রংপুর

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করবে জাতীয় পার্টি: সোহেল রানা

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৮

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করবে জাতীয় পার্টি: সোহেল রানা

বৃহস্পতিবার ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলা জাতীয় পার্টি আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন সোহেল রানা -সমকাল

  ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা ও পীরগঞ্জ ( ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি

চিত্রনায়ক ও জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির সভাপতি সোহেল রানা বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, সে স্বপ্ন বাস্তবায়ন করবে জাতীয় পার্টি। জাতীয় পার্টিকে বাদ দিয়ে কোন উন্নয়ন সম্ভব হবে না। 

বৃহস্পতিবার ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলা জাতীয় পার্টি আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সোহেল রানা বলেন, মুখে যে যত বড় কথা বলুক না কেন, জাতীয় পার্টির পথেই সবাইকে চলতে হবে। 

তিনি আরও বলেন, প্রয়োজনে ৩শ আসনে নিজস্ব প্রার্থী দিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে জাতীয় পার্টি। নির্বাচনকে ভয় পাই না। জাতীয় পার্টি সব সময় নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য প্রস্তুত।

ঠাকুরগাঁও জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হাফিজ উদ্দীন আহম্মেদের সভাপতিত্বে রাণীশংকৈল ডিগ্রি কলেজ মাঠে আয়োজিত জনসভায় আরও বক্তৃতা করেন জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক রাজিউর রাজি স্বপন চৌধুরী। জনসভা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

নিজ গ্রামে চিরনিদ্রায় ‘ভাওয়াইয়া রাজা’


আরও খবর

রংপুর

সাংবাদিক ও ভাওয়াইয়া শিল্পী সফিউল আলম রাজা। ফাইল ছবি

  কুড়িগ্রাম ও চিলমারী প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার ব্রহ্মপুত্র পাড়ের জোড়গাছে পারিবারিক কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাংবাদিক ও ভাওয়াইয়া শিল্পী সফিউল আলম রাজা।

সোমবার সকাল ১১টায় চিলমারী উপজেলা সদরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে তার তৃতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় চিলমারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত আলী সরকার বীর বিক্রম, জেলা পরিষদের সদস্য রেজাউল করিম লিচু ও রেডিও চিলমারীর স্টেশন ইনচার্জ বশির আহমেদসহ স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক কর্মী এবং সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন। 

এরপর খরখরিয়া ভেলকা মন্ডলের মাঠে চতুর্থ নামাজে জানাজা শেষে বাদ জোহর তার মরদেহ দাফন করা হয়। এর আগে রোববার রাতে ঢাকার পল্লবীতে প্রথম এবং ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।  

রোববার দুপুরে ঢাকার পল্লবীতে সফিউল আলম রাজার প্রতিষ্ঠিত ভাওয়াইয়া গানের স্কুল কলতান-এর একটি কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ায় তার মৃত্যু হয় বলে জানান চিকিৎসকরা। 

সোমবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে তার মরদেহ ঢাকা থেকে কুড়িগ্রাম জেলা শহরে পৌঁছলে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে কিছুক্ষণের জন্য রাখা হয়। সেখানে স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। স্থানীয় সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ তার কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। 

সফিউল আলম রাজা ১৯৭১ সালে কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার খরখরিয়া ভট্টপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। শ্রোতা-দর্শকরা সফিউল আলম রাজাকে ডাকেন ‘ভাওয়াইয়া রাজা’, কেউবা ডাকেন ‘ভাওয়াইয়ার রাজকুমার’, আবার কেউবা ডাকেন ‘ভাওয়াইয়া’র ফেরিওয়ালা’ বলে। একজন ভাওয়াইয়া শিল্পীর পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকও।

ওস্তাদ নুরুল ইসলাম জাহিদের কাছে সংগীতের তাত্ত্বিক বিষয়ে জ্ঞান আহরণ করেন রাজা। তিনি বাংলাদেশ বেতারের ‘বিশেষ’ এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘প্রথম’ গ্রেডের শিল্পী। 

শিল্পী জীবনের স্বীকৃতি হিসেবে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আয়োজিত বেঙ্গল বিকাশ প্রতিভা অন্বেষণে লোকসঙ্গীতে (ভাওয়াইয়া গান নিয়ে) সারাদেশে শ্রেষ্ঠমান বিজয়ী নির্বাচিত হন রাজা। বেঙ্গল ফাউন্ডেশন থেকে রাজার একটি মিক্সড অ্যালবাম এবং ভায়োলিন মিডিয়া থেকে একক অ্যালবাম ‘কবর দেখিয়া যান’ প্রকাশিত হয়েছে। ভাওয়াইয়ার প্রচার-প্রসারে রাজা ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ‘ভাওয়াইয়া গানের দল’।

