বন্দর নগরী

চট্টগ্রামে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে মতবিনিময়

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশে বায়ু দূষণ ৪% কমবে

প্রকাশ : ২৭ মে ২০১৯

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশে বায়ু দূষণ ৪% কমবে

ফাইল ছবি

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

বিশ্বব্যাপী বায়ু দূষণের কারণে প্রতি বছর মারা যাচ্ছে প্রায় ৭০ লাখ মানুষ। বায়ু দূষণ এবং জলবায়ু পরিবর্তনজতিন ঝুঁকিতে আছে বাংলাদেশও। বায়ু দূষণের কারণে বাড়ছে স্বাস্থ্যজনিত সমস্যাও। আর এ বায়ু দূষণের জন্য বাংলাদেশ দায়ী মাত্র দশমিক শূন্য ৩৫ ভাগ। তাই পরিবেশসম্মত টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করার জন্য আগামী ২০৩০ সালে মধ্যে সরকার এ দূষণ আরও চার শতাংশ কমাবে। যদি কোনো দাতা সংস্থা এ ক্ষেত্রে সহায়তা করে তবে তা ১০ শতাংশে উন্নিত করা হবে।

সোমবার দুপরে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে মত বিনিময় সভায় পরিবেশ অধিদফতরের চট্টগ্রাম মহানগরের পরিচালক আজাদুর রহমান মল্লিক এসব কথা বলেন। অধিফতরের হালদা কনফারেন্স কক্ষে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

আজাদুর রহমান মল্লিক বলেন, বায়ু দূষণের জন্য মূলত গাড়ির কালো ধোয়া, কলকারখানার ধোয়া এবং উন্নয়নমূলক কার্মযজ্ঞ বিশেষভাবে দায়ী। পরিবেশ অধিদফতর বিভিন্ন ভারী শিল্প কারখানার বায়ু পরিশোধন ব্যবস্থা রাখার বাধ্যবাধকতা রেখেছে। যারা এসব নিয়ম মানছে না তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় অভিযানও পরিচালনা করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, বাযু দূষণ রোধ করার জন্য শুধু পরিবেশ অধিদফতরের দিকে না তাকিয়ে সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। তবে সবার জন্য নির্মল পরিবেশ নিশ্চিত হবে।

অধিদফতরের সহকারী পরিচালক সংযুক্তা দাশ গুপ্তার সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধিদফতরের গবেষণাগারের পরিচালক নূর উল্লাহ নূরী এবং বায়ু দূষণের ওপর আলোচনা করেন গবেষণাগারের উপ-পরিচালক মো. জমির উদ্দিন।

মন্তব্য


অন্যান্য