খেলা

পাঞ্জাবের বিপক্ষে হারলেই বিদায় মুম্বাইয়ের

প্রকাশ : ১৬ মে ২০১৮

পাঞ্জাবের বিপক্ষে হারলেই বিদায় মুম্বাইয়ের

  অনলাইন ডেস্ক

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের নিজস্ব ফেসবুক পেজে পাঞ্জাবকে শুভ কামনা জানাচ্ছেন অনেকে। পাঞ্জাবের বিপক্ষে এই ম্যাচে মুম্বাই হারুক এটাই কাম্য তাদের। কারণ অনুমান করতে কষ্ট হওয়ার কথা না। এরা মুম্বাই কিংবা পাঞ্জাবের সমর্থক নন। সবাই বাংলাদেশের বামহাতি কাটার মাস্টার মুস্তাফিজের ভক্ত। 

মুস্তাফিকজে প্রথম ছয় ম্যাচে মাঠে নামিয়েছিল মুম্বাই। এরপর বেঞ্চ গরম করছেন ফিজ। আর তাই ভক্তদের এই আক্ষেপ। আজ বুধবার রাতে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের মুখোমুখি হবে রোহিত শর্মার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। এ ম্যাচে হারলেই বিদায় নিতে হবে গতবারের চ্যাম্পিয়নদের। 

কারণ মুম্বাই এখন পর্যন্ত পাঁচ ম্যাচে জয় পেয়েছে। এই ম্যাচ হেরে যদি তারা শেষ ম্যাচে জেতে তবুও তাদের জয় হবে ছয়টি। অন্যদিকে শেষ চারে যাওয়ার জন্য অন্য চার দলের সাতটি করে জয় হয়ে যাবে। তবে মুম্বাই যদি এই ম্যাচে জয় পায় এবং শেষ ম্যাচেও জেতে তবে তাদের শেষ চারে যাওয়ার ভালো সুযোগ থাকবে। সেক্ষেত্রে চ্যাম্পিয়নদের নেট রান রেটের উপর নির্ভর করতে হবে। 

পাঞ্জাব যদি মুম্বাইয়ের বিপক্ষে জেতে তবুও তাদের শেষ চারের রাস্তা পরিষ্কার হবে না। কারণ নেট রান রেটে সবার চেয়ে পিছিয়ে আছে পাঞ্জাব। ওদিকে নিজেদের শেষ ম্যাচে রাজস্থান জিতলে তাদের সুযোগ বেড়ে যাবে প্লে অফ খেলার। রাহানের দলের নেট রান রেট পাঞ্জাবের চেয়ে ভালো হওয়ায় সুযোগ থাকবে তাদের পক্ষে। 

তাছাড়া ১২ ম্যাচে ৫ জয় পাওয়া ব্যাঙ্গালুরুও যদি শেষ দুই ম্যাচে জেতে তবে তারাও শেষ চারের দাবিদার হবে। তাদের নেট রান রেটও কিংসদের থেকে ভালো। এগিয়ে যাবে রাজস্থান-কলকাতার চেয়েও। শেষ দুই ম্যাচে জিতলে মুম্বাইয়েরও শেষ চারে যাওয়ার ভালো সুযোগ আছে। ম্যাচ হারলেও নেট রান রেটের হিসেবে এখনো অন্যদের চেয়ে অনেক এগিয়ে মুম্বাই। 

তাছাড়া কলকাতার নেট রান রেটও বেশ কম। শেষ চার নিশ্চিত করতে হলে তাদের তাই শেষ ম্যাচ জিততে হবে। নয়তো অন্যদের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। তবে নেট রান রেটের হিসেবে কলকাতা এখন পর্যন্ত পাঞ্জাব এবং রাজস্থানের চেয়ে এগিয়ে আছে। 

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

'ফুটবলে আগ্রহ হারিয়েছেন ওজিল'


আরও খবর

খেলা
'ফুটবলে আগ্রহ হারিয়েছেন ওজিল'

