সংসদ

নতুন আইনে কুকুর বেঁধে রাখলে জেল-জরিমানা

প্রকাশ : ০৭ জুলাই ২০১৯ | আপডেট : ০৭ জুলাই ২০১৯

নতুন আইনে কুকুর বেঁধে রাখলে জেল-জরিমানা

  সমকাল প্রতিবেদক

চলাফেরার সুযোগ না দিয়ে কুকুরকে টানা ২৪ ঘণ্টা বেঁধে বা আটকে রাখলে এখন থেকে তা নিষ্ঠুরতা হিসেবে গণ্য হবে। এ অপরাধে ছয় মাসের জেল এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে। মালিকানাবিহীন কোনো প্রাণি হত্যা করলেও একই শাস্তি ও অর্থদণ্ডের মুখে পড়তে হবে। তবে ভেটিরিয়ান সার্জনের লিখিত পরামর্শ ও পদ্ধতি অনুসরণ করে যুক্তিসঙ্গত কারণে কোন প্রাণির অজ্ঞান ও ব্যথাহীন মৃত্যু ঘটানো হলে তা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না।

এসব বিধান রেখে রোববার জাতীয় সংসদে 'প্রাণিকল্যাণ বিল ২০১৯' পাস হয়েছে। রোববার বিকেল পাঁচটায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরুর পর বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন মৎস ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু। পরে সেটি কণ্ঠভোটে পাস হয়। এর আগে বিলের ওপর বিরোধীদলীয় সদস্যদের দেওয়া জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে পাঠানো এবং সংশোধনী প্রস্তাবগুলো কণ্ঠভোটে নিষ্পত্তি করা হয়। ১০ মার্চ বিলটি সংসদে প্রথমবার উত্থাপন করা হয়।

১৯২০ সালের পশুর প্রতি নিষ্ঠুরতা নিরোধ আইন বাতিল করে নতুন আইন করার জন্য বিলটি পাস করা হয়েছে। এই আইন লংঘন করলে কিংবা লংঘনে সহায়তা করতে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। আগে এসব অপরাধের জন্য শাস্তি ছিল তিন মাসের জেল এবং ১ হাজার টাকা জরিমানা। নতুন বিল অনুযায়ী, এই আইনের অধীন অপরাধের বিচারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা যাবে। অবশ্য এর আগে মোবাইল কোর্ট আইনের তফসিলে তা অন্তর্ভূক্ত করতে হবে।

বিলে আরো বলা হয়েছে, নিবন্ধন ছাড়া বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে পোষা প্রাণী উৎপাদন করা যাবে না। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোনো প্রাণিকে দৈহিক কলাকৌশল প্রদর্শনের জন্য ব্যবহার কিংবা এজন্য প্রশিক্ষণও দেওয়া যাবে না। তবে প্রতিরক্ষা বাহিনী, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ, পুলিশ, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী ও কোস্টগার্ডের ক্ষেত্রে এই বিধান প্রযোজ্য হবে না। একই সঙ্গে খাদ্য হিসেবে ব্যবহারের জন্য প্রাণী জবাই এবং ধর্মীয় উদ্দেশ্যে উৎসর্গের সময় যেকোন ধর্মাবলম্বী ব্যাক্তি নিজস্ব আচার অনুযায়ী কোনো কার্যক্রম গ্রহণ করলে তা নিষ্ঠুরতা হিসেবে গণ্য হবে না বলেও বিলে উল্লেখ করা হয়েছে।

পরে মৎস ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী ভেটেরিনারি কাউন্সিল বিল-২০১৯ পাসের প্রস্তাব করলে সেটিও কণ্ঠভোটে পাস হয়। ১৯৮২ সালের ভেটেরিনারি প্রাকটিশনারস অর্ডিন্যান্স বাতিল করে নতুন আইন করতে এ বিলটি সংসদে পাস করা হয়েছে।

মন্তব্য


অন্যান্য