অন্যান্য

অল এশিয়া ওপেন কারাতে চ্যাম্পিয়নশিপ ৯ ও ১০ নভেম্বর

প্রকাশ : ৩১ অক্টোবর ২০১৮ | আপডেট : ৩১ অক্টোবর ২০১৮

অল এশিয়া ওপেন কারাতে চ্যাম্পিয়নশিপ ৯ ও ১০ নভেম্বর

  অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে, ১৭তম অল এশিয়া ওপেন কারাতে চ্যাম্পিয়নশিপ। রাজধানীর মিরপুরের শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে প্রতিযোগিতার মূল পর্ব অনুষ্ঠিত হবে ৯ ও ১০ নভেম্বর। 

ইন্টারন্যাশনাল কারাতে অর্গানাইজেশন (আইকেও) খিউকুশীন বাংলাদেশ শাখার উদ্যোগে এই আয়োজনের সহযোগিতায় রয়েছে বাংলাদেশ মার্শাল আর্টস কনফেডারেশন ও জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ।

প্রতিযোগিতায় স্বাগতিক বাংলাদেশসহ জাপান, আফগানিস্তান, চীন, ভারত, ইরান, কাজাখিস্তান, কুয়েত, লেবানন, ম্যাকাও, মঙ্গোলিয়া, মিয়ানমার, বাহরাইন, নেপাল, পাকিস্তান, ফিলিপাইনস, শ্রীলঙ্কা ও কুয়েতসহ এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের মোট ১৮ দেশের ৬০ জন প্রতিযোগী অংশ নেবেন।

প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার। সন্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন (আইকেও) খিউকুশীনের আন্তর্জাতিক পরিচালক খাৎসুহিত গোরাই।


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

মাথা ন্যাড়া করে শাস্তি খেলোয়াড়দের


আরও খবর

অন্যান্য

ছবি: টুইটার

  অনলাইন ডেস্ক

খেলার মাঠে অনেক ধরণের কান্ড-কারবার দেখা যায়। অধিনায়ক, খেলোয়াড় কিংবা কোচরা ম্যাচ হারার পর রাগ-ক্ষোভ প্রকাশ করেন। হয়তো কোচরা মাঝে মধ্যে ছোট খাটো শাস্তি দেন খেলোয়াড়দের। একটু বেশি খাটিয়ে নেওয়া, নিয়ম-নীতিতে জোর দেওয়া ইত্যাদি করে থাকেন। কিন্তু কোচই যেন ভুলে গেলেন, খেলায় হার-জিত থাকবে। আর তাই দিলেন 'বড়' শাস্তি। শিষ্যদের মাথা ন্যাড়া করালেন তিনি।

ঘটনাটা অবশ্য কিছুদিন আগের। ভারতের জব্বলপুরে জাতীয় জুনিয়র হকি টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই টুর্নামেন্টে বাংলার জুনিয়র হকি খেলোয়াড়রা ভালো করতে পারেননি। আর তাই মাথা ন্যাড়া করার শাস্তি পেয়েছে তারা।

আর এ নিয়ে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। সেখানকার মানবাধিকার সংস্থা এনডিআর প্রশ্ন তুলেছে কোচের এমন ভূমিকা নিয়ে। বাংলার যুব হকি দলের কোচ প্রকাশ আনন্দ তরুণ এই হকি খেলোয়াড়দের মানসিক নিপীড়ন করেছেন বলে দাবি এনডিআরের।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, যুব হকি দলের কোচ আনন্দ প্রকাশ খেলোয়াড়দের বলেন, যে ন্যাড়া হবে না, তার জন্য রাজ্য দলের দরজা চিরতরে বন্ধ। কোচের কথা মতো তাই মাথা ন্যাড়া করেছেন প্রত্যেকে। এরপর গ্রুপ করে ছবি তুলে তারা কোচের কাছে পাঠিয়ে দেন।

মানবাধিকার সংস্থা এপিডিআর রাজ্যের মানবাধিকার কমিশনের কাছে এ নিয়ে চিঠি দিয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি তাদের। সংস্থার সভাপতি রঞ্জিত শূর বলেন, 'এটা কোচের বিকৃত মানসিকতা ও ক্ষমতা অপব্যবহারের প্রমাণ। রাজ্য হকি ফেডারেশনও এ নিয়ে তাদের দায়িত্ব এড়াতে পারেন না। ফেডারেশন কোচের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো কোচকে আড়াল করেছে।'

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

নারী ফুটবলারকে ধর্ষণের অভিযোগ


আরও খবর

অন্যান্য

  কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ায় এক নারী ফুটবলারকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। জাতীয় নির্বাচনের ডামাডোলের মধ্যে গত ৯ ডিসেম্বর সদর উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই ফুটবলারের দাদি বাদী হয়ে বুধবার রাতে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পর পুলিশ রাতেই আসামি নয়নকে গ্রেফতার করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ওই নারী ফুটবলারকে বেশ কিছুদিন ধরে শহরের কমলাপুরের আসলাম আলীর বখাটে ছেলে নয়ন উত্ত্যক্ত করে আসছিল। ৯ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১১টার দিকে নয়ন মেয়েটির ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা করা হলেও শেষ পর্যন্ত কোনো সুরাহা হয়নি। পরে মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করা হয়।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি নাসির উদ্দিন বলেন, এক নারী ফুটবলারকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। এরই মধ্যে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মেয়েটিকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।