আইন ও বিচার

হাইকোর্টেও জামিন মেলেনি বাছিরের

প্রকাশ : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

হাইকোর্টেও জামিন মেলেনি বাছিরের

ফাইল ছবি

  সমকাল প্রতিবেদক

ঘুষ লেনদেনের মামলায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সাময়িক বরখাস্ত পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরকে জামিন দেননি হাইকোর্ট। 

বিচারপতি ফরিদ আহমেদ ও বিচারপতি এএসএম আবদুল মোবিন সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চে মঙ্গলবার বাছিরের জামিনের আবেদনের শুনানি হয়। এতে জামিন না হওয়ার শঙ্কায় ওই বেঞ্চ থেকে আবেদনটি ফেরত নেন বাছিরের আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল।

আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোহাম্মদ খুরশীদ আলম খান। 

শুনানিতে বাছিরের জামিন চেয়ে আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস আদালতে বলেন, এনামুল বাছিরের দুইবার স্ট্রোক হয়েছে। তার ডায়বেটিস আছে। তা ছাড়া মামলাটিও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

অন্যদিকে দুদকের আইনজীবী বলেন, ডিআইজি মিজানুর রহমান যেমন পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করেছেন, তেমনি এনামুল বাছিরও দুদকের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করেছেন। তার বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণের সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। দুদকের জন্য এর চেয়ে লজ্জার বিষয় আর নেই। তাছাড়া মামলাটিও তদন্তাধীন। জামিন হলে তদন্তে বিঘ্ন সৃষ্টি হতে পারে। 

এ পর্যায়ে বাছিরের জামিন প্রশ্নে বেঞ্চ রুল জারি করতে না চাইলে জামিন আবেদনটি ফেরত নেওয়া হয়।

৪০ লাখ টাকা ঘুষ লেনদেনের ঘটনায় এনামুল বাছিরসহ পুলিশের বিতর্কিত ডিআইজি মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে গত ১৬ জুলাই মামলা করে দুদক। ফরেনসিক পরীক্ষায় ঘুষ লেনদেন নিয়ে তাদের কথোপকথনের অডিও'র সত্যতা পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এরপর ২২ জুলাই খন্দকার এনামুল বাছিরকে ঢাকার দারুস সালাম এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে দুদকের তদন্ত দল। পরে তাকে রমনা থানায় রেখে পরদিন আদালতে হাজির করা হলে তিনি ওই আদালতে জামিন চেয়ে আবেদন করেন। কিন্ত ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালত জামিন আবেদন নাকচ করে এনামুল বাছিরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরই ধারাবাহিকতায় ১ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করেন তিনি।

মন্তব্য


অন্যান্য