বাংলাদেশ। সাকিবের মতো অলরাউন্ডারকে ছাড়া এশিয়া কাপের আসরে ভালো করা কঠিন। বাঁ-হাতি অলরাউন্ডারের চোট তাই সমর্থক, কোচ এবং বিসিবি সভাপতির কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে। এশিয়া কাপের পর সাকিবের অস্ত্রোপচার হলে ভালো হয় বলেও এর আগে মত দেন বিসিবি কর্তা। তবে এখন তা সাকিবের ওপর নির্ভর করছে বলে জানান তিনি। 

বিসিবি সভাপতি জানান, সাকিব যখন ভালো মনে করবে, তখনই অস্ত্রোপচার হবে। হজ পালন করতে গত রোববার রাতে দেশ ছাড়েন সাকিব। নাজমুল হাসানও হজ করতে যাবেন বুধবার। সেখানেও সাকিবের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানান বিসিবি সভাপতি। 

সদ্যপ্রয়াত বিসিবি পরিচালক আফজালুর রহমান সিনহার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় মঙ্গলবার দুপুরে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দোয়া মাহফিল হয়। সেখানে সাকিবকে নিয়ে পাপন বলেন, 'সাকিবের হাতের ব্যথার বিষয়টা আমাদের আগে জানা ছিল না। দেশে ফেরার পর কোচের সঙ্গে বৈঠকে জানা গেল, সে এখন অস্ত্রোপচার করাতে চাচ্ছে। তখন আমার মনে হয়েছে, যদি হাতে ব্যথা থাকে, তাহলে তো খেলতেই পারবে না।'

এশিয়া কাপ খেলার পর সাকিবের অস্ত্রোপচারের বিষয়ে তিনি বলেন, 'যদি পরে করার সুযোগ থাকে তাহলে আমরা অবশ্যই চাইব জিম্বাবুয়ে কিংবা ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের সময় করাক, সেটা দলের জন্য ভালো হয়। এখন পুরোটাই নির্ভর করছে ফিজিও, ডাক্তার ও সাকিবের ওপর।'

হজে যাওয়ার আগে সাকিবের ফোনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'হজে যাওয়ার আগে আমাকে ফোন করেছিল, জিজ্ঞেস করেছিল কী করবে। আমি বলেছি, যদি হাতে ব্যথা থাকে আর তুমি যদি মনে করো এভাবে খেললে সমস্যা হবে, তাহলে অস্ত্রোপচার করিয়ে ফেলো। আর তুমি যদি মনে করো এশিয়া কাপে খেলা সম্ভব, তাহলে এশিয়া কাপের পরে করো, দলের জন্য ভালো হবে। সিদ্ধান্ত তোমার ওপর।'

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

বার্সায় কার বদলে কে?


আরও খবর

খেলা
বার্সায় কার বদলে কে?

প্রকাশ : ১৪ আগষ্ট ২০১৮

  অনলাইন ডেস্ক

স্প্যানিশ লিগের শিরোপা জয়ী বার্সেলোনাকে নতুন মৌসুমে নতুন করে শুরু করতে হবে। অনেকে মনে করছেন গেল মৌসুমের ৪-৩-৩ ফর্মেশনে এবার বার্সার সাফল্য পাওয়া কঠিন হয়ে যাবে। কারণ দলে এবার ইনিয়েস্তা, পাউলিনহো নেই। তাই বার্সা এবার নতুন এবং পুরনো খেলোয়াড়দের মধ্যে কাকে বসিয়ে কাকে খেলাবে এবং কিভাবে দল সাজাবে সেটাই দেখার বিষয়। 

দলে মেসি, কৌতিনহো, সুয়ারেজ কিংবা উমতিতি, পিকের জায়গা নিয়ে কথা নেই। তবে কিছু পজিশনে একাধিক তারকা হয়ে গেছে তাদের। বার্সা কোচ তাদের মধ্যে কাকে খেলাবেন আর কাকে বেঞ্চ গরম করতে হবে-এই প্রশ্নের উত্তরের অপেক্ষায় থাকতে হবে ম্যালকম-ডেম্বেলে, আর্থার-রাকিটিচ, বুসকেটস-ভিদালদের। 

বার্সেলোনায় ডেম্বেলে এখনো তরুণ সদস্য। মোটে একটি মৌসুম পার করেছেন তিনি। দলে সুযোগ পেয়ে খারাপ করেননি তিনি। তবে চোটের কারণে বার্সার মন ভরাতেও হয়েছেন ব্যর্থ। আর তাই ব্রাজিলিয়ান তরুণ ম্যালকমকে দলে টেনেছেন ভালভার্দে। ডেম্বেলে আবার স্প্যানিশ সুপার কাপে বার্সার হয়ে দারুণ খেলেছেন। করেছেন ভালো একটি গোল। কোচকে ফেলে দিয়েছেন দ্বিধায়। বার্সার শুরুর একাদশে ডেম্বেলে খেলবেন নাকি ম্যালকম সেটা এখন বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। 

