প্রবাস

লন্ডনে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠান

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০১৮

লন্ডনে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠান

  সৈয়দ আনাস পাশা

বিশ্বের যে কয়েকজন ক্ষণজন্মা মহাপুরুষকে ইতিহাস মহানায়ক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে তাদের মধ্যে বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অন্যতম। এই মানুষটিকে ধারণ করে ইতিহাস নিজেই হয়েছে সমৃদ্ধ।

বুধবার স্থানীয় সময় দুপুরে পূর্ব লন্ডনের ব্রিকলেনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে তৎকালীন পাকিস্তান ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চের গোপন নথি নিয়ে 'সিক্রেট ডকুমেন্টস অব ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান' শীর্ষক বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রবীন সাংবাদিক আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরী এই মন্তব্য করেন। 

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুকের পরিচালনায় প্রকাশনা অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সৈয়দ নাহাস পাশা ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জোবায়ের। উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অধ্যাপক আবুল হাসেম, মুজাম্মিল আলি, যুগ্ম সম্পাদক মারুফ আহমদ চৌধুরী , সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ মিয়া ও আব্দুল আহাদ চৌধুরী প্রমুখ।

লন্ডনে বইটির আনুষ্ঠানিক প্রকাশনা ঘোষণা করে জাতীর জনকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ আব্দুল গাফ্‌ফার চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার যে তিনটি কাজ ইতিহাসের অংশ হওয়ার দাবি রাখে, এগুলো হলো বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও দণ্ড কার্যকর এবং বুদ্ধিবৃত্তিক পরিকল্পনা নিয়ে বঙ্গবন্ধুকে পুনর্নির্মাণ। 'সিক্রেট ডকুমেন্টস অব ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান' বই প্রকাশ বঙ্গবন্ধুকে পুনর্নির্মাণেরই অংশ।

তিনি বলেন, শত্রুপক্ষই সাক্ষ্য দিলো বঙ্গুবন্ধু বাঙালি জাতির জনক, বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা, তৎকালীন পাকিস্তান গোয়েন্দা বিভাগের এই রিপোর্টই হলো সেই সাক্ষীনামা।

আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরী আরও বলেন, 'সিক্রেট ডকুমেন্টস অব ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান' একটি অসাধারণ বই। কোনো রাজনৈতিক নেতার জীবন সম্পর্কে গোয়েন্দাদের দ্বারা সংগৃহিত তথ্য বিবরণী সম্বলিত এই ধরনের কোনো বই এর পূর্বে আর কোনো দেশে বের হয়েছে বলে আমার জানা নেই। বঙ্গবন্ধু কত বড় মাপের নেতা ছিলেন এই সিরিজের বইগুলো তা প্রমাণ করে। বাংলাদেশের রাজনীতি, সামাজিক জীবনের একটি নির্ভুল বিবরণও এই সিরিজের বইগুলো। প্রথম খণ্ড বেরিয়েছে, অন্যান্য খণ্ডও বেরোবে বলে আশা করছি।

অনুষ্ঠানের অন্যান্য বক্তারা বলেন, শেখ মুজিব বিশ্বময় উজ্জ্বল একটি নাম। বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের আলোকবর্তিকা ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার সংগ্রাম ছিল বাংলার মানুষকে শোষণ বঞ্চনার হাত থেকে রক্ষা করা। ছাত্রজীবন থেকে মৃত্যু পর্যন্ত তিনি সংগ্রাম করে গেছেন।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ তার বক্তৃতায় বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তৎকালীন পূর্ব বাংলা এবং পাকিস্তানের মধ্যে যে বৈষম্য ছিল সে বৈষম্যের কথা বলতে গিয়ে বার বার জেল খেটেছেন, বারবার তাকে কারাগারে যেতে হয়েছে। স্বাধীনতা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী দল আওয়ামী লীগের জন্ম, মিছিলে নেতৃত্ব দেওয়ার কারণে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কারাদণ্ড, বঙ্গবন্ধুর লেখা চিঠি, তার কাছে লেখা বিভিন্ন নেতা-কর্মী ও আত্মীয়-স্বজনের চিঠি, বিভিন্ন মিটিং ও জনসভায় দেওয়া ভাষণ, কারাগারে তার সঙ্গে আত্মীয়-স্বজন ও নেতা-কর্মীদের সাক্ষাৎকার সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রভৃতি তথ্য পাঠকরা পাবেন ‘সিক্রেট ডকুমেন্টস অব ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ বইটিতে।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব নানা ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে যেভাবে  বাংলার অবিসংবাদিত নেতায় পরিণত হলেন সেই পথচিত্র যেমন এই বইয়ে এসেছে, সেই সঙ্গে এসেছে বাঙালির স্বাধীনতা আন্দোলনের চূড়ান্ত পরিণতির দিকে এগিয়ে চলার মানচিত্র। বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্ন ছিল স্বাধীনতা।  আর স্বাধীনতার ইতিহাস ও নানা তথ্যের জন্য এই বই প্রামাণ্য দলিল হিসেবে ব্যবহৃত হবে।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