২০১১ সালে ঢাকায় প্রতিষ্ঠা করেন ‘ভাওয়াইয়া স্কুল’। তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কারপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ‘উত্তরের সুরে’ প্লেব্যাক করেছেন। রাজা একজন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক। দীর্ঘ ২৪ বছরের সাংবাদিকতা জীবনে প্রায় ১৪ বছরের বেশি সময় দৈনিক যুগান্তরে কাজ করেছেন। সাংবাদিকতায়ও অনেক পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন তিনি।

পরের
খবর

কয়েলের আগুনে পুড়ল ৯ ঘর ও ৭ গরু


আরও খবর

রংপুর

আগুনে পুড়ে যাওয়া ঘর -সমকাল

  রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে অগ্নিকাণ্ডে নয়টি বসতঘর সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। এ সময় আগুনের হাত থেকে বাঁচাতে পাশের আরও দুটি বসতঘর ভেঙে ফেলা হয়েছে।

সোমবার ভোর ৫টার দিকে উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের বাইমমারী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, বাইমমারী গ্রামের আমিনুল ইসলামের নগদ ৪ লাখ টাকাসহ বসতঘর, মাইনুল ইসলামের বসতঘরসহ সব আসবাবপত্র, ছক্কু মিয়ার ৩টি গরুসহ বসতঘর ও গরুর গোয়ালঘর, ফুল মিয়ার ৪টি গরুসহ গোয়ালঘর পুড়ে গেছে। এছাড়াও মোহাম্মদ আলীর বসতঘর ভেঙে ফেলা হয়েছে। আগুনে গোয়াল ঘরে থাকা ৭টি গরুর মধ্যে ৪টি মারা গেছে ও ৩টির অবস্থা আশঙ্কাজনক।

স্থানীয়রা জানায়, ফুল মিয়ার গোয়াল ঘরের কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পরে পাশের ঘরে রাখা গ্যাস সিলিন্ডারে আগুন লাগলে তা বিস্ফোরিত হয়ে মহূর্তে আগুন চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে নগদ অর্থসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। 

রৌমারী থানা ওসি আবু মো. দিলওয়ার হাসান ইনাম বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। গোয়াল ঘরের কয়েল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

পঞ্চগড়ের ২ হাজার দুস্থ পরিবারের পাশে জাপানি ৫ প্রতিষ্ঠান


আরও খবর

রংপুর

শীতবস্ত্র বিতরণের সময় জাপানের ৫ প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন -সংগৃহীত

  অনলাইন ডেস্ক

দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশে সুনামের সঙ্গে ব্যবসা করছে আজিনোমোতো, গ্রামীণ ইউনিক্লো, হোন্ডা, মেনথোল্যাটাম ও ওয়াইকেকে নামে ৫ জাপানি প্রতিষ্ঠান। ব্যবসার পাশাপাশি মানবতার কল্যাণেও অনন্য নজির স্থাপন করেছে তারা। 

পঞ্চগড় জেলার ২ হাজার পরিবারের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেছে তারা। কার্যক্রমটির উদ্বোধন করেন পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার ইউএনও শারমিন সুলতানা। 

তিনি বলেন, পঞ্চগড় জেলার মানুষের প্রতি জাপানের প্রতিষ্ঠানগুলোর এমন মহৎ ও উদার মানুষিকতার বহিঃপ্রকাশ দেখে আমি সত্যিই আবেগাপ্লুত। তারা সমাজের জন্য যা করছেন তা কৃতজ্ঞতা প্রকাশের অপেক্ষা রাখে না। এমন মহৎ কাজ সকলেই যেন করতে পারে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করছি আমি।

শীতবস্ত্র বিতরণের সময় জাপানের ৫ প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত বছরের নভেম্বরে প্রতিষ্ঠানগুলো ‘বি দ্যা লাইট’ প্রকল্পের আওতায় দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি সামাজিক উন্নয়ন ও মানবতার সেবায় একসঙ্গে কাজ করার ঘোষনা দেয়। প্রকল্পটির আওতায় অবহেলিত ও দুস্থ মানুষের সেবায় অনুদান, শীত ও বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে সহায়তা প্রদান এবং সামাজিক উন্নয়ন ও মানবসেবায় বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নেওয়া হবে বলে জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তি

সংশ্লিষ্ট খবর