প্রবাস

সৈয়দ আশরাফের রোগমুক্তির জন্য নিউইয়র্কে দোয়া-মাহফিল

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০১৮

সৈয়দ আশরাফের রোগমুক্তির জন্য নিউইয়র্কে দোয়া-মাহফিল

সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের দ্রুত আরোগ্য কামনায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দোয়া-মাহফিল— এনআরবি নিউজ

  অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে নিউইয়র্কে দোয়া-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উদ্যোগে গত মঙ্গলবার রাতে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে এ দোয়া-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মাহফিল পরিচালনা করেন আওয়ামী ওলেমা লীগের নেতা মাওলানা সাইফুল আলম সিদ্দিকী। 

মোনাজাত শেষে সংক্ষিপ্ত এক আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুদ্দিন আজাদ এবং পরিচালনা করেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ।

নেতৃবৃন্দের মধ্যে এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি লুৎফুল করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান মহিউদ্দিন, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম দুলাল, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, উপ-দপ্তর সম্পাদক এম এ মালেক, উপদেষ্টা ডা. মাসুদুল হাসান প্রমুখ। সূত্র: এনআরবি নিউজ

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

বাঙালি সংস্কৃতি জাগ্রত রাখার সংকল্পে যুক্তরাষ্ট্রে গভীর শ্রদ্ধায় একুশে পালিত


আরও খবর

প্রবাস

জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে স্থাপিত শহীদ মিনারে রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে শ্রদ্ধাঞ্জলি— এনআরবি নিউজ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রবাস প্রজন্মে বাঙালি সংস্কৃতি জাগ্রত রাখতে নিজ নিজ অবস্থান থেকে প্রতিটি অভিভাবক কাজের সংকল্প ব্যক্ত করার পাশাপাশি সুদূর এই প্রবাসেও ঘাপটি মেরে থাকা সাম্প্রদায়িক দুর্বৃত্তদের চিহ্নিত ও বর্জনের আহ্বানের মধ্য দিয়ে মহান একুশে তথা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হলো যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায়।

দিবসটি উপলক্ষে ২০ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে কুইন্স প্যালেস, জেবিবিএ ও জ্যাকসন হাইটস এলাকাবাসীর উদ্যোগে পালকি পার্টি সেন্টার, বাংলাদেশ সোসাইটির উদ্যোগে গুলশান টেরেস, ব্রুকলিনে নোয়াখালী সোসাইটি ও চট্টগ্রাম সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠন, জ্যামাইকায় ফ্রেন্ডস সোসাইটি ও নর্থ বেঙ্গল ফাউন্ডেশন, নিউজার্সির প্যাটারসন ও আটলান্টিক সিটি, পেনসিলভেনিয়ার ফিলাডেলফিয়া, ফ্লোরিডা, লসএঞ্জেলেস, মিশিগান, শিকাগো, বস্টন, কানেকটিকাট, হাডসন, বাফেলো, হিউস্টন, ডালাস, আটলান্টায় শহীদ মিনার নির্মাণ করে একুশের প্রভাত ফেরীর পর শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। সব অনুষ্ঠানেই প্রবাস প্রজন্মের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়।

প্রায় সবগুলো অনুষ্ঠানেই বায়ান্নর একুশে ফেব্রুয়ারির স্মৃতিচারণ এবং মায়ের ভাষার জন্যে বাঙালির অকাতরে প্রাণ বিসর্জনের ঘটনাবলী উপস্থাপিত হয়। একুশের রক্তদানের পথ বেয়েই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিচক্ষণ নেতৃত্বে একাত্তরে বাঙালিরা মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে বলেও উল্লেখ করা হয়।

জেবিবিএ’র শহীদ মিনারে যুক্তরাষ্ট্র সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের শ্রদ্ধাঞ্জলি— এনআরবি নিউজ

এসব অনুষ্ঠানে আলোচকরা উল্লেখ করেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা রচনায় তার কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ দীপ্ত প্রত্যয়ে এগিয়ে চলছে এবং সীমিত সম্পদ নিয়ে উন্নয়ন-অগ্রগতির এ অভিযাত্রা বিবেকসম্পন্ন বিশ্ব অবাক বিস্ময়ে অবলোকন করছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ে প্রশংসিত হচ্ছে বাঙালির এগিয়ে চলা। মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর এ শিক্ষা একুশ দিয়েছে। খবর এনআরবি নিউজের

জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনে বুধবার রাত সাড়ে ৮টা থেকেই একুশের আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। রাত ১২টা ১ মিনিটে বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে স্থাপিত শহীদ মিনারে জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে সকলে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন। এরপর বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসার নেতৃত্বে কনস্যুলেটের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন।

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ঢাবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে নতুন প্রজন্মের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের সঙ্গে আয়োজক ও বিচারকরা— এনআরবি নিউজ

এছাড়া গত ২৭ বছরের মত এবারও জাতিসংঘ সদর দফতরের সামনে অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালির চেতনামঞ্চ। বাংলাদেশের সঙ্গে মিলিয়ে নিউইয়র্কে ২০ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১টা ১ মিনিটে (বাংলাদেশে একুশের প্রথম প্রহর) জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন ও কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসাসহ কূটনীতিকরা শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন।

পরের
খবর

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল


আরও খবর

প্রবাস

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শামীমা বেগম-সংগৃহীত ছবি

  লন্ডন প্রতিনিধি

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শামীমা বেগমের ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করেছে যুক্তরাজ্য। মঙ্গলবার পূর্ব লন্ডনে বসবাসরত শামীমার মায়ের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভেদ। 