প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: গোল

  অনলাইন ডেস্ক

রাশিয়া বিশ্বকাপে মেসুত ওজিলের দল জার্মানি গ্রুপ পর্বে বিদায় নেই। সেই কোপ সবচেয়ে বেশি গেছে মেসুত ওজিলের ওপর দিয়ে। বিশ্বকাপ শুরুর আগে বিতর্ক। বিশ্বকাপে দলের এবং নিজের বাজে পারফর্মের পরে বাধ্য হয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নেন ওজিল। আর্সেনালের হয়ে খেলে গেলেও জার্মানির হয়ে বিশ্বকাপ জয়ী ওজিল আর সেই ওজিল নেই। তার খেলা দেখে তাই আর্সেনালের সাবেক মিডফিল্ডার ইমানুয়েল পেটিট মনে করেন, ফুটবলে উৎসাহ হারিয়েছেন ওজিল। তিনি সবধরণের ফুটবল থেকে অবসরের কাছে চলে এসেছেন।

চলতি মৌসুমে এখন পর্যন্ত বিবর্ণ মেসুত ওজিল। তার ক্লাব ছাড়ার ব্যাপারে চলছে গুঞ্জন। তবে এখন পর্যন্ত বড় কোন ক্লাব তার ব্যাপারে আগ্রহ দেখায়নি। ওদিকে শীতকালীন দলবদলের বাজার বন্ধ হতে দেরি নেই বেশি। আর্সেনালের হয়ে মাঠে তার গতিবিধি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ক্লাবের হয়ে তাই নিয়মিত জায়গা পাওয়া কঠিন তার জন্য।

জার্মানির জার্সিতে হতাশ দৃষ্টিতে শূন্যে তাকিয়ে থাকা এই ওজিলকে ক্লাবেও দেখা মিলছে এখন। ছবি: গোল

মিররকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পেটিট তাই মন্তব্য করেন, 'ফুটবলের প্রতি আগ্রহ হারিয়েছেন এমন ঘটনা অনেক ঘটেছে। আমরা তো রোবট না। প্রত্যেক মৌসুম একইভাবে শুরু হবে এমন ধরে নেওয়া ভুল। সবসময় একই গতিকে খেলে যাওয়াও বেশ কঠিন কাজ। তাছাড়া কেউ যদি ফুটবল থেকে অনেক অর্থ কামিয়ে ফেলে, অনেক শিরোপা জেতে কিংবা ব্যক্তিগত জীবনে কোন সমস্যার মধ্যে থাকে তাহলে তিনি আগ্রহ হারাতেই পারেন।'

মেসুত ওজিলের জীবনে কোন সমস্যা আছে কিনা তা অজানা পেটিটের, যা জানেন তা হলো মাঠে ওজিলের হালচাল। যা মোটেও  ভালো দেখায় না। পেটিট বলেন, 'বদবদলের বাজার বন্ধ হতে যাচ্ছে। ওজিল ক্লাব ছাড়ছেন বলে আমার মনে হচ্ছে না। তাহলে ওজিল ক্যারিয়ার কোথায় শেষ করতে যাচ্ছেন। চীনে? আমি চীনকে ছোট করছি না। তবে সত্যি কি জানেন, তার মতো ফুটবলার চীনে ক্যারিয়ার শেষ করুক আমি তা চাই না।'

চলতি মৌসুমে আর্সেনাল ভালো অবস্থানে নেই। তাদের দীর্ঘ দিনের কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারকে ছেড়ে উনাই এমেরিকে কোচ করেছে দলটি। কিন্তু হাল বদলায়নি ক্লাবের। তার কারণ হিসেবে ওজিলের বাজে ফর্মকেও দায়ী করছেন অনেকে। এ নিয়ে পেটিট বলেন, 'ক্লাবের ওজিলকে দরকার। ওজিলের দরকার ব্যাপারটা ঠিকঠাক উপলব্ধি করা। হতাশা ঝেড়ে ফেলা। তার নিজের মর্যাদা বোঝা। আমি জার্মান এবং তুর্কির সংবাদ মাধ্যমে দেখছি ফুটবলের চেয়ে তার ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে আক্রমণ করা হচ্ছে। তবে একজন আধুনিক খেলোয়াড় হিসেবে এসবের সঙ্গে মানিতে নিতে হবে ওদের।' 

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

'বড় ম্যাচ জিততে জুভেন্টাসে রোনালদো'


