রাজনীতি

কৃষিকে লাভজনক করাই বড় চ্যালেঞ্জ: কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশ : ০৮ জানুয়ারি ২০১৯

কৃষিকে লাভজনক করাই বড় চ্যালেঞ্জ: কৃষিমন্ত্রী

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

নতুন মন্ত্রিসভার কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক দায়িত্ব নিয়েই প্রথম প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, সরকার পুষ্টিকর ও নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে বধ্যপরিকর। আগামীতে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ গড়ার জন্য তরুণ প্রজন্মকে দক্ষ মানব সস্পদ হিসেবে গড়ে তোলার প্রধান নিয়ামক হচ্ছে খাদ্য নিরাপত্তা। কৃষি মন্ত্রণালয়ের বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে কৃষিকে লাভজনক করা, নিরাপদ খাদ্য ও পুষ্টিকর খাদ্য নিশ্চিত করা। আমরা এ জন্য যে ভিশন নিয়েছি তা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাস্তবায়ন করবো।

মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে প্রথম কর্মদিবসে তিনি এ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। এর আগে মন্ত্রণালয় এবং বিভিন্ন দফতর সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, শেখ হাসিনার সময়ে খোরপোষের কৃষি বাণিজ্যিক কৃষি হয়েছে, খাদ্য ঘটতির দেশ এখন খাদ্য রফতানি করছে। বাংলাদেশ দানাদার খাদ্য উৎপাদনে বিশ্বের রোল মডেল। কৃষিকে বাজারজাত,পক্রিয়াজাত ও সঠিক মুল্য নির্ধারণ করার মাধ্যমে কৃষিকে লাভজনক ও বাণিজ্যিক কৃষিতে রুপান্তর করতে সবাইকে অংশগ্রহন করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দিন বদল হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছে। এক সময় বাংলাদেশের নাম লেখা হতো অন্যতম দরিদ্র দেশ হিসেবে। আজ সেই সুযোগ আর নেই। বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশ, সামনে ডেলটা প্লান বাস্তবায়নের মাধ্যমে বিশ্বের বুকে মাথা উচু করে থাকবে উন্নত জাতি হিসেবে।

প্রতিথযশা কৃষিবিদ ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইল-১ (মধুপুর-ধনবাড়ী) আসনে নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করে চতুর্থবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

উল্লেখ্য ২০০১ সালে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন কৃষিবিদ ড. রাজ্জাক। ২০০৮ সালে দ্বিতীয়বারের মতো জয়ী হয়ে ২০০৯-২০১২ পর্যন্ত তিনি খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন। পরে মন্ত্রণালয় বিভক্ত হলে ২০১৪ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত তিনি খাদ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৪ সালের নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিনি তৃতীয় মেয়াদে সংসদ সদস্য হয়ে অর্থমন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

মন্তব্য


অন্যান্য