আন্তর্জাতিক

ইরানকে দুষছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৯

ইরানকে দুষছে যুক্তরাষ্ট্র

  অনলাইন ডেস্ক

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর ইরানের মধ্যে টানটান উত্তেজনার মধ্যেই আরও কিছুটা উত্তেজনার পারদ চড়েছে এবার। চারটি বাণিজ্যিক জাহাজে হামলা নিয়ে নতুন করে শুরু হয়েছে এ উত্তেজনা।

পারস্য উপসাগরে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উপকূলের কাছে হামলার শিকার সৌদি আরবের ওই জাহাজে হামলার ঘটনাটি ইরানই ঘটিয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের তদন্তকারী দলের বিশ্বাস; তবে ইরান এ অভিযোগ নিয়ে এখনও কিছু বলেনি।

একাধিক গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বাস ইরান অথবা ইরান সামর্থিত কোনও গোষ্ঠী এ হামলা চালিয়োছ। তাদের পক্ষ থেকে সামরিক বিশেষজ্ঞ দল ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে যে বিশেষ তদন্ত দলকে হামলার শিকার জাহাজগুলোকে পর্যবেক্ষণ করতে পাঠানো হয়েছিল তারা প্রত্যেকটি ট্যাংকারে গর্ত দেখতে পেয়েছেন বলে সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে।

ইরানকে দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্র যে বক্তব্য দিয়েছে; সে অভিযোগের ব্যপারে এখন পর্যন্ত প্রমাণ উপস্থাপন করা হয়নি। ইরানের পক্ষ থেকেও কোনও বক্তব্য আসেনি।

হরমুজ প্রণালির নিকটস্থ ফুজাইরাহ বন্দরের কাছে গত রোববার এসব হামলার ঘটনা ঘটে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের উপকূলের কাছে হামলার শিকার জাহাজগুলোর মধ্যে দুটি ছিল তেলের ট্যাংকার। তেলের জাহাজে হামলার ঘটনায় সোমবার তেলের দামও বেড়েছে।

সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল ফালিহ এক বিবৃতিতে বলেন, হামলার শিকার দুটি ট্যাংকারের একটি রাস তানপুরা বন্দর থেকে সৌদির অপরিশোধিত তেল বোঝাইয়ের উদ্দেশে রওনা করেছিল।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সৌদি আরামকোর ট্যাংকারটির মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্রেতাদের জন্য তেল নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। হামলার ঘটনায় কোনো প্রাণহানি হয়নি কিংবা তেলও পড়ে যায়নি। তবে ট্যাংকারগুলোর কাঠামোয় উল্লেখযোগ্য ক্ষতি হয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাত জানায়, ফুজাইরাহ বন্দরে চারটি বাণিজ্যিক জাহাজ অন্তর্ঘাতমূলক কর্মকাণ্ডের শিকার হয়েছে। জাহাজগুলোয় বিভিন্ন দেশের নাগরিকেরা ছিল।

সম্প্রতি ইরানের সঙ্গে বাড়তে থাকা উত্তেজনার মধ্যেই মধ্যপ্রাচ্যে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাপনা ও যুদ্ধজাহাজ পাঠানোর ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের পাঠানো এই মেরিন সৈন্য, উভগামী বিভিন্ন যানবাহন, হেলিকপ্টার, বিমান ও আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা প্যাট্রিয়ট পরিবহন করা ইউএসএস আর্লিংটন ইউএসএস আব্রাহাম লিঙ্কন ক্যারিয়ার স্ট্রাইক গ্রুপ ও বি-৫২ যুদ্ধবিমান টাস্ক ফোর্সের সাথে যোগ দেবে বলে বার্তা সংস্থা এএফপির জানায়।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন জানায়, তারা মধ্যপ্রাচ্যে উভগামী একটি রণতরী এবং প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ব্যাটারি মোতায়েন করছে। ইরানের কথিত হামলার হুমকি মোকাবেলায় বিমানবাহী রণতরীর শক্তি বাড়াতেই তারা এসব সামরিক সরঞ্জাম পাঠানো হয়।

ইরান এ অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন স্থাপনায় হামলার পরিকল্পনা করছে- গোয়েন্দা সংস্থার এমন প্রতিবেদনের পর এ স্ট্রাইক ক্যারিয়ারকে উপসাগর অভিমুখে পাঠানো হয়। এ নিয়ে উত্তেজনার মধ্যেই তেলবাহী ট্যাংকারে হামলার ঘটনা ঘটলো।

মন্তব্য


অন্যান্য