আন্তর্জাতিক

মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনায় অমিত শাহের বিরুদ্ধে এফআইআর

প্রকাশ : ১৫ মে ২০১৯ | আপডেট : ১৫ মে ২০১৯

মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনায় অমিত শাহের বিরুদ্ধে এফআইআর

অমিত শাহ

  অনলাইন ডেস্ক

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিদ্যাসাগর কলেজে মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনায় বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে কলকাতা পুলিশ। পাশাপাশি মঙ্গলবার রাত থেকে এখন পর্যন্ত মোট ৫৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

কলকাতা পুলিশ জানিয়েছে, আরও বেশ কয়েকজনের খোঁজে তল্লাশি চলছে। 

এদিকে এফআইআর করা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অমিত শাহ। বুধবার সংবাদ সম্মেলনে অমিত বলেছেন, ‘আমার বিরুদ্ধে এফআইআর হয়েছে। আমরা ভয় পাই না। মমতা চাইলে নিরপেক্ষ সংস্থাকে দিয়ে এই ঘটনার তদন্ত করতে পারেন।’

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে সংঘর্ষ এবং বিদ্যাসাগর কলেজে ভাঙচুরের ঘটনায় জোড়াসাঁকো থানা এবং আমহার্স্ট স্ট্রিট থানায় অভিযোগ করা হয়। 

বিদ্যাসাগর কলেজের এক শিক্ষার্থীর অভিযোগের ভিত্তিতে অমিত শাহসহ রোড শোতে উপস্থিত বিজেপির শীর্ষ নেতা এবং অজ্ঞাতপরিচয় বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে আমহার্স্ট স্ট্রিট থানায়। 

অন্যদিকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় এফআইআর করেছে জোড়াসাঁকো থানার পুলিশ। পাশাপাশি মঙ্গলবার দুপুরে লেনিন সরণিতে রোড শোয়ের প্রস্তুতি চলাকালীন নির্বাচন কমিশনের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় হেয়ার স্ট্রিট থানায় অভিযোগ করেছে কমিশন। 

পুলিশ কমিশনার রাজেশ কুমার জানিয়েছেন, বিদ্যাসাগর কলেজে ভাঙচুরের ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে। 

একইসঙ্গে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে ১৬ জনকে। এখন পর্যন্ত সেই গ্রেফতারির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৮তে। আরও বেশ কয়েকজনের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ৫৮ জনকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি বিজেপির বেশ কয়েকজন নেতাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। 

আনন্দবাজার পত্রিকা ও জি-নিউজের খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের রোড শো চলাকালে বিদ্যাসাগর কলেজে ঢুকে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা ভাঙচুর করেন বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল। এসময় বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুর করা হয়। এছাড়া কলেজের গেট, আসবাব ভেঙে দেওয়ার পাশাপাশি পুরো এলাকা তছনছ করার জন্যও অভিযোগ করা হয়েছে। 

রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হয়েছে। আগুন জ্বালানো হয়েছে। বিহার-রাজস্থান থেকে গুণ্ডা এনে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। নিন্দার ভাষা নেই। আমি লজ্জিত এবং ক্ষমাপ্রার্থী। বাংলার মানুষ হয়ে আমরা ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরকে সম্মান দিতে পারি না বিজেপির গুণ্ডাদের জন্য।’

এদিকে বিজেপির পাল্টা অভিযোগ, অমিত শাহের রোড শোতে ইট ছুড়ে আক্রমণ চালিয়ে প্রথমে গোলমাল বাধিয়েছে তৃণমূলই। 

বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বিভিন্ন মহল। এ ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে বাম দলগুলি, তৃণমূল কংগ্রেস, বুদ্ধিজীবীদের একাংশসহ আরও অনেকেই।


মন্তব্য


অন্যান্য