প্রবাস

যুক্তরাষ্ট্রে মেহেদী উৎসবে বাঙালির ঈদ-আনন্দ

প্রকাশ : ০৭ জুন ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রে মেহেদী উৎসবে বাঙালির ঈদ-আনন্দ

  নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি

যুক্তরাষ্ট্র থেকে পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার সংবাদ জানার পরই সোমবার অপরাহ্নে পাল্টে যায় জ্যাকসন হাইটসের চেহারা। বাংলাদেশি এবং অন্যান্য দক্ষিণ এশিয়ান তরুণীরা টেবিল-চেয়ার নিয়ে পুরো এলাকা দখলে নেন। এরপর শুরু হয় মেহেদী রাঙানোর উৎসব।

এ উৎসবে তরুণীরা কারিগর হলেও খদ্দের ছিলেন সকল বয়সী নারী। কোন কোন তরুণ-যুবককেও হাতে মেহেদী লাগাতে দেখা যায়। আর এভাবেই মধ্যরাত অবধি হাজার হাজারো নারী-পুরুষের পদচারণায় মুখরিত থাকে নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসের মত জ্যামাইকা, ব্রঙ্কস এবং ব্রুকলীনের বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকাগুলো।

এদিন কোন কোন স্থানে মেহেদির আমেজে আনুষ্ঠানিক নৃত্য-গীতের আয়োজনও করা হয়। আর এ উৎসবের মধ্য দিয়ে প্রাণে প্রাণে মিশে যাওয়া বাঙালিরা মেহেদি-কারিগরদের বড় একটি আয়ের উৎস হিসেবেও পরিণত হচ্ছেন। আধ ঘন্টার কম সময়ে ৩০ থেকে ৫০ ডলার করে আয় হয় একেক খদ্দেরের কাছে থেকে। ৭/৮ ঘন্টায় কেউ কেউ ৫০০ ডলারের অধিক আয় করেছেন বলে জানা গেছে। আনন্দ-হাসি আর তামশার মধ্যে ঈদের আমেজকে নিবিড় করার এ কার্যক্রমে প্রবীণরাও এগিয়ে আসেন।

হাজার বছরের বাঙালি সংস্কৃতির ধারা এভাবেই বিকশিত এবং উজ্জীবিত হচ্ছে বহুজাতিক এ সমাজে। বলার অপেক্ষা রাখে না যে, ৪/৫ বছর আগে চাঁদরাতের এমন আয়োজন নিউ ইয়র্কের বিশেষ কয়েকটি শহরে হলেও এখন তা বাংলাদেশি এবং দক্ষিণ এশিয়ান জনপদের প্রতিটি শহরেই হচ্ছে। ঈদের দিন ঈদ জামাত ঘিরে যে ধরনের উচ্ছ্বাস-আনন্দের ঢেউ খেলা করে-একই ধরনের একটি নির্মল-বর্ণিল আর উচ্ছ্বাসে ভরে উঠে বাঙালির জীবন। প্রবাস-প্রজন্ম এভাবেই ঈদ-আনন্দে নতুন উদ্যাম পাচ্ছে।

এর আগের ২৮ দিন সন্ধ্যার প্রাক্কালে ইফতার-আয়োজনে মেতে থাকা জ্যাকসন হাইটসসহ বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট পাড়াগুলোর চেহারায় মেহেদী উৎসব যেন ভিন্ন এক আমেজে তৈরী করে। আর এমন আমেজেই অসাম্প্রদায়িক চেতনার মধ্যে মিশে যাচ্ছেন বাঙালিরা। এমন অনুভূতির সাথে সহমর্মিতা প্রকাশ করছে শহরের পুলিশ প্রশাসনও।

মন্তব্য


অন্যান্য