বন্দর নগরী

চট্টগ্রামে আবাসিকে গ্যাস সংকট

প্রকাশ : ০৪ নভেম্বর ২০১৮

চট্টগ্রামে আবাসিকে গ্যাস সংকট

ফাইল ছবি

   চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন এলাকায় রোববার সকাল থেকে বাসা-বাড়িগুলোতে গ্যাস সংকট দেখা দিয়েছে। নগরীর অধিকাংশ এলাকার বাসা-বাড়িতে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত রান্নার চুলায় গ্যাস মেলেনি। এ কারণে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় নগরবাসীকে। সকালের নাশতার আয়োজন বিকল্প উপায়ে ব্যবস্থা করার পাশাপাশি দুপুরের খাবার নিয়েও বিড়ম্বনায় পড়তে হয় তাদের। অনেকেই গ্যাসের চুলার বিকল্প হিসেবে কেরোসিনের চুলা ব্যবহার করেছেন। আবার অনেকে বাইরের হোটেল-রেস্টুরেন্ট থেকে খাবার কিনে এনেছেন।

গ্যাস সংকটের কারণ হিসেবে সিলেটের বিবিয়ানায় গ্যাসের প্রধান লাইনে সমস্যার কথা জানিয়েছেন নগরীর কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (কেজিডিসিএল) ম্যানেজার (কাস্টমার অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) ইঞ্জিনিয়ার অনুপম দত্ত।

এ প্রসঙ্গে তিনি সংবাদ মাধ্যমকে জানান, বিবিয়ানায় গ্যাসের প্রধান লাইনে কাজ চলছে। কাজ শেষ হলে গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হবে। তবে কবে নাগাদ কাজ শেষ হবে সে ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারেননি।

সংশ্লিষ্ট খবর


মন্তব্য যোগ করুণ

পরের
খবর

আমীর খসরু জামিনে মুক্ত


আরও খবর

বন্দর নগরী
আমীর খসরু জামিনে মুক্ত

প্রকাশ : ১২ নভেম্বর ২০১৮

আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী -ফাইল ছবি

   চট্টগ্রাম ব্যুরো

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পান।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় নওমী নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে ‘ফোনালাপ’-এর ঘটনায় করা মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে গত ২১ অক্টোবর কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। গত ৪ আগস্ট নগরের কোতোয়ালি থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭(২) ধারা ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫/৩ ধারায় মামলাটি করেন নগর ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর। নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান ছাত্র আন্দোলনের সুযোগ নিয়ে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ আনা হয় মামলায়।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র তত্ত্বাবধায়ক প্রশান্ত কুমার বণিক বলেন, উচ্চ আদালত থেকে রোববার জামিননামা আসে কারাগারে। এটি যাচাই–বাছাই করে আমীর খসরুকে মুক্তি দেওয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

৪ মাস জেল খেটে পুলিশের সহায়তায় মুক্তি পেলেন নিরাপরাধ অমর


আরও খবর

বন্দর নগরী

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর অমর দাশকে ফুল দিয়ে বরণ করেন সদরঘাট থানার ওসি নেজাম উদ্দিন -সমকাল

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

চাচাতো ভাইয়ের কারসাজিতে বিনা অপরাধে চার মাস জেল খাটার পর অবশেষে মুক্তি পেয়েছেন অমর দাশ নামে এক ব্যক্তি। রোববার উচ্চ আদালতের নির্দেশে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

গত ৫ জুলাই অস্ত্র মামলার সাজা পরোয়ানামূলে তাকে গ্রেফতার করেছিল নগরীর সদরঘাট থানা পুলিশ। অস্ত্র মামলায় তার চাচাতো ভাই স্বপন দাশ দণ্ডিত হলেও কৌশলে তিনি নিজের নামের জায়গায় অমর দাশের নাম উল্লেখ করেছিলেন। র‌্যাবকে বিভ্রান্ত করে ফাঁসিয়ে দিয়েছিলেন তাকে। বিষয়টি অবগত করা হলে গত ২৮ অক্টোবর হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ তাকে সাজার দায় থেকে অব্যাহতি দিয়ে মুক্তির আদেশ দেন। নিরপরাধ অমর দাশ সাতকানিয়া উপজেলার উত্তর বামনডেঙ্গা গ্রামের রেবতী জলদাশের ছেলে।

এ প্রসঙ্গে নগরীর সদরঘাট থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, 'অমরকে গ্রেফতারের পর আমরা জানতে পারি, অস্ত্র মামলায় দণ্ডিত হয়েছেন তার চাচাতো ভাই স্বপন দাশ। তিনি কৌশলে মামলার নথিপত্রে নিজের নাম অমর বলেন। এতে নিরপরাধ অমর ফেঁসে যান। এই তথ্য পাওয়ার পর আমরা স্বপনকেও গ্রেফতার করেছি। স্বপন স্বীকার করেছে সে তার ভাইকে ফাঁসিয়েছিল। তারপর আমরা নিরপরাধ অমরকে মুক্ত করার জন্য আইনি লড়াইয়ে সহযোগিতা করি তাকে।'

