রংপুর

প্রথম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণে অভিযুক্ত অনার্সের ছাত্র

প্রকাশ : ০১ জুন ২০১৯

প্রথম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণে অভিযুক্ত অনার্সের ছাত্র

প্রতীকী ছবি

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলায় দুর্গম চরাঞ্চলে প্রথম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিশু কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

ছয় বছর বয়সী ওই শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে নির্যাতনের শিকার মেয়েটির পরিবারের লোকজন ও গ্রামবাসী বৃহস্পতিবার রাতে অনার্স পড়ুয়া মুক্তার হোসেনকে (২০) রাজিবপুর থানায় সোপর্দ করে।

এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে তার বিরুদ্ধে মামলার পর শনিবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এদিকে ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে রাজিবপুর উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ার পর শনিবার কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসা ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

গত ২৫ মে দুপুর ১২টার দিকে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে বলে সমকালকে জানিয়েছেন ঢুষমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রুহানী। নির্যাতনের শিকার মেয়েটির বাড়ি এই এলাকায় হলেও ঘটনা ঘটেছে রাজিবপুরে।

মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণিতে পড়ুয়া শিশুটি ঘটনার দিন দুপুরে বিদ্যালয় মাঠে খেলাধুলা করে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় একই গ্রামের অছিউজ্জামানের ছেলে ও টাঙ্গাইলের শ্রীপুর রহমত আলী মুক্তিযোদ্ধা সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র মুক্তার হোসেন শিশুটিকে একা পেয়ে তাকে পার্শ্ববর্তী ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

ঘটনার কথা সেদিনই তার মা জানতে পারলেও লোকলজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু বলেননি। এ অবস্থায় শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তার বাবা ঘটনাটি জানতে পেরে মুক্তার হোসেনকে ধরে আনেন। এক পর্যায়ে গ্রামবাসীরা জড়ো হলে তাদের সামনে সে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে। এরপর সেদিন রাতে তাকে থানায় সোপর্দ করা হয়।

এ প্রসঙ্গে ঢুষমারা থানার ওসি রুহানী জানান, শিশুটির মা বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

মন্তব্য


অন্যান্য