'প্রবাস প্রজন্মে বাঙালি সংস্কৃতি জাগ্রত রাখতে ফোবানার গুরুত্ব অপরিসীম'


আরও খবর

প্রবাস

  অনলাইন ডেস্ক

উত্তর আমেরিকায় জন্মগ্রহণকারী প্রজন্মে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতি জাগ্রত রাখতে ফোবানাকে (ফেডারেশন অব বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন্স ইন নর্থ আমেরিকা) অন্যতম প্ল্যাটফরম হিসেবে পরিণত করার আহবান জানালেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।

শুক্রবার ফোবানার শীর্ষ কর্মকর্তারা বাংলাদেশ মিশনে রাষ্ট্রদূতের সাথে সাক্ষাৎ করলে তিনি আহ্বান জানান। এনআরবি নিউজ

মাসুদ বিন মোমেন আরও বলেন, 'জাতিরজনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে অন্যতম মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত। এই অহংবোধকেও নতুন প্রজন্মে ছড়িয়ে দিতে হবে। তাহলেই বাংলাদেশ সম্পর্কে তাদের ধারণাও পাল্টে যাবে। আর এজন্যে ফোবানার গুরুত্ব অপরিসীম।'

আসছে লেবার ডে উইকেন্ড তথা সামনের বছরের ৩০-৩১ আগস্ট এবং ১ সেপ্টেম্বর ফোবানার ব্যানারে '৩৩তম বাংলাদেশ সম্মেলন' অনুষ্ঠিত হবে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডে নাসাউ কলিসিয়াম অডিটরিয়ামে। এ সম্মেলনের আয়োজক হচ্ছে নিউইয়র্কের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন 'ড্রামা সার্কল'।

ওই সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানাতে ফোবানার কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মীর চৌধুরী, সেক্রেটারী জাকারিয়া চৌধুরী, হোষ্ট কমিটি কনভেনর নার্গিস আহমেদ, মেম্বার সেক্রেটারি আবির আলমগীর, সাবেক চেয়ারম্যন বেদারুল ইসলাম বাবলা, নির্বাহী সদস্য কবির কিরন, মিডিয়া কমিটির কো-চেয়ারম্যন নিহার সিদ্দীকি সহ নেতৃবৃন্দ রাষ্ট্রদূত মাসুদের সাথে সাক্ষাৎ করেন।

একইদিন নেতৃবৃন্দ নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসাকেও আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বাংলাদেশ কন্স্যুলেটে গিয়ে। এ সময় দীপ্ত প্রত্যয়ে এগিয়ে চলা বাংলাদেশের পক্ষে প্রবাসে জনমত সুসংহত করতে ফোবানার এই সম্মেলনের গুরুত্ব অপরিসীম বলে উল্লেখ করেন সাদিয়া ফয়জুননেসা।

ফোবানার মধ্য দিয়ে প্রবাসীদের ঐক্যতানের বহিঃপ্রকাশ ঘটানোও সম্ভব, যা নতুন প্রজন্মকেও উজ্জীবিত করবে বলে উল্লেখ করেন সাদিয়া।

ফোবানার কর্মকর্তারা বলেন, বিষয়ভিত্তিক সেমিনার-সিম্পোজিয়াম ছাড়াও থাকবে দেশ বরেণ্য শিল্পী, সাহিত্যিক, সাংবাদিকদের সমন্বয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠান। থাকবে নতুন প্রজন্মের অনুষ্ঠানও। এর আগে তারা ওয়াশিংটন ডিসিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিনকে বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

আমিরাতে মীরসরাই জনকল্যাণ সংস্থার বর্ষপূর্তি উদযাপন


আরও খবর

প্রবাস

  ইউএই সংবাদদাতা

সংযুক্ত আরব আমিরাতের সামাজিক ও সেবামূলক সংগঠন মীরসরাই জনকল্যাণ সংস্থার প্রথম বর্ষপূর্তি উদযাপন করা হয়েছে। শুক্রবার গ্রীণসিটি আল আইনের এ্যারাবিক ম্যারেজ হলে আয়োজিত বর্ষপূর্তির আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সুমাইয়া গ্রুপ অব কোম্পানির চেয়ারম্যান ও মীরসরাই সমিতির সভাপতি ফখরুল ইসলাম খান সিআইপি। 

