ময়মনসিংহ

কেন্দুয়ায় স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ

প্রকাশ : ০৭ জুন ২০১৯

কেন্দুয়ায় স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

  কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি

স্বামীকে বেঁধে রেখে অস্ত্রের মুখে স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। কেন্দুয়ার মদন সড়কের পাশে শাপলা ব্রিকস (ইট ভাটা) এলাকায় বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ধর্ষিতাকে উদ্ধার ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় শুক্রবার অজ্ঞাতপরিচয় তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

কেন্দুয়া থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রফিকুল ইসলাম সমকালকে জানান, দুই বছর আগে বিয়ে হলেও স্বামীর সঙ্গে থাকতেন না পোশাক শ্রমিক ওই নারী। তবে মোবাইলে যোগাযোগ ছিল।

তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে তার স্বামী ফোন করে মোটরসাইকেলে হাওর এলাকায় বেড়ানোর কথা বলে তাকে ডেকে নেন। গোগবাজার এলাকায় পৌঁছার পর সন্ধ্যা হয়ে গেলে তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার সময় শাপলা ব্রিকস এলাকায় এলে মোটরসাইকেলটি বিকল হয়ে পড়ে। তার স্বামী মোটরসাইকেল মেরামতের সময় তিনজন লোক এসে তাকে ডেকে ইটভাটার ভেতরে নিয়ে যায়। দেরি হওয়ায় তিনি এগিয়ে গিয়ে দেখেন তার স্বামীকে লোকগুলো বেঁধে রেখেছে। এ সময় অস্ত্রের মুখে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তারা।

ভুক্তভোগী নারী জানান, একপর্যায়ে তিনি সেখান থেকে উদ্ধার পেয়ে দৌড়ে রাস্তায় এসে লোকজন নিয়ে স্বামীকে মুক্ত করতে যান। গিয়ে দেখে তার স্বামীও নেই, ধর্ষণকারীরাও নেই।

কেন্দুয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদুল হাসান বলেন, এ ঘটনায় কেন্দুয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে। ওই নারীর স্বামীর আচরণ রহস্যজনক। ঘটনাটির তদন্ত চলছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য


অন্যান্য