শামীমার আইনজীবী তাসনিম আখঞ্জি গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান। শামীমা হোম অফিসের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন বলেও চিঠিতে জানানো হয়।

অন্যতম শীর্ষ ব্রিটিশ নিউজ চ্যানেল আইটিভি তাদের অনলাইন সংস্করণে শামীমার মায়ের কাছে লেখা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠিটি প্রকাশ করেছে। 

চিঠিতে শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্ত জানিয়ে বলা হয়, আপনার মেয়ের সর্বশেষ অবস্থা পর্যালাচনা করে তার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হোম সেক্রেটারি। চিঠির সাথে সংযুক্ত ডকুমেন্টটি এ বিষয়ক। সিরিয়া রিফিউজি ক্যাম্পে অবস্থানরত শামিমাকে এ তথ্য জানানোর পরামর্শও দেওয়া হয়। 

চিঠির বিষয়টি উল্লেখ করে শামিমার আইনজীবী তাসনিম আখঞ্জি এক টুইট বার্তায় বলেন, শামীমার নাগরিকত্ব বাতিলের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তে তার পরিবার মর্মাহত। তিনি জানান, বিষয়টি আইনগত চ্যালেঞ্জের জন্য তারা প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এর আগে, গত রোববার শামীমার পরিবারের আইনজীবী মোহাম্মদ তাসনিম আখুঞ্জি জানান, তারা জানতে পেরেছেন সিরিয়ায় শামীমা একটি সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এবং শিশুটি সুস্থ আছে।

আইনজীবী মোহাম্মদ তাসনিম আখুঞ্জি বলেন, এখনও শামীমার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করা যায়নি। তবে জেনেছি একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দিয়েছে শামীমা। ১৯ বছরের শামীমার এটি তৃতীয় সন্তান। তার আগের দুটি সন্তানই অপুষ্টি এবং বিনা চিকিৎসায় মারা গেছে। সিরিয়ায় গিয়ে এই তরুণী নেদারল্যান্ডস থেকে আসা একজন আইএস যোদ্ধাকে বিয়ে করেছিলেন। মাত্র ১৫ বছর বয়সে বাংলাদেশি অধ্যুষিত পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রিন এলাকা থেকে আরও দু’জন বান্ধবীসহ আইএসে যোগ দিতে সিরিয়ায় পালিয়ে গিয়েছিলেন শামীমা বেগম।

গত সপ্তাহে লন্ডনের দৈনিক দ্য টাইমসের একজন সাংবাদিক সিরিয়ার একটি শরণার্থী শিবিরে শামীমা বেগমের খোঁজ পান। তার বয়স এখন ১৯ এবং তিনি অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। ওই সাংবাদিকের মাধ্যমে তিনি ব্রিটিশ সরকারের কাছে আবেদন করেন যে তার আগত শিশু সন্তানের কথা বিবেচনা করে তাকে যেন ব্রিটেনে ফেরত আসতে দেওয়া হয়। এরপর থেকে ব্রিটেনে ব্যাপক বিতর্ক শুরু হয় যে, নিষিদ্ধ একটি জঙ্গি সংগঠনে যোগ দিতে যাওয়া এই তরুণীকে ফেরত আসতে দেয়া উচিত কি না।

সরকারের একজন মন্ত্রী জেরেমি রাইট সে সময় বিবিসিকে বলেছিলেন, শামীমা বেগমের সন্তানের নাগরিকত্ব সহজ বিষয় নয়। তিনি বলেন, তাকে (শামীমা) তার কর্মকাণ্ডের জন্য জবাবদিহি করতে হবে। শামিমাকে এ জন্য জবাবদিহি করতে হবে। ব্রিটেন থেকে যে কয়েকশ মুসলিম ছেলে-মেয়ে আইএসে যোগ দিতে সিরিয়া ও ইরাকে গিয়েছিল, তাদেরকে ফিরে আসতে দেয়া না দেয়া নিয়ে তখন থেকেই বিতর্ক চলছিল।

অবশ্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভেদ বিতর্ক শুরু হওয়ার পরই বলেছিলেন, আইএসে যোগ দিতে যাওয়া তরুণ-তরুণীরা যাতে না ফিরতে পারে সে চেষ্টা করে যাবেন তিনি। শামিমার নাগরিকত্ব বাতিলের মাধ্যমে তার সেই চেষ্টাই প্রতিফলিত হলো।

গত সপ্তাহে তুমুল লড়াইয়ের মধ্যে শামীমা বেগম আইএসের নিয়ন্ত্রণাধীন সর্বশেষ এলাকাটি থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছিলেন। তার স্বামী আত্মসমর্পণ করেছে বলে তিনি জানান।

পরের
খবর

লস অ্যাঞ্জেলেসে অদিতি মুন্সীর একক সংগীত সন্ধ্যা


আরও খবর

প্রবাস

ছবি: সমকাল

  লস অ্যাঞ্জেলেস প্রতিনিধি

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে কলকাতার চ্যানেল জি বাংলার জনপ্রিয় রিয়্যালিটি শো 'সা রে গা মা পা'র অন্যতম ফাইনালিস্ট কণ্ঠশিল্পী অদিতি মুন্সীর একক সংগীত সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার লস এঞ্জেলেসের ফাস্ট ইউনিটেরিয়ান চার্চ অডিটোরিয়ামে এ সংগীত সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়।

লস আ্যাঞ্জেলেসে বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য সার্বজনীন মন্দির নির্মাণে তহবিল সংগ্রহের জন্য অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে লস আ্যাঞ্জেলেস কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা, শিল্পী অদিতি মুন্সীর স্বামী দেবরাজ চক্রবর্তীসহ প্রবাসী বাঙালিরা উপস্থিত ছিলেন। 

সংশ্লিষ্ট খবর