মিউজিক

যারা বিচারক ছিলাম সবাই বিস্মিত হয়েছি: পার্থ

প্রকাশ : ২৯ আগষ্ট ২০১৯ | আপডেট : ২৯ আগষ্ট ২০১৯

যারা বিচারক ছিলাম সবাই বিস্মিত হয়েছি: পার্থ

পার্থ বড়ূয়া

  বিনোদন প্রতিবেদক

পার্থ বড়ূয়া। কণ্ঠশিল্পী, অভিনেতা ও সঙ্গীত পরিচালক। এনটিভিতে আজ রাত ৯টা ২৫ মিনিটে প্রচার হবে সঙ্গীত প্রতিভা অন্বেষণের প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান 'সিলন সুপার সিঙ্গার'। এতে বিচারকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। এ আয়োজন ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তার সঙ্গে-

আগেও বিভিন্ন রিয়েলিটি শোতে বিচারকের দায়িত্ব পালন করেছেন। সেসব আয়োজন থেকে 'সিলন সুপার সিঙ্গার' প্রতিযোগিতা কতটা ভিন্ন ধরনের বলে মনে হয়েছে?

অন্যান্য প্রতিযোগিতা থেকে 'সিলন সুপার সিঙ্গার' কিছুটা হলেও ভিন্ন ধরনের। কারণ, এ প্রতিযোগিতা শুধু গৃহিণীদের নিয়ে, যারা ঘরের কাজ ছাড়াও সঙ্গীতে সমান পারদর্শী। এর বিচারক হওয়ার পর একটা বিষয় স্পষ্ট হয়েছে যে, সুযোগ পেলে অনেকে অনেক কিছু করে দেখাতে পারেন। অবাক হয়েছি, গৃহিণীদের মধ্যে এত সঙ্গীত অনুরাগী দেখে। এই রিয়েলিটি শোর বিচারক হওয়ার আগ পর্যন্ত কল্পনাও করিনি, এত প্রতিভা আড়ালে পড়ে আছে। যারা অংশ নিয়েছেন, তাদের অনেকে গান গাওয়ার ভালো প্ল্যাটফর্ম খুঁজে পাননি। হয়তো সেজন্যই তাদের কাছের মানুষজনও জানতে পারেননি ঘরের মানুষটি এত ভালো গাইতে পারে।

গৃহিণীদের মধ্য থেকে সম্ভাবনাময় শিল্পী খুঁজতে সারাদেশ চষে বেড়িয়েছেন। তখন কি জানতেন আপনাদের ডাকে এত প্রতিযোগী সাড়া দেবেন?

প্রতিযোগীর সংখ্যা যখন পনেরো হাজার ছাড়িয়ে গেছে, তখন আমি এবং আরও যারা বিচারক ছিলেন সবাই বিস্মিত হয়েছি। তরুণী থেকে প্রৌঢ় নানা বয়সের গৃহিণী অডিশন দিয়েছেন। এত প্রতিযোগী থেকে সম্ভাবনাময় শিল্পী খুঁজে বের করা কী যে কষ্টদায়ক ছিল তা বলে বোঝানো যাবে না। রিয়েলিটি শোর তিন বিচারক তারিন, ফাহমিদা নবী আর আমি দেশের প্রধান শহরগুলোর সবটাই চষে বেড়িয়েছি। আজ এই শহরে তো কাল অন্য শহরে গিয়ে অডিশন নিয়েছি।

শুনলাম পার্থ মজুমদারের সঙ্গে একটা গানের স্কুল খুলতে যাচ্ছেন?

ঠিকই শুনেছেন। আমরা দুই বন্ধু মিলে মিউজিকের একটা স্কুল খুলতে যাচ্ছি। আমরা চাই, নতুনদের সঙ্গীত শেখার একটা প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে দিতে। 

চার বছর ধরে সোলসের অ্যালবাম প্রকাশের কথা বলেছেন। কাজ কি এখনও শেষ হয়নি?

কাজ শেষ। কিন্তু যেভাবে যা করতে চেয়েছি তা হয়নি। মৌলিক গানসহ সোলসের জনপ্রিয় বেশ কিছু গান নতুন করে রেকর্ড করার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু শেষমেষ পরিকল্পনা বদলাতে হয়েছে। কারণ, জনপ্রিয় গানগুলো নিয়ে 'সোলস গোল্ড' নামের যে অ্যালবাম প্রকাশ করতে চেয়েছি, তার প্রতিটি গানের গীতিকার, সুরকার ও শিল্পী যারা এখন সোলসে নেই, তাদের অনুমতি নেওয়ার বিষয় আছে। তাই এ অ্যালবামের কাজ স্থগিত রেখেছি। তবে মৌলিক গান নিয়ে 'বন্ধু' নামের একটি অ্যালবাম করেছি। কিন্তু এখন দোটানায় পড়েছি এর প্রকাশনা নিয়ে। কারণ, অ্যালবামের জায়গা এখন দখল করে নিয়েছে একক গান। তাই বুঝতে পারছি না, অ্যালবাম নাকি প্রতিটি গান আলাদা করে প্রকাশ করব।

ব্যান্ডের বাইরেও অনেকদিন নতুন কোনো গান করতে দেখা যায়নি, এর কারণ কী? 

'সিলন সুপার সিঙ্গার' রিয়েলিটি শোর জন্য অন্য কিছু করার সুযোগ হয়ে ওঠেনি। তারপরও যেটুকু সময় হাতে পেয়েছি, সে সময়ে দুটি মিক্সড অ্যালবামের জন্য গান করেছি। শিগগির হয়তো গান দুটি প্রকাশ পাবে। এ ছাড়া গানের স্কুল নিয়েও নানা পরিকল্পনা করতে হচ্ছে।

মন্তব্য


অন্যান্য