আরও খবর

খেলা

ছবি: গোল

  অনলাইন ডেস্ক

জুভেন্টাস রেকর্ড দামে রোনালদোকে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে দলে টেনেছে। গেল ক'মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে ভালো অবস্থানে থেকেও হেরে বিদায় নিয়েছে তারা। কিন্তু এবার আটঘাট বেধে ওই ট্রফির জন্য ছুটতে চাই জুভরা। পর্তুগালের ৩৪ বছর বয়সী রোনালদোকে জুভেন্টাস সেই জন্যই দলে ভিড়িয়েছে। সংবাদ মাধ্যমে এমনই কথা উড়ে বেড়ায়। রোনালদোও বলেছেন, জুভেন্টাসকে অধরা শিরোপা এনে দিতে তুরিনে এসেছেন তিনি।

এবার রোনালদোর জুভেন্টাস কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি বললেন, রোনালদোকে জুভেন্টাস দলে নিয়েছে বড় ম্যাচের জন্য। তার পা থেকে বড় বড় গোল বেরোবে সেই প্রত্যাশা ওল্ড লেডিদের।

বুধবার রাতে যেমন এসি মিলানের বিপক্ষে সুপারকোপা জিতেছে জুভেন্টাস। রোনালদোর হেড করে দেওয়া গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তারা। রোনালদোর হাতে শোভা পেয়েছে জুভেন্টাসের হয়ে জেতা প্রথম শিরোপ। মিলানের বিপক্ষে ম্যাচের ৬১ মিনিটে দারুণ এক গোল করেন রোনালদো। তার করা ওই একমাত্র গোলে শিরোপা জেতে জুভেন্টাস।

আলেগ্রি এ নিয়ে বলেন, 'ঠিক ওই কারণে আমরা রোনালদোকে দলে এনেছি। মাঠে সবসময় সে দারুণ এবং বড় বড় গোল করে। দারুণ গতি ছিল তার মিলানের বিপক্ষে। পুরো দলই ভালো খেলেছে।' ম্যাচে এসি মিলান ভালো কিছু প্রতি আক্রমণ করে। এ নিয়ে জুভ কোচের ব্যাখ্যা, আমরা নিজেদের খেলার গতি ফেরানোর জন্য তাদের প্রতি আক্রমণ করার কিছু সুযোগ দিয়েছি। চলতি মৌসুমে জয়ের এই ধারা ধরে রাখায় মনোযোগ আমাদের।' 

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

রাহুল-পান্ডিয়ার শুনানি মুলতবি


আরও খবর

খেলা

ছবি: ইএসপিএন

  অনলাইন ডেস্ক

সুপ্রিম কোর্টে হার্দিক পান্ডিয়া এবং লোকেশ রাহুলের নামে ওঠা অভিযোগের তদন্তে ন্যায়পাল চাইল প্রশাসকদের কমিটি (সিওএ)। বৃহস্পতিবার কোর্টে নারীদের প্রতি দুই ক্রিকেটারের মন্তব্যের জেরে তদন্তের দাবি ওঠে। ফলে হার্দিক-রাহুলের মাঠে ফিরতে আরও দেরি হতে পারে।

করণ জোহরের 'কফি উইথ করণ' অনুষ্ঠানে গিয়ে এই দুই ক্রিকেটার নারীবিদ্বেষী ও বর্ণবৈষম্যমূলক মন্তব্য করেন। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড এরপর অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফিরিয়ে আনে তাদের। এরপর সুপ্রিম কোর্টে যায় তাদের বিষয়টি। সেখানে প্রশাসকদের কমিটি ন্যায়পাল চাই। তবে বোর্ডে ন্যায়পাল নিয়োগের দরকার নেই বলে বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়। তবে তদন্তে ন্যায়পাল না থাকায় দুই ক্রিকেটারের মাঠে ফেরার বিলম্ব ঘটছে বলে তা উল্লেখ করা হয়।

এরপর সপ্তাহখানেকের জন্য শুনানি মুলতবি রাখার সিদ্ধান্ত নেয় আদালত। এরমধ্যে ন্যায়পাল নিয়োগ হওয়ার কথা। তাই ২৩ জানুয়ারি থেকে ভারতের নিউজিল্যান্ড সফরেও হার্দিক-রাহুলের খেলার সম্ভাবনা নেই। তাদের বদলি অবশ্য বোর্ড এরইমধ্যে ঘোষণা করে দিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর