রংপুর

সাঁওতাল পল্লীতে হামলা-আগুন: চার্জশিটের বিরুদ্ধে নারাজি পিটিশন

প্রকাশ : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সাঁওতাল পল্লীতে হামলা-আগুন: চার্জশিটের বিরুদ্ধে নারাজি পিটিশন

  গাইবান্ধা ও গোবিন্দগঞ্জ প্রতিনিধি

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাঁওতাল পল্লীতে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও তিন সাঁওতাল হত্যা মামলায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) দেওয়া চার্জশিটের বিরুদ্ধে নারাজি পিটিশন দাখিল করা হয়েছে। 

বুধবার দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পার্থ ভদ্রের আদালতে এ নারাজি পিটিশন দাখিল করা হয়। বিচারক পিটিশন আমলে নিয়ে আগামী ৪ নভেম্বর পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন। এ মামলায় সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদসহ এজাহার নামীয় ১১ আসামিকে বাদ দিয়ে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দেওয়ায় নারাজি পিটিশন দাখিল করা হয়।

মামলার বাদী থমাস হেমব্রমের পক্ষে নারাজি পিটিশন দাখিলের পর শুনানি করেন সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জেড আই খান পান্না, অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম সিরাজী, গাইবান্ধা জজ আদালতের অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু ও মুরাদুজ্জামান রব্বানী।

আইনজীবী জেড আই খান পান্না বলেন, পিবিআইর দাখিল করা তদন্ত প্রতিবেদন মনগড়া, পক্ষপাতমূলক এবং সর্বোপরি ঘটনাকে আড়াল করা হয়েছে। যথেষ্ট সাক্ষ্যপ্রমাণ, তথ্য-উপাত্ত এবং সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও এজাহার নামীয় মূল আসামিসহ জড়িত কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা ও রংপুর চিনিকলের কর্মকর্তা ও শ্রমিক নেতাদের চার্জশিটে নাম বাদ রেখে রক্ষার চেষ্টা করা হয়েছে। এ ছাড়া চার্জশিটে বাদী পক্ষের লোকজনের নাম এবং জড়িত নয় এমন কয়েকজনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই মনগড়া ও মিথ্যা প্রতিবেদন দাখিলের কারণে বাদীসহ ভুক্তভোগীরা ক্ষতিগ্রস্ত এবং ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তাই পুনঃতদন্ত সাপেক্ষে জড়িত আসামিদের অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়ে এই পিটিশন দাখিল করা হয়েছে। পিটিশনে আসামিদের বিরুদ্ধে তথ্য-প্রমাণ ও যুক্তি উপস্থাপন করে বিচার বিভাগীয় পুনঃতদন্ত চাওয়া হয়েছে বলে জানান জেড আই খান পান্না।

এদিকে, পিবিআইর দেওয়া চার্জশিট প্রত্যাখ্যান করে এদিন দুপুরে সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি পুনরুদ্ধার সংগ্রাম কমিটির উদ্যোগে গোবিন্দগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়। সমাবেশ থেকে চার্জশিটে প্রকৃত আসামিদের অন্তর্ভুক্ত করাসহ জড়িতদের বিচার ও সাঁওতাল জনগোষ্ঠীর বাপ-দাদার সম্পত্তি ফেরত দেওয়ার দাবি জানানো হয়।

সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি পুনরুদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ডা. ফিলিমন বাস্কের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য দেন ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য, আইনজীবী জেড আই খান পান্না, সিপিবি গাইবান্ধা জেলা কমিটির সভাপতি মিহির ঘোষ, আদিবাসী বাঙালি সংহতি পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু, সিপিবি নেতা অ্যাডভোটেক মুরাদুজ্জামান রব্বানী, জেলা যুব ইউনিয়ন সভাপতি প্রতিভা সরকার ববি, সিপিবি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি তাজুল ইসলাম, ক্ষেতমজুর সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদুন্নবী মিলন, সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি পুনরুদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাফুরুল ইসলাম, মামলার বাদী থমাস হেমব্রম প্রমুখ।

২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর রংপুর চিনিকলের সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম এলাকায় সাঁওতালপল্লীতে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গত ২৮ জুলাই গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৯০ জনকে অভিযুক্ত করে পিবিআই গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল হাই সরকার চার্জশিট দাখিল করেন।

মন্তব্য


অন্যান্য