ন্যু কাম্পের তরুণ তারকা ব্রাজিলিয়ান আর্থার। তার মধ্যে ব্রাজিলিয়ানরা খুঁজছেন বিশ্বকাপ জয়ী টোস্টাওকে। আর বার্সেলোনা খুঁজছে স্পেনের হয়ে বিশ্বকাপ জয়ী জাভিকে। কিন্তু ২১ বছরের তরুণ এখনই বার্সার শুরুর একাদশে সুযোপ পাবেন, এটা বলা দুস্কর। কারণ তার প্রতিযোগিতায় হবে রাকিটিচের সঙ্গে। দু'জনের একজনকে তাই বসে থাকতে হতে পারে। এখন সিদ্ধান্ত ভালভার্দের হাতে। দলের তরুণ তুর্কিকে গড়ে তুলবেন নাকি বিশ্বকাপ জয়ী রাকিটিচকে খেলাবেন। 

গোলবারে বার্সার প্রথম পছন্দ জার্মান গোলরক্ষক টের স্টেগান। ওদিক ডাচ গোলরক্ষক জাসপার ক্লিসেন আছেন বার্সা দলে। তিনি দলবদল করতে চান বলেও গুঞ্জন বেরিয়েছে। বার্সা যদি তাকে দলে রাখতে চায় তবে জাসপারকে খেলানোর নিশ্চয়তা দিতে হবে। সেক্ষেত্রে মাঝে মাঝেই বেঞ্চ গরম করতে দেখা যেতে পারে টের স্টেগানকে। এমনকি লা লিগা এবং চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ দুই গোলরক্ষকের মধ্যে ভাগাভাগিও করে দেওয়া হতে পারে। 

বায়ার্ন মিউনিখ থেকে চিলির ঝানু তারকা ভিদালকে দলে টেনেছে বার্সেলোনা। তিনি মূলত পাউলিনহোর জায়গা পূরণ করবেন। ম্যালকম, আর্থার তরুণ হওয়ায় 'বার্সার সঙ্গে মানিয়ে নিচ্ছে' অজুহাতে তাদেরকে বসিয়ে রাখতে পারেন বার্সা কোচ ভালভার্দে। কিন্তু বায়ার্ন মিউনিখ থেকে আনা ভিদালকে বসিয়ে রাখা কঠিন। আর তাই বুসকেটস এবং ভিদালের মধ্যে কে শুরুর একাদশে খেলবে সেই প্রতিযোগিতা চলতেই পারে। 

বার্সেলোনা কাদের নিয়ে একাদশ শুরু করবে তা অবশ্য স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে মোটামুটি ধারণা পাওয়া গেছে। তবে লা লিগার শুরুর ম্যাচে তা আরও ভালো বোঝা যাবে। আগামী ১৯ আগস্ট রাতে আলাভেসের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবে বার্সেলোনা।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

টাইগারদের এশিয়া কাপের প্রাথমিক দল ঘোষণা


আরও খবর

খেলা

ছবি: ফাইল

  অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ আগামী সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপের জন্য প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে। সাকিব-মাশরাফিদের দায়িত্ব নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ-যুক্তরাষ্ট্র সফরটা বেশ ভালোই কাটিয়েছেন টাইগারদের নতুন কোচ স্টিভ রোডস। এবার এশিয়া কাপের চ্যালেঞ্জটা নিতে উন্মুখ হয়ে আছেন তিনি। আর তাই এশিয়া কাপের আগে বড় একটি প্রাথমিক দল চেয়েছিলেন রোডস। কোচের কাজের সুবিধাত্বে ৩১ সদস্যের প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। 

বিসিবি'র কাছে বাংলাদেশ কোচ অন্তত ৩০ সদস্যের একটি দল চেয়েছিলেন। তাদেরকে নিয়ে তিনি আলাদা সেশন করতে চান। আলাদাভাবে দেখতে চান সবাইকে। যাতে করে তিনি এশিয়া কাপের জন্য তো বটেই ভবিষ্যত বাংলাদেশ দল নিয়ে পরিকল্পনা করতে পারেন। 

বিসিবি'র ঘোষিত প্রাথমিক দলে নতুন মুখ আছেন কয়েকজন। তাদের মধ্যে বাঁ-হাতি তরুণ পেসার শরিফুল ইসলাম, অলরাউন্ডার সৈয়দ খালেদ আহমেদ এবং লেগ স্পিন অলরাউন্ডার ফজলে রাব্বি মাহমুদ এই প্রথম বাংলাদেশ দলে ডাক পেলেন। সম্প্রতি 'এ' দলের হয়ে ভালো করায় বিবেচনায় দেওয়া হয়েছে তাদের। বাকিরা বাংলাদেশ ক্রিকেটের চেনা মুখ। প্রাথমিক দলে থাকা ক্রিকেটারদের নিয়ে ২৭ আগস্ট প্রস্তুতি শুরু হবে। 

এশিয়া কাপের জন্য ঘোষিত ৩১ সদস্যের প্রাথমিক দল

ব্যাটসম্যান: তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, আনামুল হক, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, লিটন দাস, মুমিনুল হক, নুরুল হাসান, মোহাম্মদ জাকির হাসান, মোহাম্মদ মিথুন। 

অলরাউন্ডার: সাকিব আল হাসান, সাইফউদ্দিন,  মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী মিরাজ, আরিফুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাঈম হাসান, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, ফজলে রাব্বি মাহমুদ।

বোলার:  মাশরাফি বিন মর্তুজা,  মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার রনি, নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, আবু জায়েদ, শরিফুল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম রাব্বি, সানজামুল ইসলাম। সূত্র: ইউএনবি

সংশ্লিষ্ট খবর