২০০৪ সালের আগস্ট মাসে নগরীর ডবলমুরিং থানা এলাকায় বন্দুকযুদ্ধের পর স্বপনসহ চারজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। স্বপনের পায়ে গুলিবিদ্ধ হওয়ায় সে পঙ্গু হয়ে যায়। তাদের ডাকাত উল্লেখ করে অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে আলাদা দুটি মামলা দায়ের হয়। ওই মামলায় তিন বছর জেল খেটে ২০০৭ সালে জামিনে বের হয় সে। মামলা দায়েরের সময় তাকে যখন তার নাম জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, তখন অমর দাশ বলেছিল সে।

স্বাভাবিকভাবেই দুটি মামলার এজাহারে তার নাম ছিল অমর দাশ। ২০১৭ সালে অস্ত্র মামলায় ১৭ বছর এবং বিস্ফোরক আইনে পাঁচ বছরসহ মোট ২২ বছরের সাজা হয় স্বপনসহ অন্য আসামিদের। এজাহারে স্বপনের (অমর) ঠিকানা লেখা আছে সদরঘাট থানা এলাকায়। জামিনে বেরিয়ে স্বপন পালিয়ে গেলে আদালত থেকে সাজা পরোয়ানা আসে সদরঘাট থানায়। সেই পরোয়ানামূলে গত ৫ জুলাই অমরকে গ্রেফতার করা হয়। আকস্মিক গ্রেফতারে বিস্মিত হন তিনি। পুলিশ প্রথমে ভেবেছিল, অমর অভিনয় করছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। পরে কারাগারে গিয়ে ২০০৪ সালে গ্রেফতার হওয়া আসামির শনাক্তকরণ চিহ্ন মেলায় পুলিশ। তখন ছবি সংরক্ষিত থাকত না। শনাক্তকরণ চিহ্নে মিল পাওয়া যায়নি। এরপর পুলিশ ওই মামলায় কারাগারে থাকা আসামি মতিনকে দিয়ে অমরকে শনাক্ত করার চেষ্টা করে।

মতিন জানান, ২০০৪ সালে গ্রেফতার হওয়া আসামি (স্বপন) আর অমর আলাদা ব্যক্তি। নাম বদলের বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে গত ২৩ আগস্ট প্রকৃত স্বপনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারের পর স্বপন পুরো বিষয় স্বীকার করে পুলিশের কাছে জবানবন্দি দেয়। এরপর আইনি প্রক্রিয়া শেষে মুক্তি পান নিরপরাধ অমর।

সংশ্লিষ্ট খবর

পরের
খবর

জামায়াত ও বিএনপি নেতাসহ ১৬ জনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ


আরও খবর

বন্দর নগরী

ফাইল ছবি

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর জামায়াতের সাবেক আমির ও সাবেক সাংসদ এবং বিএনপির চার নেতাসহ ১৬ জন সম্ভাব্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। রোববার জেলা প্রশাসন কার্যালয় থেকে তারা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন।

চট্টগ্রাম মহানগর জামায়াতের সাবেক আমির ও সাবেক সাংসদ আ ন ম শামসুল ইসলাম স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসন থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এই আসনটি জামায়াতের ঘাটি হিসেবে পরিচিত। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কোষাধক্ষ্য ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম চট্টগ্রাম-৯ (কোতোয়ালী) ও ১০ (ডবলমুরিং) আসন থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। এছাড়াও আওয়ামী লীগ থেকে আরও দুইজন সম্ভাব্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

এদিকে, বিএনপির চার নেতা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। তাদের মধ্যে চট্টগ্রাম-১ মীরসরাই আসন থেকে মুনিরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম-২ ফটিকছড়ি আসন থেকে গিয়াস কাদের চৌধুরী ও সারোয়ার আলমগীর এবং চট্টগ্রাম-৩ সন্দ্বীপ আসন থেকে নুরুল মোস্তফা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। বাকি ৮ জন প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন।

চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান সমকালকে বলেন, ‘বিভিন্ন দলের ব্যানারে ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ সম্ভাব্য ১৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। অনেক প্রার্থী নিজে এসে ফরম সংগ্রহ করেছেন। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমাও দিয়েছেন। সবকিছু মিলে উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচনের ফরম নেওয়া ও জমার কাজ চলছে।’

রোববার সকাল থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এসব মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হয়।

সংশ্লিষ্ট খবর