সংগঠনের সভাপতি জয়নাল আবেদীনের চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন ব্যবসায়ী ও কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ইউসুফ শরীফ টিপু। সাংগঠনিক সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চৌধুরী তানসেনের সঞ্চালনায় 

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন নিউজ২৪ এর আরব আমিরাত প্রতিনিধি সাংবাদিক কামরুল হাসান জনি, জনকল্যাণ সংস্থার সহ সভাপতি আবদুল মান্নান, সাধারণ সম্পাদক রবিউল হোসেন, সহ সম্পাদক নুরুল করিম, প্রচার সম্পাদক ফজলুল করিম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক কামাল হোসেন। 

বক্তারা বলেন, আঞ্চলিকতা চর্চার পাশাপাশি দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে প্রবাসীদের আরো বেশি সচেতন হতে হবে। নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশের সমৃদ্ধির জন্যে কাজ করতে হবে। 

প্রবাসের মাটিতে স্বদেশিদের কল্যাণে দীর্ঘ একবছর ধরে যেভাবে জনকল্যাণ সংস্থা কাজ করে যাচ্ছে, আগামীতেও অসহায় প্রবাসীদের পাশে থেকে কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে সংগঠনটি। অনুষ্ঠানে সিআইপি ফখরুল ইসলাম খানকে সংস্থার প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে মনোনীত করা হয়। 

এসময় অতিথি হিসেবে মীরসরাই সমিতি, জাতীয় কবিতা মঞ্চ, ঢাকা সমিতি, বন্ধু ফোরাম সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃত্বস্থানীয় সদস্যদের মধ্যে সালা উদ্দিন হেলাল, এনামুল হক নিজামী, মেজবাহ উদ্দিন, কবি মুহাম্মদ মুছা, জাফর উদ্দিন ভূঁইয়াসহ প্রায় ছয়'শ প্রবাসী উপস্থিত ছিলেন। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রীতি ভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। 


বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেন নুর উদ্দিন, মোহাম্মদ ইসলাম, মো. ইয়াসিন, জামশেদ আলম, আরিফ হোসেন ও সাহাদাত হোসাইন শামীম।

পরের
খবর

আমেরিকা বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত


আরও খবর

প্রবাস

  অনলাইন ডেস্ক

আমেরিকা বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের (এবিপিসি) কার্যকরী পরিষদের এক বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে নিউ ইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের চ্যানেল আই কার্যালয়ে।

শনিবার বিকাল ৫টার দিকে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা লাবলু আনসার এবং সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম। এতে সংগঠনের বাষির্ক সাধারণ সভা, আগামী নির্বাচনসহ সাংগঠনিক বিষয়ে আলোচনা হয়। খবর এনআরবি নিউজ

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন- প্রেসক্লাবেব সহ-সভাপতি মীর শিবলী, প্রেসক্লাবের নির্বাচন কমিশনার আকবর হায়দার কিরণ ও মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহমেদ, ক্লাবের সিনিয়র সদস্য মিজানুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ আবুল কাশেম, কার্যকরী সদস্য কানু দত্ত, আজিম উদ্দিন অভি, পপি চৌধুরী, তপন চৌধুরী, জাহেদ শরীফ, মিশুক সেলিম, মোহাম্মদ হোসেন দীপু, আমজাদ হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা পেশাগত মর্যাদা অটুট রাখার মধ্য দিয়ে বহুজাতিক এই সমাজে বাঙালিদের ইমেজকে মহিমান্বিত রাখার সংকল্প ব্যক্ত করেন। একইসাথে কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যেকার সম্প্রীতির বন্ধন সুসংহত রাখতেও সকলকে আহবান জানানো হয়।

দীর্ঘ আলোচনার পর গৃহিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সপরিবারে 'থ্যাংকস গিভিং ডে' উদযাপন এবং ২২ ডিসেম্বর 'সাধারণ সভা'র তারিখ নির্ধারণ করা হয়। সেই সভাতেই পরবর্তী দু'বছরের জন্যে নতুন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া অবলম্বনের কথাও সকলে উল্লেখ করেন।

সভায় প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য জামান তপনের মায়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর