রাজনীতি

ডাকসু পুনর্নির্বাচনের দাবি গণতান্ত্রিক জোটের

প্রকাশ : ১১ মার্চ ২০১৯ | আপডেট : ১১ মার্চ ২০১৯

ডাকসু পুনর্নির্বাচনের দাবি গণতান্ত্রিক জোটের

  সমকাল প্রতিবেদক

ডাকসু নির্বাচনে নানা অনিয়ম ও জালিয়াতির অভিযোগ তুলে ধরে এর নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। একই সঙ্গে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন তারা।

সোমবার বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের এক বিবৃতিতে এই দাবি জানানো হয়। 

বিবৃতিতে বলা হয়, স্বাধীনতার পর ১৯৭৩ সালে ব্যালট বাক্স ছিনতাই করার মধ্য দিয়ে যে কলঙ্কজনক অধ্যায় ছাত্রলীগ শুরু করেছিল, এবারের ডাকসু নির্বাচনে তাই ভিন্নরূপে প্রকাশিত হয়েছে। কুয়েত-মৈত্রী হলে ভোট শুরুর আগে আগাম ব্যালট পেপারে ভোট দিয়ে বস্তা ভর্তি করে রাখা বাস্তবে জাতীয় নির্বাচনের মতই এ নির্বাচনে ভোট ডাকাতির জ্বলন্ত নজির।

অবিলম্বে প্রহসনের ডাকসু নির্বাচন বাতিল করে ছাত্রসমাজের দাবি অনুযায়ী পুনরায় নির্বাচন দেওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়ে নেতারা বলেন, অতীতে ছাত্রসমাজ বিশেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা সামরিক-বেসামরিক সব স্বৈরাচারের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে সোচ্চার হয়েছে। তারই পদাংক অনুসরণ করে বর্তমানেও সব অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে শিক্ষার গণতান্ত্রিক অধিকার ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ভূমিকা রাখবে। একই সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে সব দুঃশাসনের অবসান ঘটাবে- এটাই জাতির প্রত্যাশা।

সিপিবি’র নিন্দা: বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম আরেক বিবৃতিতে ডাকসু নির্বাচনে নানা অনিয়মের নিন্দা জানিয়েছেন। তারা বলেছেন,ডাকসু নির্বাচনে সংঘটিত অপকর্মগুলো অদৃষ্টপূর্ব। ডাকসুর ইতিহাসে এমন কলঙ্ক আর কখনো সংঘটিত হয়নি। আর এই নির্বাচনে যা হলো তা গোটা নির্বাচনব্যবস্থাকে ফের কলঙ্কিত করেছে। আইয়ুব, এরশাদ আমলেও ডাকসু নির্বাচনে এমন কলঙ্ক হয়নি। 

পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের যৌথ সংগ্রামের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে নেতারা বলেন, সরকার যে নির্বাচনী সংস্কৃতি সৃষ্টি করেছে তা রুখে দেওয়া জরুরি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগ্রামী ছাত্ররা লড়াইয়ের মাধ্যমে কর্তৃপক্ষকে নির্বাচন বাতিলে বাধ্য করতে সক্ষম হবে এবং নিজেদের সংগ্রামী ঐতিহ্য সংরক্ষণে সক্ষম হবে বলে আমরা আশা করছি।

মন্তব্য


অন্যান্য