সংসদ

সংসদে বাজেট পাস

প্রকাশ : ০১ জুলাই ২০১৯ | আপডেট : ০১ জুলাই ২০১৯

সংসদে বাজেট পাস

  বিশেষ প্রতিনিধি

জাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের বাজেট পাস হয়েছে রোববার। টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর আওয়ামী লীগ সরকারের প্রথম বছরের প্রথম বাজেট এটি। আর অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের এটি প্রথম বাজেট। রোববার সকাল ১০টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশন বসার পর ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পাস হয় কণ্ঠভোটে।

এর আগের দিন শনিবার অর্থবিলের মাধ্যমে এ বাজেটের করপ্রস্তাবগুলো পাস হয়। ফলে সোমবার ১ জুলাই থেকে বাস্তবায়ন শুরু হবে নতুন বাজেট। গত ১৩ জুন অর্থমন্ত্রী সংসদে পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করেন। এর মধ্যে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার দুই লাখ দুই হাজার কোটি টাকা। ৫ শতাংশ ঘাটতি ধরে ২০১৯-২০ অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপির প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয় ৮ দশমিক ২ শতাংশ।

বাজেট পাসের সময় প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা এবং বিরোধীদলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ উপস্থিত ছিলেন। আগের দিন শনিবার সংসদে বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, 'নতুন বাজেট বাস্তবায়ন হলে সবাই উপকৃত হবেন।' অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, 'এবারের বাজেটে এমন কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, যার ফলে দীর্ঘ মেয়াদে এর সুফল মিলবে।'

এবারের বাজেটে সম্ভাব্য ব্যয়ের ৭২ শতাংশ রাজস্ব খাত থেকে পাওয়ার আশা করছে সরকার। বাজেটে রাজস্ব খাতে আয় ধরা হয়েছে তিন লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। এই অঙ্ক বিদায়ী অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের ১৯ শতাংশের বেশি। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে কর হিসেবে তিন লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকা আদায় করা যাবে বলে সরকারের তরফ থেকে আশা করা হচ্ছে। অর্থমন্ত্রী জানান, রাজস্ব আদায় বাড়াতে এবার নতুন কোনো কর আরোপ করা হয়নি; বরং করের আওতা বাড়িয়ে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা হবে। অর্থমন্ত্রীর বাজেট পেশ করার পর সেই বাজেটের ওপর ২৫৫ জন সংসদ সদস্য মোট ৫১ ঘণ্টা ৫২ মিনিট আলোচনা করেন। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনের শুরুতেই মঞ্জুরি দাবিতে আলোচনা করার কথা জানান। বিরোধী দল ও স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা এসব দাবিতে আলোচনা করেন।

নির্দিষ্টকরণ বিল পাস: নতুন অর্থবছরের বাজেট ব্যয়ের বাইরে সরকারের বিভিন্ন ধরনের সংযুক্ত দায় মিলিয়ে মোট ছয় লাখ ৪২ হাজার ৪৭৮ কোটি ২৭ লাখ ২০ হাজার টাকার নির্দিষ্টকরণ বিল জাতীয় সংসদে কণ্ঠভোটে পাস হয়। এর মধ্যে সংসদ সদস্যদের ভোটে গৃহীত অর্থের পরিমাণ চার লাখ ৮০ হাজার ৫১৩ কোটি ৮২ লাখ ৪০ হাজার টাকা এবং সংযুক্ত তহবিলের ওপর দায় ছয় লাখ ৪২ হাজার ৪৭৮ কোটি ২৭ লাখ ২০ হাজার টাকা।

মঞ্জুরি দাবি ও ছাঁটাই প্রস্তাব: বাজেটের ওপর সংসদে উত্থাপিত বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের ৫৯টি মঞ্জুরি দাবির বিপরীতে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি, বিএনপির সদস্যরা ৪৮৪টি বিভিন্ন ধরনের ছাঁটাই প্রস্তাব আনেন। এর মধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, কৃষি মন্ত্রণালয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের দাবি ও ছাঁটাই প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হয়। বিরোধী দল ও স্বতন্ত্র সদস্যদের আলোচনার পর সব প্রস্তাব কণ্ঠভোটে বাতিল হয়ে যায়।

অর্থমন্ত্রীর নৈশভোজে প্রধানমন্ত্রী: বাসস জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের আমন্ত্রণে বাজেট পাস-পরবর্তী নৈশভোজে অংশ নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছে অতিথিদের বিভিন্ন টেবিলে যান এবং তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

মন্তব্য


অন্যান্য