প্রবাস

যুক্তরাষ্ট্রে ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত জন্মোৎসব পালিত

প্রকাশ : ০৪ নভেম্বর ২০১৮ | আপডেট : ০৪ নভেম্বর ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্রে ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত জন্মোৎসব পালিত

  নিউইয়র্ক সংবাদদাতা

পাকিস্তান গণপরিষদে পরিষদে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা হিসাবে স্বীকৃতি দাবী করেন ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত। একাত্তর সালে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর হাতে প্রাণ দেয়া সেই ভাষাবীরকে নিউইয়র্কের বাংলাদেশীরা স্মরণ করেছে তার জন্মদিনে। 

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায়, শহীদ হাসান এবং শুভ্রা গোস্বামীর গলায় জাতীয় সঙ্গীতের মধ্যে দিয়ে প্রবাসে এই প্রথমবারের মত তার জন্মদিন পালিত হলো। এসময় সকল শ্রোতা-দর্শক কণ্ঠ মেলান তাদের সঙ্গে। জ্যাকসন হাইটসে গত ২ নভেম্বর সন্ধ্যায় এ উৎসবের আয়োজন করে সদ্য গঠিত ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত পরিষদ, ইউএসএ।

জাতীয় সংগীতের পরপরই শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের প্রতিকৃতিতে। প্রথমে প্রদীপ প্রজ্বলন এবং পরে এক এক করে সবাই ফুল দেন এতে। সংগঠনের সভাপতি শিতাংশু গুহ'র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি গ্রন্থনা, উপস্থাপনা এবং পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল লিটন। অনুষ্ঠান পরিকল্পনায় ছিলেন সাংষ্কৃতিক কর্মী গোপাল স্যান্যাল।

স্বাগত বক্তব্যে শিতাংশু গুহ বলেন, 'আজ একটি ঐতিহাসিক ঘটনার জন্ম হলো। আমেরিকায় শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের জন্মোৎসব পালন করে আপনারা সবাই একটি ইতিহাসের অংশীদার ও সাক্ষী হয়ে থাকলেন। আগামী বছর ২১ এপ্রিল জ্যাকসন হাইটসের জুইস সেন্টারে প্রথম 'শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত' স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠিত হবে। তিনি স্বাধীনতা পুরস্কার পেয়েছেন, তার একুশে পদক পাওয়া উচিত।' 

এরপর ঢাকা থেকে তার নাতনী এরোমা দত্তের শুভেচ্ছা বাণী পড়ে শোনান বাবুল রোজারিও।

অনুষ্ঠানে সৈয়দ শামসুল হকের 'আমার পরিচয়' কবিতাটি আবৃত্তি করেন বাচিক শিল্পী গোপন সাহা। 'বীণে স্বদেশী ভাষা মিটে কি আশা' গানটি পরিবেশন করেন শুভ্রা গোস্বামী।

অনুষ্ঠানে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের ওপর একটি প্রভাষণ পাঠ করেন মিথুন আহমদ। তিনি ঠিক কি প্রস্তাব পাকিস্তান গণপরিষদে তুলেছিলেন, তা পাঠ করে শোনান ওবায়দুল্লাহ মামুন। সবশেষে প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্ল্যাহ সমাপনী বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত-সহ সকল শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পুরো অনুষ্ঠানটি উপভোগ করে প্রশংসা করেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাংষ্কৃতিক সম্পাদক মনিকা রায়, কবি নাসরিন চৌধুরী, সাংষ্কৃতিক ব্যক্তিত্ব বেলাল বেগ, সাংবাদিক মুহম্মদ ফজলুর রহমান, সমাজকর্মী নিনি ওয়াহেদ, প্রিয়তোষ দে, রেজাউল বারী, ফাহিম রেজা নূর, সুশীল সাহা, মোহাম্মদ আলম, বিশ্বজিৎ সাহা, প্রতিপ দাশ গুপ্ত, অধ্যাপিকা হোসনে আরা বেগম, প্রকাশ গুপ্ত, বিভাস মল্লিক ও প্রদীপ সাহা প্রমুখ।

মন্তব্য


অন্যান্য