ময়মনসিংহ

দুই ভাইয়ের পরিবারের সংঘর্ষে বাবা-ছেলেসহ নিহত ৩

প্রকাশ : ১৪ আগষ্ট ২০১৯ | আপডেট : ১৪ আগষ্ট ২০১৯

দুই ভাইয়ের পরিবারের সংঘর্ষে বাবা-ছেলেসহ নিহত ৩

স্বজনদের আহাজারি -সমকাল

  ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার রড়হিত ইউনিয়নের কাঁঠালডাঙ্গি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- ওই গ্রামের আবুল হাসেম (৫৫), তার ছেলে জহিরুল ইসলাম (২৫) ও একই গ্রামের আব্দুর রাশেদের ছেলে আজিবুল ইসলাম (২৮)।

পুলিশ জানায়, নিহত আবুল হাশেম ও আব্দুর রশিদ দুই ভাই। ৪ মাস আগে বাড়ির পাশের মসজিদের ছাদে উঠে দুষ্টামি করায় আব্দুর রাশেদের নাতি মিজানকে চড়-থাপ্পর দেন আবুল হাসেম। সে সময় এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। এ বিষয়ে থানায় মামলাও দায়ের করা হয়। পরে ঈদুল আজহার ছুটিতে তাদের বড় ভাই হায়দার মাস্টারের ছেলে হারুন মিয়া বিষয়টি মিমাংশার উদ্যোগ নেন। এ উপলক্ষ্যে বুধবার সকালে দু’পক্ষকে নিয়ে সালিশে বসেন তিনি। এ সময় আবুল হাসেমের পক্ষ মিমাংশায় রাজি হলেও আবুদর রাশেদের পরিবার তা মানেনি। এক পর্যায়ে দেশিয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ঘটনাস্থলেই আবুল হাসেমের মৃত্যু হয়। পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসাপাতলে নেওয়া হলে জহিরুল ও আজিবুল মারা যান। সংঘর্ষে আরও ৫ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা গুরুতর।

ঘটনাস্থল থেকে রক্তমাখা রামদাসহ ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ -সমকাল

পুলিশ আরও জানায়, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় রক্তমাখা রামদা ও ৭টি বল্লমসহ ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। 

ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার শাহ্‌ আবিদ হোসেন জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রক্তক্ষয়ী এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝিসহ পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। আহতদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।      

মন্তব্য


অন্যান্য